Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ইউক্রেনে হামলা হলে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে: বরিস জনসন




ইউক্রেনে হামলা হলে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে: বরিস জনসন

যুদ্ধের দামামা বাজছে রুশ-ইউক্রেন সীমান্তে। পাল্টাপাল্টি ব্যাপক সামরিক মহড়া চালাচ্ছে মস্কো ও কিয়েভ। রুশ সামরিক হুমকি বেড়ে গেছে দাবি করে ইউক্রেনে থাকা সব মার্কিন নাগরিককে অবিলম্বে দেশ ত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে পোল্যান্ড ছুটে গেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। রাশিয়া হামলা চালালে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি। বেলারুশ সীমান্তে মিন্সক ও মস্কোর যৌথ সামরিক এ মহড়ায় বলে দেয় যুদ্ধের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত তারা। ইউক্রেনের সঙ্গে তুমুল দ্বন্দ্বের মধ্যেই বেলারুশকে নিয়ে দশদিনের সামরিক মহড়া শুরু করেছে রাশিয়া। সীমান্তে সাঁজোয়া যান, অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস ফোর হান্ড্রেড, যুদ্ধবিমান, রণসরঞ্জামসহ কয়েক হাজার সেনা মোতায়েন করেছে মস্কো। বেলারুশ সেনাদের নিয়ে রণকৌশল দেখান রুশ সেনারা। বেলারুশের এ সীমান্ত থেকে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের দূরত্ব মাত্র ৭৫ কিলোমিটার। পশ্চিমাদের আশঙ্কা, এখান থেকে যে কোনো মুহূর্তে ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে পুতিনের সেনারা। স্থলভাগের পাশাপাশি জলসীমাতেও মহড়া শুরু করেছে রাশিয়া। পূর্ব পরিকল্পিত সামরিক মহড়ার অংশ হিসেবে কৃষ্ণ সাগরে রুশ যুদ্ধজাহাজ অবস্থান নিয়েছে অঞ্চলটিতে। রুশ আগ্রাসনের আশঙ্কায় ডনবাসে নিয়মিত সামরিক মহড়া চালিয়ে যাচ্ছে ইউক্রেনের সেনারা। তাদের সরাসরি তত্ত্বাবধান করছেন মার্কিন সেনারা। রাশিয়ার মহড়ার পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে ইউক্রেন সীমান্তেও দশদিনের সামরিক মহড়া শুরু করেছে কিয়েভ। সামরিক সহায়তার অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের পাঠানো অস্ত্রের নতুন লট গ্রহণ করেছে জেলেন্সকি সরকার। রাশিয়ার বিরুদ্ধে কৃষ্ণ সাগরে সামরিক মহড়ার নামে ওই অঞ্চল দখলের অভিযোগ করেছে ইউক্রেন। ইউক্রেন সীমান্তে যখন যুদ্ধের দামামা বাজছে, তখন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে দেশটির সীমান্তবর্তী রাষ্ট্র পোল্যান্ডে ছুটে গেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ইউক্রেনকে সহায়তার অংশ হিসেবে ওয়ারশতে ব্রিটিশ সেনা মোতায়েন করেছে যুক্তরাজ্য। বৃহস্পতিবার সেখানে গিয়ে সেনাদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। দেখা করেন পোল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে। এ সময় রাশিয়াকে কড়া সতর্ক বার্তা দেন বরিস। বলেন, রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালালে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে। আরও পড়ুন: ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ার রক্তের ব্যাগ বরিস জনসন বলেন, পুতিন ও ক্রেমলিনের বোঝা উচিত, তারা যদি তাদের পশ্চিমাঞ্চলীয় সীমান্তে ন্যাটোর কম উপস্থিতি চায়, সেক্ষেত্রে সেটা সম্ভব নয়। রাশিয়া যদি ইউক্রেনে হামলা চালায়, তবে তারা বোকামি করবে। ইউক্রেনেরও কয়েক লাখ সেনা আছে। তারা অবশ্যই তাদের রক্ষায় যুদ্ধ করবে। সেক্ষেত্রে সেখানে রক্তের বন্যা বইবে। রাশিয়ার এটা উপলব্ধি করা উচিত। পোল্যান্ডের পাশাপাশি ইউরোপের নিরাপত্তায় রোমানিয়াতেও মার্কিন সেনা মোতায়েন অব্যাহত রয়েছে। এরই মধ্যে কন্সটান্টা বিমান ঘাঁটিতে অতিরিক্ত মার্কিন সেনারা অবস্থান নিয়েছে। দুপক্ষেই যখন যুদ্ধের প্রস্তুতি চূড়ান্ত, তখন ইউক্রেনে থাকা সব মার্কিন নাগরিককে দেশত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তার দাবি, রুশ সেনারা ইউক্রেনে হামলার চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। যে কোনো মুহূর্তে হামলা চালাতে পারে তারা। এদিকে, ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশ সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে ইউক্রেন সেনাদের দীর্ঘদিন ধরে চলা সঙ্কট সমাধানে জার্মানি ও ফ্রান্সের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়েছে কিয়েভ ও মস্কো। এ অবস্থায় ইউক্রেন ইস্যুতে রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের আরো অবনতির আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply