sponsor

sponsor

Slider

আন্তর্জাতিক

জাতীয়

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

Facebook Like Box

» » » সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রীর যেসব নির্দেশনা




প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে বলেছেন- নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ঠিক দুইদিন পর একটা ভিডিওতে দেখি, এক যুবক হাত দেখিয়ে দেখিয়ে রাস্তা পার হচ্ছে। কিন্তু রাস্তাটির খুব কাছে একটা ফুটওভার ব্রিজ ছিল। যারা এইভাবে রাস্তা পার হয়, তাদের ক্ষেত্রে সড়ক দুর্ঘটনা বেশি হয়।
রোববার রাজধানীর কুর্মিটোলা শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজ (এসআরসিসি) প্রাঙ্গণে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, রাস্তায় নেমে পাশেই ফুটওভার ব্রিজ থাকতে হাত দেখিয়ে রাস্তা পার হওয়া বেআইনি। রাস্তা পারাপার হওয়ার জন্য ফুটওভার ব্রিজ, আন্ডারপাস ও জেব্রা ক্রসিং ব্যবহার করতে হবে। রাস্তায় যেখানে সেখানে লোক ওঠানামা করা যাবে না। নির্দিষ্ট জায়গায় লোক নামবে এবং উঠবে। এই আইন যদি কেউ ভাঙে তাহলে সেই বাসের রুট পারমিট বাতিল করা হবে।

এছাড়াও তিনি নির্দেশনা দিয়ে বলেন, আন্ডারপাসগুলোতে পর্যাপ্ত লাইট ও নিরাপত্তার জন্য গোপনে সিসি ক্যামেরা ব্যবহার করতে হবে। আন্ডারপাস পরিষ্কার রাখতে হবে।
তিনি আরও বলেন, আমরা যখন ক্ষমতায় ছিলাম না, তখন দেখেছি বিআরটিসি বাস বন্ধ করার একটা চেষ্টা ছিল। আমাদের দেশে জনসংখ্যা বেশি। সবাই যেন গণপরিবহনে উঠতে পারে, আমরা সে ব্যবস্থা করেছি। ড্রাইভারদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্যি তারা মনোযোগ দিয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে না। অনেক সময় দেখা যায়, তারা হেলপারের হাতে গাড়ি ছেড়ে দেয়। তখনই সড়ক দুর্ঘটনাগুলো ঘটে। সড়কে কোথায় বেশি দুর্ঘটনা হয় সেগুলো চিহ্নিত করে সেইসব সড়কগুলোতে যেন দুর্ঘটনা না ঘটে, সে ব্যাপারে আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন মন্ত্রিসভার বৈঠকে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ছয়টি নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নির্দেশনাগুলো হলো—১. গাড়ির চালক ও তার সহকারীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা। ২. ড্রাইভের সময় বিকল্প চালক রাখা, যাতে পাঁচ ঘণ্টার বেশি কোনও চালককে একটানা দূরপাল্লায় গাড়ি চালাতে না হয়। ৩. নির্দিষ্ট দূরত্বে পর পর সড়কের পাশে সার্ভিস সেন্টার বা বিশ্রামাগার তৈরি। ৪. অনিয়মতান্ত্রিকভাবে রাস্তা পারাপার বন্ধ করা। ৫. সড়কে যাতে সবাই সিগন্যাল মেনে চলে তা নিশ্চিত করা। পথচারী পারাপারে জেব্রা ক্রসিং ব্যবহার নিশ্চিত করা। ৬. চালক যাত্রীদের সিটবেল্ট বাঁধার বিষয়টি নিশ্চিত করা।

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply