Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন Volodymyr Zelenskyy! Russia-র দাবি Poland-এ রয়েছেন তিনি




দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন Volodymyr Zelenskyy! Russia-র দাবি Poland-এ রয়েছেন তিনি ন্যাটোর (NATO) মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ (Jens Stoltenberg) বলেছেন যে তারা ইউক্রেনের উপর কোনও নো-ফ্লাই জোন বানাবে না। তারা সতর্ক করছে জানিয়েছে যে এই ধরনের পদক্ষেপ ইউরোপে একটি বিস্তৃত যুদ্ধের সৃষ্টি করতে পারে।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ইউক্রেনের (Ukraine) প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি (Volodymyr Zelenskyy) কী দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন? তিনি কী পোল্যান্ডে রয়েছেন? রাশিয়ান (Russia) পার্লামেন্টের স্পিকার দাবি করেছেন যে জেলেনস্কি দেশ ছেড়ে পোল্যান্ডে পালিয়ে গেছেন। যদিও খবরটির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি। যদিও রাশিয়া এবং ইউক্রেন তাদের নিজস্ব প্রচার চালাচ্ছে। যদিও ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন বলে যে দাবি করা হচ্ছে রুশ গণমাধ্যমে তা প্রত্যাখ্যান করেছে ইউক্রেন। ইউক্রেন স্পষ্ট জানিয়েছে যে প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বর্তমানে রাজধানী কিয়েভে (Kyiv) রয়েছেন। রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে চলতে থাকা যুদ্ধে রাজধানী কিয়েভ বেশ কয়েকদিন ধরেই ব্যাপক সংকটের মুখে রয়েছে। এই অবস্থায় জেলেনস্কি যদি দেশ ছেড়ে চলে যেতেন তাহলে হয়তো কিয়েভের ওপর কোনও হামলা হত না। এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু ইউক্রেন তাদের প্রেসিডেন্টের পালিয়ে যাওয়ার খবর প্রত্যাখ্যান করেছে। এর আগে ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতি জেলেনস্কি বলেন যে তিনি "শত্রু" রাশিয়ার এক নম্বর লক্ষ্য এবং রাশিয়ান বাহিনী তার পরিবারকেও খুন করতে চাইছে। টেলিভিশনে সম্প্রচারিত একটি ভাষণে জেলেনস্কি বলেন, "শত্রু আমাকে এক নম্বর টার্গেট এবং আমার পরিবারকে দুই নম্বর টার্গেট হিসেবে চিহ্নিত করেছে।" জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান মিশেল ব্যাচেলেটকে (Michelle Bachelet) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে যে রাশিয়া "কিছু ইউক্রেনীয়দের হত্যা অথবা ক্যাম্পে পাঠানোর জন্য" একটি হিটলিস্ট তৈরি করেছে। এর একদিন পরেই নিজের বিবৃতিতে এই বক্তব্য দেন জেলেনস্কি। আরও পড়ুন: Russia-Ukraine War: পড়ুয়াদের ফিরিয়ে এনে বিমানেই 'মোদী-স্তুতি' মন্ত্রীর, নিন্দা সামাজিক মাধ্যমে তার উপরে, রাশিয়ানরা একটি ইউক্রেনীয় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র দখল করেছে। মনে করা হচ্ছে যে এই দখল হওয়ার পরে বিকিরণ ডেটাতে অ্যাক্সেসের অভাবের ফলে পারমাণবিক দুর্ঘটনার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। পারমাণবিক বিশেষজ্ঞরা জোর দিয়ে জানিয়েছেন যে কোনও তাত্ক্ষণিক রেডিওলজিকাল ঝুঁকি এই ক্ষেত্রে দেখা যায়নি। রাশিয়ান বাহিনী জাপোরিঝিয়া প্লান্ট দখল করেছে। এই প্লান্ট ইউরোপের বৃহত্তম। শুক্রবার ভোরে আক্রমণ করার পরে, এই প্লান্ট সংলগ্ন পাঁচ তলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে, ন্যাটো (NATO) মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ (Jens Stoltenberg) বলেছেন যে তারা ইউক্রেনের উপর কোনও নো-ফ্লাই জোন বানাবে না। তারা সতর্ক করছে জানিয়েছে যে এই ধরনের পদক্ষেপ ইউরোপে একটি বিস্তৃত যুদ্ধের সৃষ্টি করতে পারে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি পশ্চিমের দেশগুলির কাছে তার দেশের উপর একটি নো-ফ্লাই জোন কার্যকর করার জন্য আবেদন করেছেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বাহিনী ইউক্রেনে তাদের আক্রমণ বাড়িয়েছে। ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে শত শত ক্ষেপণাস্ত্র ও কামান দিয়ে হামলা চালিয়েছে তারা। দেশের দক্ষিণ অংশে উল্লেখযোগ্য সাফল্য লাভ করেছে তারা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply