sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » দিনাজপুরে বিলুপ্তপ্রায় ১৬টি শকুন অবমুক্ত




দিনাজপুরে বিলুপ্তপ্রায় ১৬টি শকুন অবমুক্ত

পরিবেশের পরম বন্ধু প্রাণীটির রক্ষা এবং বংশ বৃদ্ধির লক্ষ্যে দিনাজপুরের বীরগঞ্জে বন বিভাগের পরিচর্যা কেন্দ্রে পরিচর্যার পর ছেড়ে দেয়া হলো বিলুপ্ত প্রায় ১৬টি শকুন। এই বিলুপ্ত প্রায় পাখিদের ছেড়ে দেয়ার খবর শুনে অনেকেই দেখতে ছুটে আসেন। মানুষের জন্য যা ক্ষতিকর, সেই আবর্জনা শকুন খায় এবং পরিবেশকে পরিচ্ছন্ন রাখে। শকুনই একমাত্র প্রাণী সংক্রমণ থেকে অবশিষ্ট জীবকূলকে রক্ষা করে। কিন্তু বড় বড় গাছ, খাদ্যের অভাব ছাড়াও বাংলাদেশে ডাইক্লোফেনাকের যথেষ্ট ব্যবহারের কারণে শকুন বিলুপ্তির মুখে। শীতের সময় অন্য এলাকা থেকে দিনাজপুরসহ এ অঞ্চলে অসুস্থ বা খাদ্যাভাবে ক্লান্ত অবস্থায় আসে শকুনগুলো। এদের উদ্ধার করে দেশের একমাত্র দিনাজপুরের বীরগঞ্জ বন বিভাগের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত 'শকুন উদ্ধার ও পরিচর্যা কেন্দ্রতে' আনা হয়। বন বিভাগের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান দর্শনার্থীরা। দর্শনার্থীরা বলেন, মুক্ত আকাশে অবমুক্ত করা হলো এটা দেখে আমাদের খুবই ভালো লেগেছে। এতদিন আমরা মোবাইলে আর টেলিভিশনে দেখছি। আজকে সরাসরি দেখাতে খুব ভালো লেগেছে। বিরল প্রজাতির এসব শকুনদের নিবিড় পরিচর্যায় সুস্থ করে প্রকৃতিতে আবার ছেড়ে দেয়া হয়। আইইউসিএন বাংলাদেশের প্রকল্প কর্মকতা সমীর কুমার ঘোষ বলেন, বেশিরভাগ শকুন অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছিল। পরিচর্যাকেন্দ্রে রেখে তাদের পরিচর্যা ও খাবার দিয়ে তাদেরকে সুস্থ করে অবমুক্ত করা হয়েছে। শকুনগুলো অনেক দূর থেকে আসায় ক্লান্ত হয়ে পড়ে। তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসা ও সেবা দেয়া হয় বলে জানালেন এই কর্মকর্তা। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ সিংড়া জাতীয় উদ্যানের বিট কর্মকর্তা হরিপদ দেবনাথ বলেন, এগুলো সাধারণত এসব এলাকায় চোখে পড়ে না। এগুলো শুধুমাত্র শীতের সময় আসে। দেশের একমাত্র শকুন পরিচর্যা কেন্দ্র দাবি করে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জানান, শীত হলেই শকুনরা হিমালয়ের পাদদেশ থেকে এই সব অঞ্চলে এসে অসুস্থ হয়ে পড়ে। দিনাজপুর বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বশিরুল আল মামুন বলেন, শকুনগুলো উত্তর অঞ্চলের জেলাগুলোতে অসুস্থ অবস্থায় পাওয়া যায়। খাদ্যের অভাবে তারা মাটিতে পড়ে যায়। ২০১৬ সাল থেকে এই পর্যন্ত এই কেন্দ্রে পরিচর্যা শেষে প্রায় ৮০টি শকুন অবমুক্ত করা হয়েছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply