sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

নির্বাচন

জাতীয়

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » জেনে নিন শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকায় বাংলাদেশ কত?


সম্প্রতি বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকা ২০১৮ প্রকাশিত হয়েছে। ২০১৮ এর তালিকা অনুসারে সিঙ্গাপুর, জার্মানিকে সরিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের পাসপোর্ট বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্ট হিসাবে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। এদিকে, কানাডা এবং যুক্তরাজ্য উভয়ই চতুর্থ স্থানে অবস্থান করছে। তালিকায় ৯৩টি স্থানের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৬তম। বাংলাদেশের কয়েকধাপ উপরে নেপালের অবস্থান।


 ‘আরব নিউজ’ ও ‘গালফ নিউজ’ জানায় শীর্ষ তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আছে সিঙ্গাপুর। ২০১৭ সালে শীর্ষস্থানধারী জার্মানি নেমে গেছে তৃতীয় স্থানে। এরপর তালিকার শীর্ষ দশে আছে যথাক্রমে ডেনমার্ক, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, লুক্সেমবার্গ, ফ্রান্স, ইতালি ও নেদারল্যান্ডস। সংযুক্ত আরব আমিরাতের পাসপোর্টধারীরা

ভিসা ছাড়াই শুধু বাংলাদেশের পাসপোর্টের জোরে আপনি ৫০টি দেশ ভ্রমণ করা সম্ভব। আর্থিক খাতের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান আরটন ক্যাপিটাল প্রভাবশালী পাসপোর্টের তালিকা তৈরি করেছে, যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ৬৭তম।

পাসপোর্ট ইনডেক্স ডটঅর্গে বিভিন্ন দেশের পাসপোর্টের প্রভাব নিয়ে ৮০ পর্যন্ত তালিকা করা হয়েছে, যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ৬৭। কোনো দেশের পাসপোর্টধারী ভিসা ছাড়াই অন্য দেশের যাওয়ার সংখ্যার ভিত্তিতে এই তালিকা করা হয়েছে।



বাংলাদেশের পাসপোর্টধারীদের কোনো ভিসাই লাগবে না এমন দেশগুলোর তালিকাঃ-
১. বাহামাস (চার সপ্তাহ পর্যন্ত), ২. বার্বাডোস (ছয় মাস), ৩. ডোমিনিকা (ছয় মাস), ৪. ফিজি (চার মাস), ৫. গাম্বিয়া (তিন মাস), ৬. গ্রানাডা (তিন মাস), ৭. হাইতি (তিন মাস), ৮. জ্যামাইকা, ৯. লেসোথো (তিন মাস), ১০. মালাওয়ি (তিন মাস), ১১. মাইক্রোনেশিয়া (এক মাস), ১২. সেইন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস,
১৩. সেইন্ট ভিনসেন্ট অ্যান্ড দ্য গ্রানাডিনস (এক মাস), ১৪. ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো, ১৫. ভানুয়াতু (এক মাস), ১৬. মন্টসেরাত (তিন মাস), ১৭. টার্ক অ্যান্ড সিসেরো আইল্যান্ড (এক মাস), ১৮. ব্রিটিশ ভার্জিনিয়া আইল্যান্ড (এক মাস), ১৯. মাক্রোনেশিয়া (এক মাস) ২০. নিউয়ি (এক মাস)




 ভিসা করতে হবে এমন দেশগুলোর তালিকাঃ-
১. ভুটান, ২. বলিভিয়া (তিন মাসের ভিসা), ৩. কেপ ভার্দে, ৪. কমোরোস, ৫. গিনি বিসাউ (তিন মাস), ৬. মাদাগাস্কার (তিন মাস), ৭. মালদ্বীপ (এক মাস), ৮. মাওরিতানিয়া, ৯. মোজাম্বিক (এক মাস), ১০. নেপাল (এক মাস), ১১. নিকারাগুয়া (তিন মাস), ১২. তিমরলেস্টে (এক মাস), ১৩. টোগো (সাত দিন), ১৪. তুভালু (এক মাস), ১৫. উগান্ডা, ১৬. বুরুন্ডি, ১৭. জিবুতি (এক মাস), ১৮. আজারবাইজান (এক মাস), ১৯. ম্যাকাউ (এক মাস)

বাংলাদেশের পাসপোর্ট থাকলে ভিসা লাগবে না তবে বিশেষ অনুমোদন লাগবে এমন দেশগুলি হলো:

১. কিউবা (টুরিস্ট কার্ড জোগাড় করতে হবে, মেয়াদ তিন মাস), ২. সামোয়া (ঢোকার অনুমতিপত্র থাকলেই হলো, মেয়াদ দুই মাস), ৩. সেচেলেস (ভ্রমণের অনুমতিপত্র থাকতে হবে, মেয়াদ এক মাস), ৪. সোমালিয়া (ওই দেশে থাকা কেউ স্পন্সর করলে ভিসা পৌঁছেও করা যাবে, যার মেয়াদ হবে এক মাস। তবে সোমালিয়া পৌঁছানোর দুদিন আগে সেখানকার বিমানবন্দরে বিষয়টি জানিয়ে রাখতে হবে), ৫. শ্রীলংকা (ভ্রমণের জন্য ইলেকট্রনিক অনুমোদনপত্র, মেয়াদ এক মাস), ৬. লাওস (সরকারি কোনো সফরের নথিপত্র থাকলে ভিসা প্রয়োজন হবে না)

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply