sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জে গৃহহীন ২ শাটলারের কীর্তি



ভূমিকম্প আর সুনামি কেড়ে নিয়েছে আপনজনসহ থাকার শেষ সম্বলটুকুও। তবে কেড়ে নিতে পারেনি স্বপ্নকে। ইন্দোনেশিয়ার পালু শহরের দুই শাটলারের 'সাইকা - মারওয়াহ' বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখেন ব্যাডমিন্টনকে ঘিরে। দেশটির জুনিয়র ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর জায়গা করে নিয়েছিলেন বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্টে। আর তাদের এমন হার না মানা কীর্তিতে, অনুপ্রেরণা খোঁজেন দলের অন্য সদস্যরা।


 গুলিস্তানের উডেন ফ্লোর জিমনেসিয়ামে চলছে র‌্যাংকিং ভিত্তিক আন্তর্জাতিক ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট 'বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জ'। অবশ্য গ্যালারির দিকে তাকালে একটু অবাক-ই হওয়ার কথা। দর্শক সারিতে স্পষ্টই ইন্দোনেশিয়ানদের আধিপত্য। এবারের আসরে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশটি থেকে অংশ নিচ্ছেন টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৪ শাটলার।

তবে এদের মধ্যে নিতা ভাওলিনা মারওয়াহ আর পুতরি সাইকার গল্প, চোখের কোণে পানি এনে দেবে যে কারো। গেলো সেপ্টেম্বরে দেশটির সুলাওয়েসি দ্বীপের পালু শহরে ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্পের সঙ্গে ১০ ফুট উঁচু সুনামিতে, মারা যায় প্রায় ৬ শতাধিক মানুষ। যার মধ্যে ছিলো সাইকার পরিবারের ৩ সদস্য। সুনামিতে গৃহহীন হয়ে আশ্রয় কেন্দ্র এখন ঠিকানা ভাওলিনার। তবুও কষ্টকে বুকে চেঁপে তারা খেলতে এসেছেন এই টুর্নামেন্টে।

ইন্দোনেশিয়া শাটলার নিতা ভাওলিনা মারওয়াহ জানান, 'আমি জানিনা আমার পরিবারের ভবিষ্যৎ কি! জানি না কতদিন আমি খেলাটা চালিয়ে নিতে পারবো। তবে সবকিছুর পরেও ব্যাডমিন্টন খেলাকে নিয়েই আমি স্বপ্ন দেখি।'

শাটলার পুতরি সাইকা জানান, 'দাদুর অনুপ্রেরণায় আমি ব্যাডমিন্টন খেলা শুরু করি। সেই দাদুই সুনামিতে মারা গিয়েছেন। কিছুতেই এই কষ্টটা ভুলতে পারছি না। দাদুর স্বপ্ন-পূরণই আমার একমাত্র লক্ষ্য।'

এই দুই শাটলারে মুগ্ধ ইন্দোনেশিয়া দলের ম্যানেজারও। সাইকা - মারওয়াহ মধ্যে তিনি দেখতে পাচ্ছেন দেশটির হয়ে প্রথম অলিম্পিকে পদক জয়ী শাটলার 'সুসি সুন্তি'র ছায়া।




ইন্দোনেশিয়া ব্যাডমিন্টন ফেডারেশন ম্যানেজার হারি হারতোনো জানান, ব্যাডমিন্টন আমাদের দেশের এক নম্বর খেলা। আর এই দুইজন দারুণ প্রতিভাবান। আর ওদের বয়সও খুবই কম। তবে সবকিছুর পরেও ব্যাডমিন্টন খেলাটাকে ওরা যেভাবে চালিয়ে নিয়ে যাচ্ছে তাতে আমি ওদের নিয়ে আশাবাদী।

যদিও সেমির ম্যাচে কুড়ি না পেরু এই দুই শাটলার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে হার মেনেছেন ভারতের অভিজ্ঞ ইলুমালাই আর ভিলাভানের কাছে। তবে ম্যাচ ছাপিয়ে সাইকা - মারওয়াহ যুদ্ধ জয়ের গল্প, অণুপ্রেরণা হয়ে থাকবে অন্য সবার কাছে।

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply