Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » নিখোঁজ দুই মার্কিন নাগরিকের ভিডিও প্রচার রুশ টিভিতে




নিখোঁজ দুই মার্কিন নাগরিকের ভিডিও প্রচার রুশ টিভিতে

রাশিয়ান একটি রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দুই আমেরিকানের ভিডিও সম্প্রচার করেছে। যারা গত সপ্তাহে ইউক্রেন সেনাবাহিনীর সঙ্গে যোগ দিয়ে লড়াই করার সময় নিখোঁজ হয়েছিলেন, তারা রাশিয়ান বাহিনীর হাতে ধরা পড়েছে। ইউক্রেনে মার্কিন সামরিক বাহিনীর দুই সদস্য আলেকজান্ডার ড্রুক এবং অ্যান্ডি হুয়েনের সঙ্গে তাদের স্বজনরা যোগাযোগ হারিয়ে ফেলেছেন বলে জানানোর পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শুক্রবার বলেছেন, তিনি তাদের হদিস জানেন না। এর পরই রাশিয়া এই ভিডিও প্রচার করে। ইউক্রেনে নিখোঁজ হিসেবে শনাক্ত তৃতীয় ব্যক্তি মার্কিন সাবেক মেরিন ক্যাপ্টেনসহ নিখোঁজ আমেরিকানরা ইউক্রেনীয় সৈন্যদের সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাষ্ট্রীয় টিভি আরটি’র রাশিয়ান সাংবাদিক রোমান কোসারেভ মেসেজিং প্লাটফরম টেলিগ্রামের ভিডিও ক্যামেরার সামনে আলেকজান্ডার ড্রুককে হাজির করেন। ড্রুক এ সময় বলেন, “মা, আমি তোমাকে জানাতে চাই যে আমি বেঁচে আছি এবং আমি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বাড়ি ফিরে আসবো বলে আশা করি।” তিনি এ সময় একটি অফিসে বসেছিলেন এবং সামরিক পোশাক পরিহিত ছিলেন। তাকে বেশ ক্লান্ত দেখা যায়। ড্রিক তার পোষা কুকুর ডিজেলকে উদ্দেশ করে বলেন, “আমি ডিজেলকে ভালোবাসি, তোমার জন্য ভালোবাসা।” এরপরেই সংক্ষিপ্ত ভিডিওটি শেষ হয়। আরটি’র অফিসিয়াল টেলিগ্রাম চ্যানেলে অ্যান্ডি হুয়েনের একটি সাক্ষাৎকার পোস্ট করা হয়। এতে তিনি বলেন, “ইউক্রেনের ফ্লাস পয়েন্ট খারকিভ এলাকার কাছে তারা দুইজন ‘ইউক্রেনের পক্ষে রাশিয়ান সৈন্যদের সঙ্গে লড়াইয়ে যুক্ত ছিলেন।” হুয়েন জানান, তারা দু’জন যুদ্ধে পিছু হটে গিয়ে কয়েক ঘন্টা লুকিয়ে থাকেন। পরে তারা রাশিয়ান সৈন্যদের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। পৃথক আরটি ভিডিওতে ক্যামেরার সামনে তাদের সরাসরি হাজির করা হয়। এ সময় দুর্বল রাশিয়ান ভাষায় তিনি বলেন, “আমি যুদ্ধের বিরুদ্ধে।” যে পরিস্থিতিতে এই দুই মার্কিনী কথা বলছিলেন তা পুরোপুরি পরিস্কার ছিল না কিংবা বিশেষভাবে কারা তাদের আটক রেখেছে স্পস্ট করে বোঝা যাচ্ছিলো না। শনিবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের একজন মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন যে, আমেরিকান কর্তৃপক্ষ ‘ইউক্রেনে রাশিয়ান সামরিক বাহিনীর কাছে বন্দী’ দুই মার্কিন নাগরিকের ছবি এবং ভিডিও দেখেছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply