Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » কিয়েভের প্রধান সামরিক ঘাঁটিতে হামলা




ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে হামলা শুরু করেছে রুশ সেনাবাহিনী। কিয়েভের প্রধান সামরিক ঘাঁটিতে হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছে মস্কো। তবে, এ হামলা প্রতিহতের পাল্টা দাবি করেছে ইউক্রেন। এদিকে, আত্মসমপর্ণ না করে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। এমনকি কিয়েভ ছাড়তে যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া প্রস্তাবও প্রত্যাখ্যান করেছেন তিনি। গত শুক্রবার মধ্যরাতে কিয়েভে একের পর এক হামলা চালায় রুশ সেনাবাহিনী। প্রকম্পিত হয় পুরো রাজধানী শহর। এরপর কিয়েভের সামরিক ঘাঁটিতে হামলা চালানো হয়েছে বলে জানায় রাশিয়া। তবে, এ হামলা প্রতিহত করা হয়েছে বলে পাল্টা দাবি করেছে ইউক্রেনও। আরও পড়ুন: কিয়েভ ছেড়ে পালালেন জেলেনস্কি এদিকে চলমান রুশ আগ্রাসনের মুখে অস্ত্রবিরতি দিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে শান্তি আলোচনার প্রস্তাবে সম্মত হয়েছে ইউক্রেন। এক বিবৃতিতে এটা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র। এর আগে ইউক্রেনের শীর্ষ পর্যায়ে আলোচনার জন্য মিনস্কে প্রতিনিধি পাঠাতে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন রাজি আছেন বলে জানিয়েছিল ক্রেমলিন। ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের কারণে ন্যাটোভুক্ত দেশগুলোর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছে সামরিক জোটটি। সদস্য দেশগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিতে স্থানীয় সময় শুক্রবার প্রথমবারের মতো রেসপন্স ফোর্সকে সক্রিয় করা হয়েছে বলেও জানানো হয়। হোয়াইট হাউসের বরাত দিয়ে সিএনএন জানিয়েছে, রাশিয়ার আক্রমণাত্মক পদক্ষেপ মোকাবিলায় পূর্ব ইউরোপে ন্যাটোর সদস্য রাষ্ট্রগুলোতে মার্কিন সেনা মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যদিও মার্কিন সেনারা ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অংশ নেবে না বলেও স্পষ্ট জানিয়েছেন তিনি। আরও পড়ুন: রাশিয়ার জাহাজ জব্দ করল ফ্রান্স চলমান উত্তেজনার মধ্যেই রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের ওপর নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে পুতিনের সম্পদ জব্দের ঘোষণা দেয় ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এদিকে ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব আনা হয়েছে জাতিসংঘের নিরপত্তা পরিষদে। পাশাপাশি অবিলম্বে ইউক্রেন থেকে রুশ সেনা প্রত্যাহারের প্রস্তাব রাখা হয়। তবে সেই প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে রাশিয়া। অন্যদিকে মস্কোর কর্মকাণ্ডকে আগ্রাসন বলতে অস্বীকৃতি জানিয়ে ভোট দেওয়া থেকে বিরত থেকেছে চীন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply