Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » অপরিশোধিত তেলের দামে যুদ্ধের আগুন; গত ১৩ বছরে সর্বোচ্চ, প্রবল ধাক্কা শেয়ার বাজারেও




তেলের দাম বৃদ্ধির সম্ভাবনার সঙ্গে সঙ্গে আতঙ্ক বাড়ছে বাজারেরও Russia-Ukraine War: অপরিশোধিত তেলের দামে যুদ্ধের আগুন; গত ১৩ বছরে সর্বোচ্চ, প্রবল ধাক্কা শেয়ার বাজারেও নিজস্ব প্রতিবেদন: রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রবল প্রভাব পড়েছে তেলের বাজারে। অপরিশোধিত তেলের দাম পৌঁছে গিয়েছে ১৪০ ডলার প্রতি ব্যারেল। অপরিশোধিত তেলের এই দাম গত ১৩ বছরে সর্বোচ্চ। এর চাপ পড়তে চলেছে ইউরোপ-সহ গোটা বিশ্বে। গতকাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলি রাশিয়া থেকে তেল আমদানির উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে। ওই ঘোষণার পরই অপরিশোধিত তেলের দাম হুহু করে বাড়তে শুরু করেছে। বেন্ট ক্রুড ব্যারেলে ১৪০ ডলার পর্যন্ত ছুঁয়ে ফেলে। বর্তমানে তেলের দাম ব্যারেলে ১৩০ ডলার চলছে। এখন রাশিয়ার তেলের উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি হয় তাহলে গোটা বিশ্বেই তেল সরবারহের উপরে প্রভাব পড়বে। প্রতিদিন রাশিয়া থেকে ৫০ লক্ষ ব্যারেল তেল রপ্তানি হয়। ওই তেলের অধিকাংশই যায় ইউরোপ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। যুদ্ধ শুরুর আগে ব্যারেল পিছু তেলের দাম ৯৫ ডলার ছিল। সেই দাম বাড়তে বাড়তে এই জায়গায় এসেছে। স্বাভাবিকভাবেই ভারতের উপরে এর প্রভাব পড়বে। কারণ ভারতকে তার তেলের ৮৫ শতাংশই আমদানি করতে হয় বিদেশ থেকে। তাই এখনও পেট্রোল ডিজেলের দাম না বাড়লেও কতদিন সরকার এই দাম ধরে রাখতে পারবে তা দেখার বিষয়। অর্থাত্ সাধারণ মানুষের উপরে এর প্রভাব পড়তে যে চলেছে তা একপ্রকার নিশ্চিত। তেলের দাম বৃদ্ধির সম্ভাবনার সঙ্গে সঙ্গে আতঙ্ক বাড়ছে বাজারেরও। এনিয়ে বাজার বিশেষজ্ঞ অনির্বাণ দত্ত বলেন, বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম তেল উত্পাদনকারী দেশ হল রাশিয়া। এই যুদ্ধ শুরু সঙ্গে সঙ্গেই আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের চাহিদা ও জোগানের ভারসাম্য নষ্ট হতে বসেছে। এর প্রভাব ইতিমধ্যেই দেশের শেয়ার মার্কেটে পড়ে গিয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বাড়লে ভারতেও তেলের দাম বাড়বে। ফলে তার প্রভাব পড়বে জিনিসপত্রের দামের উপরে। আর নিত্যপ্রযোজনীয় জিনিসের দাম বাড়লে তার প্রভাব সাধারণ মানুষের উপরে পড়বে। এখনও দেশে তেলের দাম বাড়েনি। আজ উত্তর প্রদেশে বিধানসভার নির্বাচন শেষ হচ্ছে। এখন কালই তেলের দাম বেড়ে যাবে কিনা তা এখনও স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। বিদেশ থেকে ভারতে যে বনস্পতি আসে তার বেশিরভাগটাই আসে ইউক্রেন থেকে। যুদ্ধের কারণে তা ধাক্কা খেয়েছে। রাশিয়া থেকেও অন্যান্য জিনিসের আমদানি ব্যাহত হচ্ছে। এই যুদ্ধে তেলের দাম ও অন্যান্য জিনিসের দাম কতটা বাড়বে তা কয়েক দিনের মধ্য়েই স্পষ্ট হয়ে যাবে। এদিকে, যুদ্ধের প্রভাব পড়ছে শেযার মার্কেটে। সোমবার বাজার খুলতেই সেনসেক্স পড়ে যায় ১৫০০ পয়েন্ট। নিফটিও পড়েছে ৪০০ পয়েন্ট। এর পাশাপাশি ২৪ ক্যারেট সোনার দাম ৫৩,০০০ পৌঁছে গিয়েছে। রাশিয়া ইউক্রেনের মধ্যে ২ দফা কথা হয়ে গিয়েছে। কোনও ইতিবাচক ফল বেরিয়ে আসেনি। ফলে তেল থেকে শেয়ার বাজার, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য থেকে সোনার দাম কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তা জানতে আরও কয়েক দিন অপেক্ষা করতে হবে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply