sponsor

sponsor

Slider

আন্তর্জাতিক

জাতীয়

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

Facebook Like Box

» » ৫৭ ধারা বিলুপ্ত হবে: মোস্তাফা জব্বার




ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বলবৎ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ৫৭ ধারা বিলুপ্ত হবে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তবে ইতোপূর্বে ৫৭ ধারার আওতায় যেসব মামলা হয়েছে সেগুলো ওই আইন ( ৫৭ ধারা) অনুযায়ী-ই চলবে বলে জানান তিনি।

আজ `ইউসিবি পাবলিক পার্লামেন্ট` শিরোনামে জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। এফডিসিতি `ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি` শিরোনামে এই বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের গুরুত্বের বিষয়টি উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এ আইন বাংলাদেশেই প্রথম হয়েছে। পৃথিবীর কোথাও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নেই। এক সময় পশ্চিমারা আমাদের `তলাবিহীন ঝুড়ি` বলত। আর এখন আমাদের কাছে আইন শেখে।

মন্ত্রী আরো বলেন, আপনি যা ইচ্ছা তাই করবেন এটা কিন্তু গণতন্ত্র না। আমরা প্রচলিত শাসন ব্যবস্থা নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছি না।

মন্ত্রী এ সময় বলেন, ফেসবুক, হোয়াটসআপ, ভাইবার তালা মেরে বন্ধ রাখা আমি বিশ্বাস করি না। প্রযুক্তির ব্যবহার করতে না পারলে ডিজিটাল বাংলাদেশ কার্যকর হবে না।

মোস্তাফা জব্বার আরো বলেন, এদেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার হয়েছে। এটা মাধ্যমের দোষ নয়, দুষ্টদের দোষ। তাই এটা নিয়ন্ত্রনের জন্য আইন দরকার।

গণমাধ্যম কর্মীদের ইঙ্গিত করে মন্ত্রী বলেন, এদেশে ৩২ ধারা নিয়ে খুব বিতর্ক হয়েছে, হচ্ছে। কিন্তু স্পষ্টত কথা হচ্ছে রাষ্ট্রীয় শৃংখলা লঙ্ঘিত হলেই এই আইন কার্যকর হবে। এই আইন বাক স্বাধীনতা রোধ করার জন্য নয়। কেউ দুর্নীতি করলে আপনি তার ছবি তুলবেন, প্রচার করবেন। আমাদের কোনো আইন সেক্ষেত্রে বাধা নয়।

তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী বলেন, জনগণের সচেতন হওয়ার কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু আইন কার্যকর না হলে সচেতনতা আসে না। রাস্তায় ট্রাফিক পুলিশ জরিমানা করে বলেই পথচারী ও চালক আইন মানে।

মন্ত্রী এসময় বলেন, ২০০৮ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। ২০০৯ সালে বাংলাদেশ সেই পথে যাত্রা করে। সেই যাত্রায় আজকের বাংলাদেশ এক অন্যরকম বাংলাদেশ।

তিনি আরো বলেন, সরকার যখন ক্ষমতায় এসেছিল দেশে তখন মোবাইল ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল সাড়ে চার কোটি। আজ দেশে ১৫ কোটি মানুষ মোবাইল ব্যবহার করে। বাংলাদেশ ফেসবুক, ইউটিউবের জন্য বড় ব্যবসা ক্ষেত্র বলে জানান তিনি।

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply