sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ব্যাটিংয়ে শান মাসুদের দৃঢ়তা, চাপে ইংলিশরা





ব্যাটিংয়ে শান মাসুদের দৃঢ়তা, চাপে ইংলিশরা 

ম্যানচেস্টার টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে ২৩৪ রানে পিছিয়ে আছে ইংলিশরা। পাকিস্তানি বোলারদের তোপে শুরুটা ভালো হয়নি স্বাগতিকদের। ৪ উইকেট হারিয়ে ৯২ রান তুলেছে তারা। এর আগে, নিজেদের প্রথম ইনিংসে শান মাসুদের সেঞ্চুরিতে ৩২৬ রানের পুঁজি পায় পাকিস্তান। ৩ উইকেট করে নিয়েছেন আর্চার এবং ব্রড।


ওল্ড ট্রাফোর্ডের প্রথম দিনটা ছিলো শুধুই পাকিস্তানের। আবিদ এবং আজহার আলীর উইকেট হারালেও, শক্ত অবস্থানে ছিলো মিসবাহ শিষ্যরা। বাবর আজম আর শান মাসুদের ব্যাটে স্বপ্ন বুনেছিলো তারা।


কিন্তু কে জানতো, মেঘমুক্ত সকালটা এমন দুঃস্বপ্ন বয়ে আনবে সফরকারীদের জন্য। দিনের প্রথম ওভারেই উইকেট হারায় পাকিস্তান। বিদায় নেন প্রথম দিনের হিরো বাবর আজম। বিরাট কোহলির সঙ্গে অতি তুলনাটাই হয়তো কাল হলো এ তরুণের জন্য।


সঙ্গী হারালেও অবিচল ছিলেন শান মাসুদ। কিন্তু উইকেটের অপর পাশে আসাদ শফিক ছিলেন তাড়াহুড়ায়। ব্রডের বলে ক্যাচ দেন স্টোকসকে। টিকতে পারেননি মোহাম্মদ রিজওয়ানও। উইকেটের পেছনে বাটলারের হাতে তিনি বন্দী হন ওকসের বলে।


মধ্যাহ্ন বিরতির আগেই ৫ উইকেট নেই পাকিস্তানের। ২০০ রানের নীচে অল আউট হওয়ার শঙ্কা তখন পাক শিবিরে। কিন্তু ত্রাতা হয়ে দেখা দেন শাদাব খান, সঙ্গী আগের দিনের অপরাজিত শান মাসুদ।


দু'জনের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে প্রাণ পায় ম্যানচেস্টার টেস্টের দ্বিতীয় দিন। শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশের পর এবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টানা তৃতীয় টেস্টে সেঞ্চুরি তুলে নেন শান। আর দুজনে মিলে গড়েন ১০৫ রানের জুটি।


পেসাররা না পারায়, স্পিনার ডম বেসকে আক্রমণে আনেন জো রুট। সফলতাও পান তিনি। অধিনায়কের ক্যাচ বানান শাদাবকে। পরের কাজটা করেন আর্চার। টানা দুই বলে ইয়াসির এবং আব্বাসকে ফেরান এ গতি তারকা।


অন্য পাশে চীনের প্রাচীর হয়ে ছিলেন শান। তবে, ব্রড ছিলেন অপ্রতিরোধ্য। পাকিস্তানের লেজটা ছেঁটে দেন অনায়াসেই। ৩২৬ এ শেষ হয় তাদের প্রতিরোধ।


জবাবে, বাউন্ডারি মেরে নিজেদের ইনিংসের সূচনা করলেও, শাহীন শাহ আফ্রিদি আর আব্বাসের তোপে উড়ে যায় ইংল্যান্ডের টপ অর্ডার। এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে যান রোরি বার্ন্স এবং সিবলে।


একই পথে হাঁটতে হতে পারতো রুটকেও। কিন্তু, রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান এ যাত্রায়। অধিনায়ক বাঁচলেও, স্ট্যাম্প বাঁচাতে পারেননি ইংলিশ মিডিয়ার মিস্টার ইনক্রেডিবল। আব্বাসের বলে শূন্য রানে বোল্ড বেন স্টোকস। বাকিটা পথ এখন কঠিন হয়ে গেলো স্বাগতিকদের জন্য। 







«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply