Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » এইচআইভির সহ-আবিষ্কারক মোঁতাইনিয়ে আর নেই




হিউম্যান ইমিউনো ডেফিশিয়েন্সি ভাইরাসের (এইচআইভি) সহ-আবিষ্কারক ফরাসি ভাইরাসবিদ ল্যুক মোঁতাইনিয়ে মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর। এইচআইভির সহ-আবিষ্কারক মোঁতাইনিয়ে আর নেই এইডস আক্রান্ত হওয়ার ভাইরাস আলাদা করে শনাক্ত করার স্বীকৃতি হিসেবে ২০০৮ সালে তাকে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল। কাজের জন্য বিশ্বজুড়ে তিনি ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছিলেন। যদিও কোভিড-১৯ ও অটিজম নিয়ে অবৈজ্ঞানিক মন্তব্য করায় সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে তাকে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ফ্রান্সসোইর বলছে, মঙ্গলবার নুইসোসিনে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। এ সময়ে সন্তানরা তার পাশেই ছিলেন। ১৯৮০-এর দশকের প্রথম দিকে ভাইরাস নিয়ে প্রথম গবেষণা শুরু করেন ল্যুক মোঁতাইনিয়ে। তখন তিনি দাতব্য সংস্থা ফ্রান্সের প্যাসচার ইনস্টিটিউটে কাজ করতেন। ফ্রঁসোয়াজ বারে-সিনুসি‌সহ মোঁতাইনিয়ে ও তার দল রহস্যময় নতুন উপসর্গ নিয়ে আসা রোগীদের কাছ থেকে কোষের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করেন। পরে তারা একজন এইচআইভি রোগীকে আলাদাভাবে শনাক্ত করতে পেরেছেন। ১৯৮৩ সালে সায়েন্স সাময়িকীতে এ নিয়ে একটি গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশ করেছেন। সাময়িকীটির ওই সংস্করণে মার্কিন বিজ্ঞানী রবার্ট গ্যালো এই ধরনের তথ্যউপাত্ত দিয়ে আরেকটি নিবন্ধ প্রকাশ করেন। পরে সিদ্ধান্তে আসেন এইডসের কারণেই তারা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আরও পড়ুন: এইডস নিয়ে ১১ ভুল ধারণা কে প্রথম এইচআইভি আবিষ্কার করেন, তা নিয়ে বহু বছর ধরে উত্তপ্ত বিতর্ক হয়েছে। ১৯৯১ সালে গ্যালো স্বীকার করেন, তিনি যে ভাইরাসের খোঁজ পেয়েছেন, তা প্যাসচার ইনস্টিটিউট থেকে থেকেই এসেছে। ২০০২ সালে দুই ব্যক্তি প্রকাশ্যে একমত হয়েছেন যে, মোঁতাইনিয়ে প্রথম এইচআইভির আবিষ্কার করেছেন। কিন্তু এইডসে এইচআইভির ভূমিকা প্রথম দেখিয়েছেন রবার্ট গ্যালো। কিন্তু ২০০৮ সালে যখন মোঁতাইনিয়ে, ফ্রঁসোয়াজ বারে-সিনুসি‌ ও সার্ভিকাল ক্যানসার নিয়ে কাজের জন্য হ্যারাল্ড জুর হোসেনকে যখন নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়, তখন রবার্ট গ্যালোর নাম উল্লেখ করা হয়নি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply