sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » পেশাদার গ্রিলকাটা চোর চক্রের সদস্য চুরির টাকায় নববধূর নামে এফডিআর




নেত্রকোনার পূর্বধলায় কালা সোহেল খাঁ, রহিম ও সোহেল তিনজনের বন্ধুত্ব ছোট বেলা থেকেই। তিনজনই একসঙ্গে ঢাকায় থাকেন। তারা ঢাকা থেকে গ্রামে গেলে মানুষকে সহযোগিতা করেন। এলাকার লোকজন জানে তারা ঢাকায় ভাল চাকরি করে। কিন্তু বুধবার রাতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের পরই এলাকাবাসী জানতে পারে তারা পেশাদার গ্রিলকাটা চোর চক্রের সদস্য। টাকা চুরি করার পর পরেই তিন বন্ধুর মধ্যে বিয়ে করেন একবন্ধু রহিম। নববধূর নামে করেন এফডিআর। ঢাকায় অভিজাত এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে তারা গ্রিলকেটে চুরি করলেও পুলিশের হাতে তাদের ধরা পড়তে হয়নি। রাজধানীর বনানী এলাকার গত ১৩ ফেব্রুয়ারি লাফাজ ইন্টারন্যাশনাল নামে একটি বিদেশি প্রতিষ্ঠানের ৬৫ লাখ টাকা চুরির ঘটনায় তদন্তে নামে গোয়েন্দা পুলিশ। তাদেরকে গ্রেপ্তারের সময়ে ৩৯ লাখ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। তিনটি মোটরসাইকেল এবং গ্রিল কাটা ও তালা ভাঙার কাজে ব্যবহৃত একটি সেলাইরেঞ্জ। গ্রেপ্তারকৃত রহিমের স্ত্রীকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান। গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, চুরির ৬৫ লাখ টাকা তিনজনে ভাগ করে নেয়। পরে ক্রয় করে তিনটি মোটরসাইকেল। আর চুরির পরপরই রহিম বিয়ে করে। বিয়ের পর স্ত্রীর নামে একটি বেসরকারি ব্যাংকে স্ত্রী রাশিদার নামে ১০ লাখ টাকার এফডিআর (ফিক্সড ডিপোজিট) করে। মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি এডিসি) গোলাম সাকলায়েন বলেন, ডিজিটাল লকার ভেঙে ৬৫ লাখ টাকা চুরির ঘটনায় ওই প্রতিষ্ঠানের সহকারী ম্যানেজার বনানী থানায় একটি মামলা করেন। থানা পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দা গুলশান বিভাগও ঘটনার ছায়া তদন্ত শুরু করে। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার ডিবি এডিসি মাহবুবুল হক সজীবের নেতৃত্বে একটি টিম নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা থানার হুগলা গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে গ্রিল কেটে চুরির অন্যতম সদস্য সোহেল খাঁ ওরফে কালা সোহেলকে গ্রেপ্তার করে। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর বনানী এলাকার সাততলা বস্তিতে অভিযান চালিয়ে রহিমকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ৭ লাখ টাকা এবং চুরির টাকায় কেনা একটি মোটরসাইকেল এবং রহিমের স্ত্রী রাশিদার কাছ থেকে চোরাইকৃত টাকার এফডিআর উদ্ধার করা হয়। এরপর রহিমের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কড়াইল বস্তির জামাই বাজার আনসার ক্যাম্প এলাকা থেকে সোহেলকে চুরির টাকায় কেনা একটি মোটরসাইকেলসহ গ্রেপ্তার করা হয়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply