Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » চ্যাম্পিয়নস লিগ শেষ মুহূর্তের গোলে নকআউটে রিয়াল, চেলসির কাছে ফের হারল মিলান




দারুণ ছন্দে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ অবশেষে হারের স্বাদ পাওয়ার অপেক্ষাতেই ছিল। চ্যাম্পিয়নস লিগের ফিরতি লেগে রিয়ালের বিপক্ষে শাখতার দোনেৎস্ক যোগ করা সময়ের ৪ মিনিট পর্যন্ত লিড ধরেই রেখেছিল। তবে আন্তোনিও রুডিগারের দারুণ এক গোলে শেষ পর্যন্ত হার এড়িয়েই মাঠ ছাড়ে রিয়াল। টনি ক্রুসের দুর্দান্ত এক ক্রসে হেডে লক্ষ্যভেদ করেন রুডিগার। এ সময় শাখতার গোলরক্ষক আন্তোলি ত্রুবিনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় রুডিগারের। এই আঘাতে রক্ত ঝরেছে দুজনেরেই। এ ড্রয়ে জয়ের ধারায় ছেদ পড়লেও এখনো অপরাজিতই আছে ‘লস ব্লাঙ্কোস’রা। এ ম্যাচে হার এড়িয়ে নকআউট পর্বের টিকিটও নিশ্চিত করেছে রিয়াল।

চ্যাম্পিয়নস লিগে আগের ম্যাচ থেকে অনেকগুলো পরিবর্তন এনে একাদশ সাজান রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলত্তি। ভিনিসিয়ুস জুনিয়রের জায়গায় একাদশে ছিলেন এডেন হ্যাজার্ড। তবে প্রথমার্ধে রিয়ালরে আক্রমণভাগ একরকম নিষ্প্রভই ছিল। বিচ্ছিন্নভাবে কিছু সুযোগ সৃষ্টি করলেও তা মোটেই গোলের জন্য যথেষ্ট ছিল না। হ্যাজার্ড, বেনজেমা এবং রদ্রিগোকে দিয়ে আক্রমণভাগ আলো ছড়াতে পারছিল না। ফেদে ভালভার্দেও পারছিলেন না নিজের প্রভাব রাখতে। অন্যদিকে রিয়ালের ছন্দহীনতার সুযোগ নিয়ে জ্বলে উঠতে পারছিল না শাখতারও। অ্যাটাকিং থার্ডে বল অতিরিক্ত সময় পায়ে রেখে সুযোগ হাতছাড়া করছিল তারাও। গোলশূন্য অবস্থাতেই বিরতিতে যায় দুই দল। বিরতির পর থিতু হওয়ার আগেই গোল খেয়ে বসে রিয়াল। শাখতারকে হেডে গোল করে এগিয়ে দেন অলেক্সান্দার জুবকভ। এটি ছিল এ বছর চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়াল মাদ্রিদের হজম করা প্রথম গোল। আরও পড়ুন হলান্ডকে বেঞ্চে রেখে গোলহীন রাত কাটাল ম্যান সিটি মাঠেই নামা হয়নি হলান্ডের পিছিয়ে পড়ে দ্রুত পরিবর্তন আনেন রিয়াল কোচ আনচেলত্তি। নিষ্প্রভ হ্যাজার্ডকে তুলে মাঠে নামান ভিনিসিয়ুসকে। আঁরেলিয়া চুয়ামেনির বদলে আসেন লুকা মদরিচ। তবে পরিবর্তনও রিয়ালে ম্যাচে ফেরাতে পারছিল না। উল্টো ৬৪ মিনিটে একেবারে কাছাকাছি গিয়েও ব্যবধান বাড়াতে ব্যর্থ হয় ইউক্রেনিয়ান ক্লাবটি। উপায় না দেখে একটু পর আরও তিন পরিবর্তন আনেন আনচেলত্তি। ফেরলান্ড মেন্দির জায়গায় আসেন ডেভিড আলাবা। ভালভার্দের পরিবর্তে নামেন এদোয়ার্দো কামাভিঙ্গা। রদ্রিগোর স্থলাভিষিক্ত হন মার্কো অ্যাসেনসিও। এরপরও রিয়ালের গোল যেন দূরের বাতিঘর।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply