Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » বিশ্বব্যাপী সাংবাদিক হত্যা ও নির্যাতনের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।




সাংবাদিক হত্যা: দায়মুক্তির প্রবণতা বেশি হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ গুতেরেসের

২০২০ সালেই পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য প্রাণ গেছে ৬২ সংবাদকর্মীর। সাংবাদিকতার জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হলো লাতিন আমেরিকার দেশগুলো। যার মধ্যে মেক্সিকো অন্যতম। সাংবাদিক হত্যার বিচার না হওয়া নিয়েও রয়েছে ক্ষোভ। তবে সাংবাদিকতার জন্য নিরাপদ ও সুন্দরতম স্থান বলা হয় যুক্তরাষ্ট্রকে। লাতিন আমেরিকার দেশগুলোতে সাংবাদিক হত্যা যেন মামুলি ব্যাপার। অহরহই ঘটছে এমন করুণ ঘটনা। এক্ষেত্রে মেক্সিকোর অবস্থা সবচেয়ে ভয়াবহ। এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ইরাকের অবস্থা অত্যন্ত নাজুক। আফগানিস্তানেও নেই সাংবাদিকতার পরিবেশ। আরও পড়ুন: সুইডেনে সাংবাদিক তাসনিম খলিলের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ ইউনেস্কো বলছে, ২০২০ সালেই সারাবিশ্বে ৬২ জন সাংবাদিক হত্যার শিকার হয়েছেন। ২০০৬ সাল থেকে ২০২০ সাল অব্দি এই সংখ্যাটা ১ হাজার ২০০ জন। আরও ভয়াবহ বিষয় হলো, সাংবাদিক হত্যার প্রতি ১০টি ঘটনার ৯টিরই হয়নি বিচার। অনেক দেশেই দুর্নীতি, মাদক, পাচার, মানবাধিকার লঙ্ঘন কিংবা পরিবেশসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোয় অনুসন্ধান করতে গিয়ে সাংবাদিকদের জীবন ঝুঁকিতে পড়ছে। জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস সাংবাদিক হত্যায় দায়মুক্তির প্রবণতা খুব বেশি হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) মঙ্গলবার 'সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে অপরাধের দায়মুক্তি অবসানের আন্তর্জাতিক দিবস' উপলক্ষে জাতিসংঘ মহাসচিব এক বিবৃতি দেন। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি তিনি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, সাংবাদিক ও গণমাধ্যম কর্মীদের ওপর হওয়া অপরাধ আইনের সর্বশক্তি দিয়ে তদন্ত ও বিচার করতে হবে। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে অপরাধের ব্যাপক প্রভাব সামগ্রিকভাবে সমাজের ওপর পড়ে। কারণ তারা তথ্যপ্রাপ্তির মাধ্যমে মানুষকে সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে সহযোগিতা করেন। এক্ষেত্রে অবশ্য ব্যতিক্রম যুক্তরাষ্ট্র। এখানে রয়েছে ফ্রিডম অব স্পিচের পূর্ণ সুযোগ। তবে মার্কিন মুলুকেও যে সাংবাদিক হত্যা হয় না তা নয়। তবে সেটি কালেভদ্রে। গড়ে তিন বছরে একজন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply