Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » অশান্ত সুদান, শঙ্কায় মিশর




সুদানে চলমান অভূত্থানবিরোধী বিক্ষোভে নিরাপত্তাবাহিনী ও বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন অনেকে। নিহতদের দুজনের মধ্যে একজন পুলিশ এবং আরেকজন বিক্ষোভকারী। বিক্ষোভকারীদের ওপর নির্যাতন বন্ধ ও চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনের আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। দেশটিতে অভূত্থানবিরোধী বিক্ষোভ শুরুর পর থেকে প্রতিদিনই চলছে নিরাপত্তাবাহিনী ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ছুড়ছে নিরাপত্তাবাহিনী। অন্যদিকে পাল্টা জবাবে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করছেন বিক্ষোভকারীরা। বৃহস্পতিবারও রাজধানী খার্তুমসহ ওমদুরমান ও বাহরিতে একই পরিস্থিতি বিরাজ করছিলো। বিভিন্ন শহরে দু'পক্ষের সংঘর্ষে এদিন প্রাণ হারান দুইজন। চিকিৎসকরা জানায়, নিহতদের মধ্যে এক বিক্ষোভকারী ছিলেন। এদিকে বৃহস্পতিবারের সংঘর্ষে এক নিরাপত্তাবাহিনীকে বিক্ষোভকারীরা ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। এছাড়া নিরাপত্তা বাহিনী আরো অনেক সদস্য আহত হয়েছেন বলেও তাদের দাবি। এদিন খার্তুমসহ অন্যান্য শহরে গুলিবিদ্ধ ও আহত অবস্থায় অনেক বিক্ষোভকারী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে জানা গেছে। তাদের তথ্যানুযায়ী, সুদানে গেল ২৫ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া সেনাবিরোধী বিক্ষোভে প্রাণ হারিয়েছেন অর্ধেকের বেশি বিক্ষোভকারী। আরও পড়ুনঃ ভারতে-দৈনিক-করোনা-আক্রান্ত-আড়াই-লাখ বিক্ষোভকারীদের ওপর লাগাতার নির্যাতন ও হত্যা বন্ধে দেশটির সামরিক বাহিনীকে আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। দেশটিতে চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে সেনা শাসকদের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের আলোচনায় বসার আহ্বানও জানিয়েছে সংস্থাটি। তবে, জাতিসংঘের এমন প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছে বিক্ষোভকারীরা। এদিকে, মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসিও সুদানে গণতন্ত্র নিশ্চিত করতে বিরোধী দলগুলোকে সেনা সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছে। সিসি বলেন, সুদানে এখন রাজনৈতিক ঐকমত্য প্রয়োজন। চলমান সংকট নিরসনে সব পক্ষকেই একটি সমাধানের পথ খুঁজে বের করার লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। এটা আমার মতামত। তবে তারমানে এই নয় যে, আমরা সুদানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করছি। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সুদানের সঙ্গে মিশরের সুসম্পর্ক তৈরি হয়েছে। তবে সুদানের বর্তমান পরিস্থিতি প্রতিবেশী এই দেশটিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে বলে আশঙ্কা মিশর সরকারের।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply