Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » টিকার ট্রায়ালে রাজি না হওয়ায় অনেক দেশ ক্ষুব্ধ'--স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক




টিকার ট্রায়ালে রাজি না হওয়ায় অনেক দেশ ক্ষুব্ধ' বাংলাদেশের জনগণের ওপর করোনাভাইরাস টিকার ট্রায়াল করতে চেয়েছিল অনেক দেশ। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের জীবনের বিনিময়ে কোনো দেশকে এ ট্রায়াল করতে দিতে রাজি হননি। এ কারণে অনেক দেশ ক্ষুব্ধ। এখন তারা বাংলাদেশকে টিকা দিতে চায় না। সোমবার ‘বাংলাদেশ স্যাম্পল ভাইটাল স্ট্যাটিসটিকস-২০২০’ প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন

মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পরিসংখ্যান ভবনে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে। অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সভাপতিত্ব করেন পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, করোনা টিকার মান যাচাইয়ের অংশ হিসেবে বাংলাদেশের জনগণের শরীরে প্রয়োগের মাধ্যমে ট্রায়াল করার প্রস্তাব দিয়েছিল কয়েকটি দেশ। এ ধরনের প্রস্তাব সরাসরি নাকচ করে দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তখন প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, টিকার মান ভালো না খারাপ, তা ট্রায়ালের জন্য আমার দেশের মানুষকে গিনিপিগ হতে দেবেন না তিনি। এতে ওই সব দেশ ক্ষুব্ধ হয়েছে। এ কারণে করোনা টিকা দিতে চায় না তারা। তবে কোন দেশ কবে এ রকম প্রস্তাব দিয়েছিল, তার বিস্তারিত কোনো তথ্য জানাননি মহাপরিচালক। টিকার সংকট হবে না জানিয়ে ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, শেষপর্যন্ত টিকার কোনো সমস্যা হবে না। এ মাস তো শেষই হয়ে এল, আগামী মাসের শুরুতেই ১০ লাখ ডোজ টিকা আসবে দেশে। টিকা প্রয়োগে বিদেশগামীদের অগ্রাধিকার দেওয়ার কথাও জানান তিনি। করোনা নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, এখন পর্যন্ত করোনায় দেশে যত মানুষ মারা গেলেন, সে তুলনায় তিন গুণ মারা গেছেন যক্ষ্মা রোগে। তবে করোনা থেকে সুরক্ষায় সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার কথা বলেছেন তিনি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply