Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা: হেনোলাক্সের মালিক গ্রেফতার




গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা: হেনোলাক্সের মালিক গ্রেফতার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে নিজের গায়ে আগুন দেয়া ছাত্রলীগের সাবেক নেতা গাজী আনিসের মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আমিন ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল আমিন ও পরিচালক ফাতেমা আমিনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এর আগে সকাল ৬টায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় গাজী আনিসের মৃত্যু হয়। এরপর দুপুরে আনিসের বড় ভাই নজরুল ইসলাম শাহবাগ থানায় হেনোলাক্সের কর্ণধার নুরুল আমিন ও তার স্ত্রী ফাতেমা আমিনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। শাহবাগ থানার এসআই গোলাম হোসেন খান জানান, মামলায় আত্মহত্যায় প্ররোচণার অভিযোগ আনা হয়েছে। সোমবার (৪ জুলাই) বিকেল ৫টার দিকে গাজী আনিস জাতীয় প্রেস ক্লাবে নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। আরও পড়ুন: প্রেস ক্লাবে গায়ে আগুন দেয়া আনিস মারা গেছেন শাহবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মওদুদ হাওলাদার জানান, খবর পেয়ে প্রেস ক্লাবের ভেতর থেকে দ্রুত তাকে উদ্ধার করা হয়। সঙ্গে সঙ্গে তাকে বার্ন ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে জানতে পেরেছি তার নাম গাজী আনিস। বাড়ি কুষ্টিয়ার কুমারখালীর পানটি গ্রামে। কী কারণে তিনি এই ঘটনা ঘটিয়েছেন তা এখনও জানা সম্ভব হয়নি। তবে তিনি নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়েছেন বলে জানা গেছে। আরও পড়ুন : গায়ে আগুন দিয়ে মৃত্যুর ঘটনায় হেনোলাক্স গ্রুপের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা প্রেস ক্লাবে উপস্থিত থাকা মোহাম্মদ আলী নামে স্বদেশ বিচিত্রা পত্রিকার সাংবাদিক জানান, সোমবার বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে তিনি চায়ের দোকানে বসেছিলেন। তখন ওই ব্যক্তিকে হঠাৎ নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিতে দেখতে পান। সঙ্গে সঙ্গে তিনি তার কাছে গিয়ে পানি ঢেলে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। পরে ৯৯৯-তে কল দেন। পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে। তিনি আরও জানান, গাজী আনিস নামে ওই ব্যক্তি কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। দুই-আড়াই মাস আগে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি ‘হেনোলাক্স কোম্পানি’র কাছে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা পান বলে দাবি করেন। তার ভাই নজরুল ইসলাম জানান, তাদের বাবা মৃত ইব্রাহীম হোসেন বিশ্বাস। ৯১-৯৫ সাল পর্যন্ত গাজী আনিস কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। তার স্ত্রী স্বপ্না। ৩ মেয়ের জনক তিনি। ব্যবসার পাশাপাশি চাকরিও করতেন। ওই কোম্পানির কাছে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা পেতেন। এ জন্য কয়েক দফায় সংবাদ সম্মেলনও করেছেন। ওই টাকা না পাওয়ায় তিনি এই ঘটনা ঘটিয়েছেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply