Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » উন্নয়নশীল দেশগুলোকে জ্ঞানের আদান-প্রদানে এগিয়ে আসতে হবে’




পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম। ছবি : সংগৃহীত পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম বলেছেন, উন্নয়নশীল দেশগুলোকে নিজেদের উন্নয়নের জন্য দক্ষিণ ও উত্তরের সব দেশগুলোর মধ্যে জ্ঞানের আদান-প্রদানের মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। ‘গভর্নমেন্ট অ্যাজ দ্য ভ্যানগার্ড ফর ইনক্লুসিভ, ব্রেকথ্রু ইনোভেশন : এক্সপিরিয়েন্স ফ্রম দ্য গ্রোবাল সাউথ’ শীর্ষক এক উচ্চ-পর্যায়ের সেমিনারে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা যুগোপযোগী অবকাঠামো তৈরি করতে পেরেছি, যা আমাদেরকে ভবিষ্যতে নেতৃত্ব দেওয়া সুযোগ করে দেবে। গ্লোবাল সাউথের অর্জনগুলো তুলে ধরার জন্য একটি বড় প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করছে সাউথ-সাউথ নেটওয়ার্ক ফর পাবলিক সার্ভিস ইনোভেশন (এসএসএনফরপিএসআই)। এ প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে গ্লোবাল সাউথ এর উন্নয়ন ধারণাগুলো গ্লোবাল নর্থে পৌঁছে দিতে পেরে আমরা (বাংলাদেশ) গর্বিত। তবে, উন্নয়নের দিক থেকে উত্তরের রাষ্ট্রগুলোর তুলনায় অনেক পিছিয়ে রয়েছে দক্ষিণের রাষ্ট্রগুলো। ফলে, গ্লোবাল সাউথের সাফল্যের মূলে কাজ করতে পারে নর্থ-সাউথ কোঅপারেশন। সে ক্ষেত্রে, সাউথের উন্নয়নে নর্থ-সাউথ কোঅপারেশন গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। তাই উন্নয়নশীল দেশগুলোকে নিজেদের উন্নয়নের জন্য সাউথ এবং নর্থের সব দেশগুলোর মধ্যে জ্ঞানের আদান-প্রদান মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।’ এটুআই ইনোভেশন ল্যাবের সহযোগিতায় রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) এবং দুবাইয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস যৌথভাবে আজ এ সেমিনারের আয়োজন করে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর-এর সভাপতিত্বে আয়োজিত এ সেমিনার পরিচালনা করেন এটুআই-এর প্রকল্প পরিচালক (যুগ্মসচিব) ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর। অনলাইনে যুক্ত হয়ে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন এটুআই’র পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী। সেমিনারে বক্তারা গ্লোবাল সাউথের দেশগুলোকে সঙ্গে নিয়ে একই প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে বলে জানান। এ প্ল্যাটফর্ম বেসরকারি খাত, একাডেমিয়া, সুশীল সমাজ, বহুপক্ষীয় উন্নয়ন সংস্থা এবং অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের উদ্ভাবিত বিভিন্ন প্রযুক্তি ও সমাধান এবং অভিজ্ঞতা বিনিময়ের ক্ষেত্র তৈরি করবে। স্থানীয় উদ্ভাবকদের সমন্বয়ে প্রযুক্তির ব্যবহার করে বর্তমান বিশ্বের বিভিন্ন সামাজিক ও পরিবেশগত সমস্যা সমাধান করার বিষয়ে নিজেদের মতামত তুলে ধরে ধরেন বক্তারা। সেমিনার আয়োজনের মূল লক্ষ্য ছিল ইনক্লুসিভ ইনোভেশন পলিসি ও স্ট্যাট্রেজি উন্নয়নের বিভিন্ন উপায় খুঁজে বের করা। যার মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বিভিন্ন দেশের চতুর্থ শিল্প বিপ্লব (ফোরআইআর) ও সোশ্যাল ইনোভেশন ক্ষেত্রের প্রসারে কাজে আসবে। সেমিনারের আলোচনায় ভারত, সংযুক্ত আরব আমিরাত, শ্রীলঙ্কা, মাদাগাস্কার, কম্বোডিয়া, লেসোথো ও রুয়ান্ডার প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছিলেন। এর মধ্যে রুয়ান্ডার প্রতিনিধি ইনোভেশন নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করার বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। তিনি তাঁর দেশের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনা করে রুয়ান্ডার একটি প্রতিনিধি দল নিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসবেন বলেও জানান। অনুষ্ঠানে উদ্‌বোধনী বক্তব্য দেন দুবাইয়ে বাংলাদেশের কনস্যুলার জেনারেল বিএম জামাল হোসেন। সেমিনারে এটুআই-এর আই-ল্যাব এর হেড-অব-টেকনোলজি ফারুক আহমেদ জুয়েল ‘দ্য ইনোভেশন ইকোসিস্টেম বাই বাংলাদেশ গভর্নমেন্ট’ শীর্ষক একটি প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন। এ ছাড়া সেমিনারে অন্যান্যদের মধ্যে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি), দুবাইয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস, এটুআই এবং বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply