Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » আগামী অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি সম্ভাব্য ৭.৫ শতাংশ হবে: অর্থমন্ত্রী




অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, ‘সরকার চলতি অর্থবছরে ৭.২ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির অনুমান অক্ষুণ্ণ রাখতে বদ্ধ পরিকর এবং আগামী অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি সম্ভাব্য ৭.৫ শতাংশ হবে।’ বুধবার (২৭ এপ্রিল) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির (সিসিজিপি) ১৪তম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আমাদের জিডিপি প্রবৃদ্ধির অনুমান একই রাখছি; যা চলতি অর্থবছরের জন্য ৭.২ শতাংশ এবং পরবর্তী অর্থবছরের জন্য ৭.৫ শতাংশ। যদি বিশ্ব আর্থিক অবস্থা নিম্নগামী হয়, তাহলে আমাদের এটি সংশোধন করতে হতে পারে। ততক্ষণ পর্যন্ত, চলতি অর্থবছরের জন্য ৭.২ শতাংশ এবং পরবর্তী অর্থবছরের জন্য ৭.৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধির অনুমান একই থাকবে।’ বিশ্বব্যাংক, এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) এবং আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলসহ (আইএমএফ) ঋণদানকারী সংস্থাগুলো তাদের সাম্প্রতিক বৈশ্বিক অর্থনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গিতে বৈশ্বিক অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির হার কমিয়েছে। আইএমএফ পূর্বাভাস দিয়েছে যে, চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের অর্থনীতি ৬.৪ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে যা দক্ষিণ এশিয়ায় ভারতের পরে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ হবে। এর আগে, বিশ্বব্যাংকও চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির অনুমান কমিয়ে ৬.৪ শতাংশে নামিয়ে এনেছিল, যেখানে এডিবি সামান্য বাড়িয়ে করেছিল ৬.৯ শতাংশে। এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘মূলত রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বে পণ্যের দাম বেড়েছে এবং তার প্রভাব বাংলাদেশও পড়েছে। বিশ্ব অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে যদি কোনো বিঘ্ন ঘটে সেটা আমরা এড়াতে পারি না। আমাদের ভাগ করে নিতে হবে।’ অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধবিরতির কোনো লক্ষণ নেই। এই মুহূর্তে বিশ্বের জন্য বড় বাধা হচ্ছে এই যুদ্ধ।’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সরকার ভর্তুকি ব্যবস্থাপনার বিষয়ে এখনও নতুন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি এবং মূল্যস্ফীতি ব্যবস্থাপনার বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত যথাসময়ে জানানো হবে।’ আগামী অর্থবছরের বাজেট ঘাটতি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনে বলেন, ‘বাজেট ঘাটতি আর্থিক লক্ষ্যমাত্রার মধ্যেই থাকবে।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ বৈশ্বিক ব্যবস্থার সঙ্গে একীভূত হলেও মহান আল্লাহর রহমতে দেশটি এখনো ভালো অবস্থায় রয়েছে। আশা করি, যুদ্ধের অবসান ঘটবে। আমরা এমন আশা নিয়ে এগিয়ে যাব এবং এইভাবে আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করব।’ আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতর দেশের মানুষের জন্য অনাবিল আনন্দ বয়ে আনবে বলেও আশা প্রকাশ করেন অর্থমন্ত্রী। তিনি দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply