sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ম্যাজিক ফিগার ছোঁয়ার পথে বাইডেন




মিশিগান, উইসকনসিন জিতে

ভোটগণনা শুরু হওয়ার পর ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় কেটে গিয়েছে। কিন্তু দ্বিতীয় দফায় ডোনাল্ড ট্রাম্পই আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন, নাকি আগামী চার বছরের জন্য হোয়াইট হাউসের দখল নিতে চলেছেন জো বাইডেন, তা স্পষ্ট হল না এখনও পর্যন্ত। তবে জনগণের রায় ডেমোক্র্যাট পার্টির পক্ষেই যাবে বলে আশাবাদী জো বাইডেন। উইলমিংটনে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী কমলা হ্যারিসকে পাশে নিয়ে তিনি বলেন, ‘‘গতকাল আরও একবার প্রমাণ হয়ে গেল যে , গণতন্ত্রই এ দেশের হৃদ্স্পন্দন, গত দু’দশক ধরে ঠিক যেমনটা রয়েছে। অতিমারি পরিস্থিতি সত্ত্বেও আমেরিকার ইতিহাসে এ বছরই সবচেয়ে মানুষ ভোট দিয়েছেন। ’’ বাইডেন আরও বলেন, ‘‘রাতভর গণনার পর এটা স্পষ্ট যে, ২৭০-এর ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছতে যে পরিমাণ ভোটের দরকার, তার যথেষ্টই জিতে চলেছি আমরা। আমরা জিতে গিয়েছি তা ঘোষণা করতে আসিনি আমি। তবে এখটা কথা বলতে চাই, গণনা যখন শেষ হবে, আমরাই জয়ী হব।’’ সে দেশের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের হিসেব অনুযায়ী, এই মুহূর্তে বাইডেন এগিয়ে রয়েছেন ২৫৩টি ইলেক্টরাল ভোটে। ট্রাম্পের পক্ষে রয়েছে ২১৪। ভোটগণনা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন তুলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। নতুন করে ভোটগণনা করার দাবি নিয়ে আদালতে পর্যন্ত ছুটে গিয়েছে তার নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা সংস্থা। তবে তার মধ্যেই ট্রাম্পকে বড় ধাক্কা দিয়েছেন বাইডেন। ২০১৬-য় ট্রাম্পের জেতা উইসকনসিন এবং মিশিগানে জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন তিনি। মিশিগানে নতুন করে ভোটগণনা করতে হবে বলে ইতিমধ্যেই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে ট্রাম্পের নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা ওই সংস্থা। আদালতে তারা জানায়, মিশিগানে ব্যালট সম্পর্কে সঠিক তথ্য দেওয়া হচ্ছে না। উইসকনসিন নিয়েও তারা আইনি পথে হাঁটার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফলের প্রাথমিক প্রবণতায় কার্যত সমানে সমানে টক্কর চলেছে ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং জো বাইডেনের মধ্যে। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী বাইডেন এখনও পর্যন্ত জিতেছেন উইসকনসিন, মিশিগান, নিউ মেক্সিকো, নিউ হ্যাম্পশায়ার, নিউইয়র্ক, ম্যাসাচুসেটস, নিউ জার্সি, মেরিল্যান্ড, ভারমন্ট, কানেক্টিকাট, ডেলাওয়ার ও কলোরাডোতে। হাওয়াই, ওয়াশিংটন, ক্যালিফোর্নিয়া এবং ইলিনয়ের মতো রাজ্যেও ডেমোক্র্যাটদের জয় হয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএনআই। প্রতিপক্ষ রিপাবলিকানরা জিতেছেন সাউথ ক্যারোলিনা, আলাবামা, নর্থ কোটা, আরকানসাস, টেনিসি, ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া ওকলাহামা, কেন্টাকি ও ইন্ডিয়ানাতে।এমনটাই জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স। আইওয়ার ৩টি ইলেক্টরাল ভোটও গিয়েছে ট্রাম্পের পক্ষে। যদিও এ দিন ফল ঘোষণা শুরুর দিকে ট্রাম্প টুইটারে লিখেছেন, ‘সারা দেশেই সত্যিই খুব ভাল ভাবে এগোচ্ছি। সবাইকে ধন্যবাদ’। অ্যারিজোনা, জর্জিয়া, নেভাডা, নর্থ ক্যারোলাইনা এবং পেনসিলভ্যানিয়া থেকে চূড়ান্ত ফল আসা এখনও বাকি। তবে এখনও পর্যন্ত যত দূর ভোট গণনা হয়েছে তাতে নতুন রেকর্ড তৈরি করে ফেলেছেন ডেমোক্র্যাটদের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন। আমেরিকার ইতিহাসে সর্বোচ্চ ‘পপুলার ভোট’তাঁর ঝুলিতে। এ ক্ষেত্রে ২০০৮ সালে বারাক ওবামার প্রাপ্ত ভোটকেও ছাপিয়ে গিয়েছেন। তবে অনেক জায়গাতেই নির্ধারিত সময়ের পরেও ভোট নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ট্রাম্প। তাঁর অভিযোগ, ওই ভোটাররা ডেমোক্র্যাটদের সমর্থক। একই সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার হুমকিও দিয়েছেন ট্রাম্প। যদিও পাল্টা হিসেবে বাইডেন শিবিরও জানিয়ে দিয়েছে, তাঁরাও আদালতে লড়াইয়ে প্রস্তুত। আমেরিকায় মোট ৫৩৮টি ইলেক্টরাল কলেজের ভোট। জয়ের জন্য প্রয়োজন ২৭০টি ভোট






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply