sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » থমথমে আমেরিকা, ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুতে চারদিকে রব




একদিন আগেও যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে ছিল মানুষের শোরগোল আর আনাগোনা। আর এখন শুধুই নীরবতা। বুধবার ক্যাপিটল হিলে ট্রাম্পের সমর্থকদের অরাজকতায় প্রাণহানির ঘটনায় চলছে আগামী কারফিউ। অনিশ্চয়তার মেঘে ঢাকা যুক্তরাষ্ট্রের আকাশ। মার্কিন কংগ্রেসের আইনসভা বা ক্যাপিটল হিলে নারকীয় তাণ্ডবের ঘটনায় রাজনৈতিক অঙ্গনে অস্থিরতা নেমে এসেছে। ওয়াশিংটন ডিসির রাজপথ এখন শান্ত। পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতিতে চলছে কড়া তল্লাশি। প্রয়োজন ছাড়া বের হচ্ছেন না মার্কিনিরা। আশপাশের ছয়টি রাজ্য থেকে ন্যাশনাল গার্ড তলব করা হয়েছে। প্রতি সাত ফুট পরপর ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যরা ক্যাপিটল হিলের স্থাপনা ঘিরে রেখেছেন। এমন বাস্তবতায় সময়ের আগেই সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগ করে ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুতে চারদিক থেকে প্রতিনিয়ত জোরালো হচ্ছে। মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) মার্কিন ক্যাপিটলে এক সংবাদ সম্মেলনে অভিশংসনের আহ্বান জানিয়েছেন। ট্রম্পকে ক্ষমতাচ্যুতে সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী চালু করে সংবিধানের এই প্রক্রিয়ার জন্য ভাইস প্রেসিডেন্টের সঙ্গে প্রশাসনের আরও কমপক্ষে আটজনকে এগিয়ে আসতে হবে। আরো পড়ুন: জঘন্য এ হামলা আমেরিকার গণতন্ত্রে আঘাত: ট্রাম্প এদিন পেলাসি ক্যাপিটল হিলে ট্রাম্পের সশস্ত্র সমর্থকদের হামলার ঘটনাকে আমেরিকার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ হিসেবে দাঁড় করেছেন। হামলাকে শুধু আইনসভায় নয়, জাতির ওপর নারকীয় আঘাত বলে মন্তব্য করেন। রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান অ্যাডাম কিনজিনগার সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী অনুযায়ী ট্রাম্পকে ক্ষমতাহীন ঘোষণা করতে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। রিপাবলিকান এই আইনপ্রণেতা বলেছেন, ট্রাম্পই এসব ধ্বংসাত্মক কাজের জন্য দায়ী। ট্রাম্পকে দায়িত্ব পালনের জন্য অযোগ্য উল্লেখ করে তাকে সব নির্বাহী দায়িত্ব থেকে স্বেচ্ছায় বা অনিচ্ছায় সরে দাঁড়াতে হবে। একই দিন মিনেসোটা অঙ্গরাজ্য থেকে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম নারী কংগ্রেস সদস্য ইলহান ওমর-ও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিশংসনের প্রস্তাব তুলেছেন। তিনি বলেন, 'আমাদের যত দ্রুত সম্ভব তাকে ক্ষমতা থেকে সরাতে হবে। এটা পরিষ্কার যে তিনি আমাদের দেশের গণতন্ত্রের জন্য হুমকি।'






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply