Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » চাহিদার ৪০ ভাগ ভোজ্যতেল দেশেই উৎপাদন করতে চায় বাংলাদেশ




চাহিদার ৪০ ভাগ ভোজ্যতেল দেশেই উৎপাদন করতে চায় বাংলাদেশ কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বর্তমানে ভোজ্যতেলের মোট চাহিদার মাত্র ১০ ভাগ উৎপাদন করতে পারে বাংলাদেশ। তবে আগামী ৩ বছর মধ্যে ভোজ্যতেলের চাহিদার ৪০ ভাগ স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করতে চায় বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (৭ জুন) সচিবালয়ে ভোজ্যতেলের আমদানি নির্ভরতা কমাতে তিন বছর মেয়াদী কর্মপরিকল্পনা বিষয়ক সভায় সাংবাদিকদের এ কথা জানান কৃষিমন্ত্রী। দেশে বছরে ভোজ্যতেলের চাহিদা ২৪ লাখ টন জানিয়ে তিনি বলেন, চাহিদার ৩ থেকে ৪ লাখ টন দেশে উৎপাদিত হয়। বাকি তেল বিদেশে আমদানি করা হয়। গেল অর্থবছর ভোজ্যতেল আমদানিতে ১৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। তবে ভোজ্যতেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় চলতি অর্থবছরের গত ১০ মাসে ভোজ্যতেলে আমদানি করতে ২০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী বারবার বলছিলেন, আমাদের এত তেল কেন বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয় ভোজ্যতেলে বিদেশের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে আনার বিষয়ে আমাদের চেষ্টা করার জন্য বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। ধীরে ধীরে আমাদের উৎপাদন বাড়াতে হবে। আরও পড়ুন: ধানের হাট-চালের মিলেও অভিযান চলবে তিনি বলেন, ভোজ্যতেলে বৈদেশিক নির্ভরতা কমিয়ে সরিষা উৎপাদন বাড়াতে চায় সরকার। তাতে সয়াবিন আমদানি কমে দেশের সরিষার তেল উৎপাদন বাড়বে, এ জন্য তিন বছর মেয়াদী পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। ১০ বছর ধরে আমাদের বিজ্ঞানীরা অনেক উৎপাদনশীল জাত উদ্ভাবন করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভোজ্যতেল নিয়ে একটা হাহাকার চলছে। তেলের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে। মানুষের খরচ বেড়ে গেছে। এতে বৈদেশিক মুদ্রা চলে যাচ্ছে, ব্যবহারের ক্ষেত্রে রিজার্ভেও প্রভাব পড়ছে। আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আমরা সরিষার উচ্চ ফলনশীল জাত উদ্ভাবন করেছি। এ জাতগুলো যদি আমরা মানুষের কাছে জনপ্রিয় করতে পারি, তাহলে উৎপাদন বাড়ানো সম্ভব।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply