sponsor

sponsor

Slider

আন্তর্জাতিক

জাতীয়

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

Facebook Like Box

» » গাইবান্ধায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত



গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ জেলার শীর্ষ এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন দুই র‌্যাব সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য, বিদেশি অস্ত্র ও গোলাবারুদ।

সোমবার দিনগত রাতে উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে।
নিহত মাদক ব্যবসায়ীর নাম আব্দুস সালাম ওরফে ঠসা সালাম (৪৭)। তিনি ওই ইউনিয়নের সাতগিরি পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত সফু হালাই ওরফে সফু করাতির ছেলে। তার নামে ২৮টির বেশি মাদক মামলা রয়েছে।

রংপুর র‌্যাব-১৩ মিডিয়া অফিসার এএসপি খন্দকার গোলাম মোর্তুজা আরটিভি অনলাইনকে জানান, মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তারের অভিযানের অংশ হিসেবে র‌্যাব-১৩ বিশেষ একটি দল জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়। মাদকদ্রব্য  বিক্রি হচ্ছে এমন  খবর পেয়ে রোববার গভীর রাতে র‌্যাব সদস্যরা গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের জামাল গ্রামে যায়।সেখানে কিছু লোকের উপস্থিতি ও টর্চ লাইটের আলো দেখতে পায়। র‌্যাব সদস্যরা তাদের দিকে এগিয়ে গেলে মাদক ব্যবসায়ীরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে র‌্যাব সদস্যদের ওপর গুলি চালায়। এসময় র‌্যাব সদস্যরা মাদক ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণের  আহ্বান জানায়। কিন্তু তারা আত্মসমর্পণ না করে র‌্যাবের ওপর ফের গুলি চালায়। এসময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। আট থেকে ১০ মিনিট গুলি বিনিময়ের একপর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। এসময় দুই র‌্যাব সদস্য আহত হন। ইতোমধ্যে আশপাশের লোকজন জড়ো হতে থাকে। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য, বিদেশি অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১৩। পরে সেখান থেকে ঠসা সালামকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) এসএম আব্দুস সোবহান আরটিভি অনলাইনকে জানান, ঠসা সালামের মরদেহ উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে র‌্যাবের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
তিনি আরও জানান, তার বিরুদ্ধে ২৮টি মামলা রয়েছে। এরমধ্যে ১৬টির গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে।

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply