sponsor

sponsor

Slider

আন্তর্জাতিক

জাতীয়

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

Facebook Like Box

» » ব্যালন ডি'অর ‘জিতলেন’ মেসি, অতঃপর...



রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে দ্বিতীয় রাউন্ডে বিদায় নেয়ার পর জাতীয় দল থেকে সাময়িক বিরতিতে রয়েছেন লিওনেল মেসি। চলতি বছরে আলবেসিলেস্তেদের হয়ে মাঠ মাতাতে আর দেখা যাবে না পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ীকে। গেলো সপ্তাহে ‘ফ্রান্স ফুটবল’ বর্ষ সেরা এই পুরস্কারের প্রাথমিক তালিকা প্রকাশ করেছে। এতে ৩০ জনের মধ্যে রয়েছেন মেসিও। ফুটবল ম্যাগাজিনটি একটি অনলাইন ভোটিংয়ে আর্জেন্টাইন মহাতারকা সবচেয়ে এগিয়ে ছিল। এর পর সেটি বন্ধ করে দেয়ায় বেধেছে বিপত্তি।
বার্সেলোনার এই ফরোয়ার্ড গেল ১০ বছরের প্রতিবারই ছিলেন ফেভারিট। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো আর মেসি ব্যালন ডি’র শিরোপাটি যেন নিজেদেরই করে নিয়েছিলেন। দুজনই জিতেছেন পাঁচবার করে।
তবে এবারের বিষয়টি ভিন্ন, মেসি নিজেও জানেন, বর্ষসেরা হবার দৌড়ে বেশ দূরেই রয়েছেন তিনি। ঝামেলা বেধেছে ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিন নিজেদের ফ্যানদের জন্য ভোটিং লাইন খুলেছিল। ব্যালন ডি’অর কে হচ্ছেন, এনিয়ে ভোটিংয়ের কোনো সম্পর্ক ছিল না। শুধু ফ্যানদের পছন্দ জানার জন্যই ভোট নেয়া হচ্ছিল। অল্প সময়ে প্রায় সাত লাখ চার হাজার ৩৯৬ জন এতে ভোট দেয়। সবাইকে পেছেনে ফেলে এক নম্বরে উঠে আসেন আর্জেন্টাইন জাদুকর। আর এতেই সব ওলট পালট হয়ে যায়।
তালিকায় থাকা অন্যদের তুলনায় ৪৮ শতাংশ ভোট পেয়ে এক নম্বরে ছিলেন মেসি, দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন ৩১ শতাংশ ভোট পাওয়া মিশর ও লিভারপুল ফরোয়ার্ড সালাহ। মাত্র ৮ শতাংশ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে ছিলেন পর্তুগাল ও জুভেন্টাসের মহারাজ রোনালদো।
মজার বিষয় হচ্ছে, ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলার  ‘দ্য বেস্ট’ পাওয়া ক্রোয়েশিয়ার লুকা মদ্রিচ মাত্র ২ শতাংশ ভোট পেয়েছেন।
প্রথম পর্বের ফল জানার পরই দ্রুত এই ভোটিং লাইন বন্ধ করে দেয় ফ্রান্স ফুটবল কর্তৃপক্ষ। আর এই নিয়ে তুমুল সমালোচনা শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।
নিজেদের পছন্দের ফল না হতেই ভোটিং লাইন বন্ধ করা হয়েছে এমনটা অভিযোগ অনেকেই করেছেন ম্যাগাজিনটির বিরুদ্ধে। অনেকেই প্রশ্নও রাখেন, তাহলে কী আগে থেকেই ঠিক করা থাকে কে পাবেন শিরোপাটি।
এর আগেও পুরস্কার প্রদান করার আগেই রোনালদোর ইন্টারভিউ প্রচার করে তোপের মুখে পড়ে ম্যাগাজিনটি। সেবার সিআর সেভেনই বর্ষসেরার পুরস্কারটি জিতে নেন।
ব্যালন ডি’অরে নিয়ে ফ্রান্স ফুটবলের ভোটের ফল
গ্যারেথ বেল (রিয়াল মাদ্রিদ/ওয়েলস) ০%
সার্জিও আগুয়েরো (ম্যানচেস্টার সিটি/ আর্জেন্টিনা) ০%
আলিসন বেকার (রোমা/লিভারপুল/ব্রাজিল) ০%
করিম বেনজেমা (রিয়াল মাদ্রিদ/ফ্রান্স) ০%
এডিনসন কাভানি (পিএসজি/উরুগুয়ে) ০%
থিবো কর্তোয়া (রিয়াল মাদ্রিদ/বেলজিয়াম) ০%
কেভিন ডি ব্রুইন (ম্যানচেস্টার সিটি/বেলজিয়াম) ০%
রবের্তো ফিরমিনো (লিভারপুল/ব্রাজিল) ০%
দিয়েগো গডিন (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ/উরুগুয়ে) ০%
হ্যারি কেন (টটেনহ্যাম হটস্পার/ইংল্যান্ড) ০%
এনগোলো কন্তে (চেলসি/ফ্রান্স) ০%
হুগো লরিস (টটেনহ্যাম হটস্পার/ফ্রান্স) ০%
মারিও মানজুকিচ (জুভেন্টাস/ক্রোয়েশিয়া) ০%
সাদিও মানে (লিভারপুল/সেনেগাল) ০%
মার্সেলো (রিয়াল মাদ্রিদ/ব্রাজিল) ০%
জান ওবলাক (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ/স্লোভেনিয়া) ০%
পল পগবা (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড/ফ্রান্স) ০%
সার্জিও রামোস (রিয়াল মাদ্রিদ/স্পেন) ০%
লুইস সুয়ারেজ (বার্সেলোনা/উরুগুয়ে) ০%
ইভান রাকিটিচ (বার্সেলোনা/ক্রোয়েশিয়া) ১%
এইডেন হ্যাজার্ড (চেলসি/বেলজিয়াম) ১%
আঁতোয়া গ্রিজম্যান (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ/ফ্রান্স) ১%
নেইমার (পিএসজি/ব্রাজিল) ২%
রাফায়েল ভারানে (রিয়াল মাদ্রিদ/ফ্রান্স) ২%
কিলিয়ান এমবাপে (পিএসজি/ফ্রান্স) ২%
লুকা মদ্রিচ (রিয়াল মাদ্রিদ/ক্রোয়েশিয়া) ২%
ইসকো (রিয়াল মাদ্রিদ/স্পেন) ৩% 
ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো (জুভেন্টাস/রিয়াল মাদ্রিদ/পর্তুগাল) ৮%
মোহাম্মদ সালাহ (লিভারপুল/মিশর) ৩১%
লিওনেল মেসি (বার্সেলোনা/আর্জেন্টিনা) ৪২%

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply