Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » রোমাঞ্চকর শেষ দিনে অস্ট্রেলিয়ার জয়




রোমাঞ্চকর শেষ দিনে অস্ট্রেলিয়ার জয়

ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার কাছে টেস্ট হেরে গেল পাকিস্তান। থেমে গেল ভুভুজেলার আওয়াজ ও দর্শকদের উল্লাস। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে নেমে এলো পিনপতন নিরবতা। কারণ ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার কাছে টেস্ট হেরে গেল পাকিস্তান। গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে স্বাগতিকদের ১১৫ রানের ব্যবধানে হারিয়েছে প্যাট কামিন্সের দল। আগের দুই ম্যাচেও আধিপত্য ছিল তাদের। কিন্তু ড্র নিয়েই সন্তষ্ট থাকতে হয়েছিল। এবার শেষ ম্যাচে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ নিয়েই পাকিস্তানকে হারালো তারা। লাহোর টেস্টের শেষ ইনিংসে জয়ের জন্য ১১৭ ওভারে ৩৫১ রান করতে হতো স্বাগতিকদের। তবে তাদেরকে ৯২.১ ওভারে ২৩৬ রানে অলআউট করে ম্যাচ জিতে নিয়েছে অসিরা। অফস্পিনার নাথান লিয়ন নিয়েছেন ৫ উইকেট। একইসঙ্গে দীর্ঘ ২৪ বছর পর পাকিস্তান সফরে গিয়ে, সেই ২৪ বছর আগের ফলই ফেরত আনলো অসিরা। ১৯৯৮ সালের পাকিস্তান সফরে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজেও ১-০ ব্যবধানে জিতেছিল তারা। তবে সেবার জিতেছিল প্রথম ম্যাচ। এবার তারা জিতলো সিরিজের শেষ ম্যাচটি। আগেরদিন শেষ সেশনে ২৭ ওভার খেলে অবিছিন্ন জুটিতে ৭৩ রান যোগ করেছিলেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার ইমাম উল হক ও আব্দুল্লাহ শফিক। ফলে আজ ম্যাচের শেষ দিন বাকি ছিল ৯০ ওভারে ২৭৮ রান। যা দেখে কোনো দলের পক্ষেই নিশ্চিত করে কিছু বলা সম্ভব ছিল না। তবে পঞ্চম দিনের খেলা শুরুর পর পাকিস্তানকে আর সুযোগই দেয়নি অস্ট্রেলিয়া। দিনের চতুর্থ ওভারেই সাজঘরের পথ ধরেন ২৭ রান করা শফিক। দলীয় একশ পার হতেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান অভিজ্ঞ আজহার আলি। তার ব্যাট থেকে আসে ৪৭ বলে ১৭ রান। লম্বা সময় ধরে একপ্রান্ত আগলে রাখা ইমামের বাঁধ ভাঙেন লিয়ন। ইনিংসের ৬২তম ওভারে ফেরার আগে ১৯৯ বলে ৭০ রান করেন তিনি। এরপর ফাওয়াদ আলম (১১) ও মোহাম্মদ রিজওয়ান (০) ফিরে যান অল্পেই। রিজওয়ানের বেলায় অবশ্য ভুল সিদ্ধান্ত দেন আলিম দার। তখন একটি রিভিউও বাকি ছিল পাকিস্তানের। কিন্তু নন স্ট্রাইকে থাকা অধিনায়ক বাবর আজম সেই রিভিউ নিতে দেননি রিজওয়ানকে। ফলে ১৬৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় পাকিস্তান। সেখান থেকে ষষ্ঠ উইকেটে স্পিনার সাজিদ খানের সঙ্গে ৪৬ রান যোগ করেন বাবর। পরপর দুই ওভারে বাবর (৫৬) ও সাজিদকে (২১) ফেরান নাথান লিয়ন ও মিচেল স্টার্ক। তখনই প্রায় নিশ্চিত হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার জয়। পরে হাসান আলি একটি করে চার-ছয় মেরে পরাজয়ের ব্যবধান কমান শুধু। ইনিংসের ৯৩তম ওভারের প্রথম বলে নাসিম শাহকে বোল্ড করে ম্যাচ শেষ করেন অসি অধিনায়ক প্যাট কামিনস।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply