sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » অগ্নিকাণ্ডে ধসে গেল নটরডেম ক্যাথেড্রালের ছাদ




অগ্নিকাণ্ডে ধসে গেল নটরডেম ক্যাথেড্রালের ছাদ প্যারিসে সাড়ে আটশো বছর পুরনো ঐতিহ্যবাহী নটরডেম ক্যাথেড্রালে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে গির্জাটির প্রধান চূড়া ও ছাদ ধসে পড়েছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্যাথেড্রালটি পুনর্নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। আর এ ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছেন বিশ্ব নেতারা। দুটি বিশ্বযুদ্ধের ন্যূনতম আঁচও পড়েনি। কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে কিছু হয়নি। অথচ কয়েক ঘণ্টার আগুনে অনেকটাই ধ্বংস হয়ে গেছে প্যারিসের অন্যতম নিদর্শন নটর ডেম ক্যাথেড্রাল। ৮৫০ বছরের পুরোনো ওই গির্জাটিকে ফ্রান্সের জাতীয় প্রতীকের একটি হিসেবেই ধরা হয়। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রথম ওই ভবনে আগুন দেখা যায়। এরপরই আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে ছাদে। গির্জার ছাদে আগুন জ্বলতে থাকে। ওই সময় প্রকাণ্ড জোরে শব্দও শোনা যায়। সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও সিএনএন এ তথ্য জানায়। সিএনএন জানিয়েছে, আগুন নেভানোর কাজ করার সময় ফায়ার সার্ভিসের একজন আহত হয়েছেন। দ্বাদশ ও ত্রয়োদশ শতক ধরে গির্জাটি নির্মাণ করা হয়। দুই শতক ধরে নির্মিত ওই গির্জা কয়েক ঘণ্টার আগুনে অনেকটাই ধ্বংস হয়ে গেছে। তবে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা জানান, গির্জাটির মূল কাঠামো এবং দুটি বেল টাওয়ার রক্ষা করা গেছে। গির্জার উঁচু মিনার ধ্বংস হওয়ার আগে তা পুরোনো ওক গাছের কাঠামোগুলো পুড়িয়ে দেয়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা জ্যঁ-ক্লদে গ্যালেট বলেছেন, ‘প্রধান কাঠামোটি পুরোপুরি ধ্বংসের কবল থেকে রক্ষা করা গেছে এবং সংরক্ষিত আছে।’ গির্জাটির মধ্যে ছিল গুরুত্বপূর্ণ শিল্পকর্ম। এগুলো রক্ষা এবং টাওয়ার রক্ষার জন্য রাতভর সব ধরনের চেষ্টা করেন উদ্ধারকর্মীরা। ঘটনার পরই গির্জার চারপাশে হাজার হাজার মানুষ জড়ো হন। এ সময় অনেকে কাঁদছিলেন, কেউ প্রার্থনা করছিলেন। প্যারিসের অনেক গির্জায় বাজছিল ঘণ্টা। আগুন লাগার মূল কারণ এখনো জানা যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, সম্প্রতি শুরু করা সংস্কারকাজের সঙ্গে এর সংযোগ থাকতে পারে। কিছুদিন আগে গির্জার পাথরে ফাটল দেখা দিলে ওই সংস্কারকাজ শুরু করা হয়। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ এ ঘটনাকে ‘ভয়াবহ বিয়োগান্তক’ বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘দেশের সবার মতো আমিও ব্যথিত।’ তিনি বলেন, ‘আমরা আবার তৈরি করব নটর ডেম।’ ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এটি ছিল ফ্রান্সের সব মানুষের। যারা কখনই সেখানে যাননি, তাদের জন্যও।’ প্রতিবছর এক কোটি ৩০ লাখ দর্শনার্থী এটি দেখতে যান, যা ফ্রান্সের আরেক বৈশিষ্ট্যপূর্ণ স্থাপত্য আইফেল টাওয়ার দর্শনার্থীর চেয়ে বেশি।ভয়াবহ আগুনে ধ্বসে পড়ে প্যারিসের নটরডেম ক্যাথেড্রালের প্রধান চূড়াটি। স্থানীয় সময় সোমবার (১৫ এপ্রিল) বিকেলে হঠাৎ আগুন লাগে প্যারিসের অন্যতম প্রাচীন এ স্থাপনাটিতে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ক্যাথেড্রালের ওপরের অংশ থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। তারপর তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। প্রত্যক্ষদর্শীদের একজন বলেন, ক্যাথেড্রালটিতে কোনো অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ছিল না। বিশ্বাস করতে পারছি না। এভাবে চোখের সামনে সব শেষ হয়ে গেল। আমাদের হাজার বছরের ঐতিহ্য শেষ। কর্তৃপক্ষ জানায়, আগুনের খবর পেয়ে দ্রুতই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমকল কর্মীরা। ভবনটিতে সংস্কার কাজ চলছিল। সেখান থেকেই কোনো কারণে আগুন লাগতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। গত সপ্তাহেই ক্যাথেড্রাল থেকে বেশিরভাগ ভাস্কর্য সরিয়ে নেয়া হয়। এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঐ এলাকা থেকে সবাইকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়ায় উদ্ধারকর্মীদের ধন্যবাদ জানান ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, এভাবে আমাদের একটা প্রাচীন নিদর্শন পুড়ে যাওয়া সত্যিই বেদনাদায়ক। ফ্রান্সের প্রতিটি নাগরিকের মতো আমিও ব্যথিত। সবাইকে নিয়ে আবারও এটা আমরা পুনর্নির্মাণ করবো। ক্যাথেড্রালে আগুনের ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর ফ্রান্সকে সব ধরনের সহায়তার কথা জানিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল ও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। দ্বাদশ শতাব্দীতে তৈরি নটরডেম ক্যাথেড্রাল প্যারিসের অন্যতম দর্শনীয় স্থাপনা হিসেবে পরিচিত। প্রতি বছর লাখ লাখ পর্যটক ক্যাথেড্রালটি পরিদর্শন করেন। গত বছর নান্দনিক এই প্রাচীন স্থাপত্যটির ভেতরে বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দেয়ায় এর সংস্কার কাজ শুরু করা হয়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply