Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » নতুন সিইসি হাবিবুল আউয়াল




সাবেক সচিব কাজী হাবিবুল আউয়ালকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) করে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। শনিবার নতুন সিইসি এবং চারজন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারী করা হয়েছে। নতুন এই নির্বাচন কমিশনে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর ও আনিছুর রহমান, অবসরপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ রাশিদা সুলতানা ও অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহান হাবীব খান। নতুন সিইসি হিসেবে নিয়োগ পাওয়া হাবিবুল আউয়াল প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব হিসেবে অবসর নেন ২০১৭ সালে। বিসিএস ১৯৮১ ব্যাচের এই কর্মকর্তা ধর্ম, সংসদ সচিবালয়ে সচিব ছিলেন। সরকারি চাকরি থেকে অবসরের পর ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছিলেন তিনি। দেশের ত্রয়োদশ সিইসি হিসেবে নিয়োগ পাওয়া হাবিবুল আউয়াল নেতৃতত্বাধীন এই কমিশনের পরিচালনায় দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন হলেও কবে নাগাদ তারা শপথ নেবেন, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এর আগে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য একটি সার্চ কমিটি করতে গত বছরের ২০ ডিসেম্বর রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে রাষ্ট্রপতির সংলাপ শুরু হয়, যা চলে ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত। এসব সংলাপে আমন্ত্রিত ৩২টি দলের মধ্যে থেকে অংশ নেয় ২৫টি। এ বছরের ২৭ জানুয়ারি ইসি নিয়োগের আইন সংসদে পাস হয়। এরপর রাষ্ট্রপতি গত ৫ ফেব্রুয়ারি সার্চ কমিটি গঠন করে দেন। ৬ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে প্রথম বৈঠক করে এই সার্চ কমিটি। এরপর ৮ ফেব্রুয়ারি সার্চ কমিটি দ্বিতীয় বৈঠক করে নিবন্ধিত দল, সংগঠন ও ব্যক্তিগত পর্যায়ে নাম সংগ্রহ করে। পরে ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি বিশিষ্টজনদের সঙ্গে বৈঠক করে সার্চ কমিটি। যারা নাম জমা দেয়নি, তাদের জন্য সময় বাড়ানোর ঘোষণা আসে ১৩ ফেব্রুয়ারি। পরদিন ১৪ ফেব্রুয়ারি কে এম নূরুল হুদা নেতৃত্বাধীন ইসি বিদায় নেয় এবং ইসিতে নিয়োগের জন্য প্রস্তাবিত ৩২২ জনের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়। ১৫ ফেব্রুয়ারি সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠক করে সার্চ কমিটি। পরদিন কমিটির সভায় তিন শতাধিক নাম যাচাই-বাছাই এবং ১৯ ফেব্রুয়ারি পঞ্চম সভায় তালিকা ২০ জনে নামিয়ে আনা হয়। ২০ ফেব্রুয়ারি কমিটির ষষ্ঠ সভায় ১২/১৩ জনের নামের তালিকা করা হয় এবং ২২ ফেব্রুয়ারি সপ্তম সভায় ১০ জনের তালিকা চূড়ান্ত হয়। এরপর ২৪ ফেব্রুয়ারি চূড়ান্ত তালিকা রাষ্ট্রপতির কাছে জমা দেয় সার্চ কমিটি। যেখান থেকে এই নতুন কমিটি গঠন করে দেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply