Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের বর্ষ পূর্তিতে আরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করল যুক্তরাষ্ট্র




মিয়ানমারের মান্দালেতে রাস্তায় মিছিল করছে সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারীরা। ৭ ডিসেম্বর, ২০২১। যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগ সোমবার বলেছে, মিয়ানমারে গত বছর ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের প্রথম বার্ষিকীতে, সামরিক জান্তার সাথে যুক্ত কিছু ব্যক্তি ও সংস্থার উপর আরো নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া যুক্তরাজ্য ও কানাডাও আলাদাভাবে নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দিয়েছে। নিষেধাজ্ঞাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের মধ্যে আছে, মিয়ানমারের ইউনিয়ন অ্যাটর্নি জেনারেল থিদা উ, সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি তুন তুন উ এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান টিন উ। আর নিষেধাজ্ঞাপ্রাপ্ত দুটি সংস্থা হল, কেটি সার্ভিসেস অ্যান্ড লজিস্টিক কোম্পানি লিমিটেড এবং ডিফেন্স সার্ভিসের কমান্ডার-ইন-চিফের ডিরেক্টরেট অফ প্রকিউরমেন্ট। যাদের বিরুদ্ধে সামরিক শাসনকে সমর্থন করার অভিযোগ রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের। নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা ব্যক্তি এবং সংস্থা গুলোর যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সবরকম সম্পদ বাজেয়াপ্ত থাকবে। সামরিক বাহিনী ১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ সালে একটি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করে। তারা বেসামরিক সরকারকে উৎখাত এবং গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চিসহ অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের আটক করে। যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ করছে, মিয়ানমারের জান্তা সরকার "গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতার নৃশংস কর্মকাণ্ডে" জড়িত। চলমান ওই সহিংস বিক্ষোভে এ পর্যন্ত আনুমানিক প্রায় ১,৫০০ লোক নিহত হয়েছে। ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি পার্টির নেত্রী সু চি, ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট এবং বিক্ষোভকারী, সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীদের অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সরকার বলেছে, অভ্যুত্থানের পর থেকে তাদের অন্যায়ভাবে আটক রাখা হয়েছে। সামরিক কর্মকর্তারা ফেব্রুয়ারিতে ক্ষমতা দখলকে সমর্থন করার কারণ হিসাবে ২০২০ সালের নভেম্বরের সাধারণ নির্বাচনে ব্যাপক জালিয়াতি হয়েছে বলে দাবি করে। ঐ নির্বাচনে সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি বিশাল ব্যবধানে জয় লাভ করে। অবশ্য মিয়ানমারের নির্বাচন কমিশন জালিয়াতির অভিযোগ অস্বীকার করেছে। চলমান মহামারীর মধ্যে রাজনৈতিক অস্থিরতা যোগ হওয়ায়, মিয়ানমারে খাদ্যে দ্রব্যের দাম এবং বেকারত্বের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে অর্থনৈতিক সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply