sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » মেহেরপুরে কারাবন্দী পরিবারের সদস্যদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ




মেহেরপুরে কারাবন্দী পরিবারের সদস্যদের সাথে মানবিক আচরণের অংশ হিসেবে অপরাধী সংশোধন ও পুনর্বাসন সমিতির উদ্যোগে প্রাথমিক ভাবে কারাবন্দী ১০০ পরিবারের সদস্যদের মাঝে সহায়তা প্যাকেজ (খাদ্য সামগ্রী) বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার বিকালে মেহেরপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক ও সমিতির সভাপতি ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে সহায়তা প্যাকেজ বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর পল্লব ভট্টাচার্য, জেল সুপার মোখলেসুর রহমান, মেহেরপুর জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি তোজাম্মেল আযম, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব চান্দসহ জেলা প্রশাসন ও জেলা কারাগারের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সহায়তা প্যাকেজের প্রতিটি প্যাকেটে ৩০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি ছোলা, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি খেজুর, ২ কেজি সয়াবিন তেল এবং ১ কেজি করে পেঁয়াজ থাকবে। কারাবন্দীদের পরিবারেও সদস্য রয়েছে। তারা কারও ভাই, বোন, বাবা-মা আত্মীয়-স্বজন অনেক পরিবারের বন্দী নিজেই পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম সদস্য। কারাবন্দি থাকা অবস্থায় অনেকের বিচার প্রক্রিয়া চলতে থাকে, আবার অনেকের সাজা ভোগ করতে থাকেন। এ সময় স্বাভাবিকভাবে তাদের পরিবারের সদস্যরা মানসিক ও আর্থিক সমস্যার সম্মুখীন হন। বিশেষ করে কারাবন্দীর অসহায় স্ত্রী নাবালক শিশু কন্যা এবং বৃদ্ধ বাবা-মায়ের দুর্দশায় পতিত হন চরম ভাবে। দুর্দশা কারাবন্দীদের পরিবারের সদস্যদের পাশে মানবিক ও সামান্য আর্থিক সহায়তা নিয়ে দাঁড়ানোর উদ্দেশ্য জেলা প্রশাসন মেহেরপুরের উদ্যোগ। কারাগার মূলত একটি সংশোধনাগার উত্তেজনাবশত কোন একটি অপরাধ সংগঠনের পর শাস্তিপ্রাপ্ত হয়ে কারাবন্দীদের মধ্য আত্মজিজ্ঞাসার মাধ্যমে সংশোধনমূলক বোধের সৃষ্টি হয় রাষ্ট্রকর্তৃক বন্দীদের শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার বিষয়টি দেখভাল করার সময় হাই বন্দীদের নিরাপদ আটক নিশ্চিত তাদের নিরাপত্তা শৃঙ্খলা বজায় রাখা যথাযথভাবে তাদের বাসস্থান খাদ্য, চিকিৎসা এবং আত্মীয়-স্বজন বন্ধু-বান্ধব ও আইনজীবীদের সাথে সাক্ষাত নিশ্চিতসহ প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে কারামুক্তির পর তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে দেওয়ায় রাষ্ট্র ও সরকারের অন্যতম লক্ষ্য। মেহেরপুরের জেলা প্রসাশক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খান বলেন, এটি একটি সল্প পরিসরে মানবিক উদ্যোগ, ভবিষ্যতে এই কার্যক্রমকে আরো কি ভাবে বেগবান করা যায় সে লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply