sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » মরিনহোর চোখে মিউনিখ নয়, ফেবারিট পিএসজি




মরিনহোর চোখে মিউনিখ নয়, ফেবারিট পিএসজি

বায়ার্ন মিউনিখ শক্তিশালী দল। তাদের স্কোয়াডে লেওয়ানডস্কি, মুলার ও কিমিচের মতো দারুণ সব ফুটবলার আছে। তারপরও ফাইনালের ফেবারিট হিসেবে পিএসজিকেই এগিয়ে রাখছেন অভিজ্ঞ কোচ হোসে মরিনিয়ো। নেইমার-এমবাপ্পের মতো তারকারা এমন মঞ্চে পারফর্ম করবে বলেই বিশ্বাস তার। ইউরোপীয় গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের মতামত জানিয়েছেন 'স্পেশাল ওয়ান' খ্যাত এই কোচ। তার অধীনে ২০০৯-১০ সালে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছিলো ইন্টার মিলান। নামকরা সব ক্লাবের হয়ে শিরোপা জয়ে তিনি হয়ে উঠেছেন স্পেশাল ওয়ান। বর্তমান ঠিকানা ইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যাম। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গত আসরের রানার্সআপ দলটা এবার উঠতে পারেনি ফাইনালে। তবে, আরও একটা ফাইনালের আগে তাকে স্মরণ করেছে গণমাধ্যম। লড়াই হতে পারে কেমন, কার হাতে উঠতে পারে ট্রফি? টটেনহ্যাম কোচ হোসে মরিনিয়ো বলেন, 'গত কয়েক বছর তারা দলের পেছনে অনেক বিনিয়োগ করেছে। ফাইনালের মতো মঞ্চে বড় খেলোয়াড়রা জ্বলে ওঠে। দলটাকে দেখলে মনে হয়, ওরা ভিনগ্রহের। আমি বলবো, বায়ার্ন খুব ভালো দল হলেও পিএসজি তাদের আশাভঙ্গ করে দিতে পারে। তাদের তাই প্রস্তুত থাকতে হবে।' সরাসরি না বললেও মরিনিয়োর কথায় স্পষ্ট ইঙ্গিত। পিএসজিই তার ফেবারিট। টাচেলের ডাগআউটে তীক্ষ্ণ নজর পর্তুগিজ কোচের। কিন্তু, বায়ার্নও যে অপ্রতিরোধ্য। বিশেষ করে বার্সেলোনাকে যেভাবে লজ্জায় ডুবিয়েছে, তাদের সমীহ করতে বাধ্য সব প্রতিপক্ষই। হোসে মরিনিয়ো আরো বলেন, 'কিমিচ আমার চোখে দুর্দান্ত। কোচের সব চাওয়া পূরণ করতে পারে সে। সেন্টার কিংবা রাইট বা লেফট ব্যাকে সবখানে সমান পারদর্শী। ম্যাচের পরিস্থিতি বুঝে খেলতে পারে সে। মুলারের কথা বলবো। বায়ার্নে কঠিন সময় পার করছিলো সে। কিন্তু, যখন থেকে হ্যান্সি ফ্লিক কোচের দায়িত্ব নিয়েছে স্বাধীনভাবে খেলতে পারছে মুলার। গোল পাচ্ছে, অ্যাসিস্টও করছে। তবে, অন্যপাশে এমবাপ্পেরাও আছে। এই বয়সেও এমবাপ্পের দারুণ সব অর্জন রয়েছে। সে চাইবে তাতে পূর্ণতা দিতে।' ফাইনালের মঞ্চে আলো ছড়াবেন কোন কোন ফুটবলার? তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে আরও কিছুটা সময়। আপাতত নানা জনের নানা মতে গরম ময়দান।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply