sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » কুলদীপ-চহাল অনেক এগিয়ে, রায় হরভজনের







এক দিনের ক্রিকেটে ফিঙ্গার স্পিনারদের (আঙুলের সাহায্যে যাঁরা বল ঘোরান) টিকে থাকতে হলে বোলিংয়ে অনেক বৈচিত্র আনতে হবে বলে মনে করেন হরভজন সিংহ। পাশাপাশি এই অফস্পিনারের ধারণা, সীমিত ওভারের ক্রিকেটে রিস্ট স্পিনাররা (কব্জির সাহায্যে যাঁরা বল ঘোরান) এখন ফিঙ্গার স্পিনারদের চেয়ে অনেক এগিয়ে আছেন।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে হরভজন বলেছেন, ‘‘অঙ্কটা খুব সহজ। রিস্ট স্পিনারদের হাতে তিন ধরনের বল থাকে। লেগব্রেক, গুগলি এবং ফ্লিপার। এর সঙ্গে যদি টপস্পিনটাও করতে পারে, তা হলে দাঁড়াল চারটে। এ বার এক জন অফস্পিনারকে দেখুন। তার হাতে যদি ভাল দুসরা না থাকে, তা হলে রইল শুধু অফস্পিন। সে ক্ষেত্রে বৈচিত্র থাকে না বোলিংয়ে। ব্যাটসম্যানরাও সহজে শট খেলতে পারে। নেথান লায়নের মতো অফস্পিনারও ওয়ান ডে ক্রিকেটে সমস্যায় পড়ে যাচ্ছে।’’

যে কারণে হরভজন মনে করেন, রবীন্দ্র জাডেজার পক্ষে শুধু মাত্র স্পিনার কোটায় বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়া কঠিন। তবে অলরাউন্ডার হিসেবে তাঁর নাম এখনও ভাবা যায়। হরভজন বলেছেন, ‘‘২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সময় দেখা গিয়েছে ইংল্যান্ডের আবহাওয়া খুব গরম আর আর্দ্র ছিল। বিশ্বকাপের সময় সে রকম আবহাওয়া থাকলে, একটা প্যাকেজ হিসেবে জাডেজাকে ব্যবহার করা যেতে পারে। বিপক্ষে পাঁচ-ছয় জন ডান হাতি ব্যাটসম্যান থাকলে, জাডেজাকে খেলানো যেতে পারে। ওকে ছয় নম্বরে পাঠিয়ে হার্দিককে সাত নম্বরে নামানো যায়। তা ছাড়া ভুললে চলবে না, জাডেজা কিন্তু এখনও ভারতীয় দলের সেরা ফিল্ডার।’’

হরভজন এও মনে করেন, রিস্টস্পিনারদের বিরুদ্ধে ব্যাট করার দক্ষতা বিশ্বজুড়ে এখন অনেক কমে গিয়েছে ব্যাটসম্যানদের মধ্যে। কেন, তার কারণটাও ব্যাখ্যা করেছেন টেস্টে ৪১৭ উইকেট পাওয়া অফস্পিনার। বলেছেন, ‘‘রিস্ট স্পিনারের হাত দেখে এখন আর বিদেশি ব্যাটসম্যানরা সে ভাবে বুঝতে পারে না বল কোন দিকে স্পিন করবে। এরা এখন বল পিচে পড়ার পরে বোঝার চেষ্টা করে কোন দিকে ঘুরবে। যেটা খুবই বিপজ্জনক।’’


তবে ভারতের দুই রিস্ট স্পিনার—চায়নাম্যান বোলার কুলদীপ যাদব এবং লেগস্পিনার যুজবেন্দ্র চহালের প্রশংসা করে হরভজন বলেছেন, ‘‘ওদের শেষ ৪০টা ম্যাচের পিচ ম্যাপ দেখুন। লেংথ একেবারে নিখুঁত। তবে ঘটনা হল, ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মতো বিদেশি ব্যাটসম্যানরা কিন্তু স্পিনারদের কব্জির মোচড় দেখে স্পিন বুঝতে পারে না। ফলে ব্যাটসম্যানদের সমস্যা বেড়ে যায়।’’ এর পরেই হরভজন যোগ করেন, ‘‘একটা উদাহরণ দিই। কুলদীপ, চহালরা যদি রোহিত শর্মা, শিখর ধওয়নদের বল করত, তা হলে শক্ত চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হত।’’

কিন্তু রোহিতের তো লেগস্পিনের বিরুদ্ধে দুর্বলতা দেখা গিয়েছে? জবাবে হরভজন বলেছেন, ‘‘সেটা আইপিএলের কয়েকটা ম্যাচে প্রথম দিকের ওভারে। কিন্তু ৫০ ওভারের ম্যাচে রোহিত উইকেটে থাকলে রিস্টস্পিনারদের মাঠের যেখানে খুশি পাঠাতে পারবে। এতটাই দক্ষ ও।’’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply