Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে প্যারিসের রাস্তায় হাজারো মানুষের বিক্ষোভ




নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের অব্যাহত মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের রাস্তায় বিক্ষোভ করেছে হাজার হাজার মানুষ। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানায়, রোববার (১৬ সেপ্টেম্বর) ফ্রান্সের তেল শোধনাগারগুলোতে মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে চলমান ধর্মঘটের মধ্যে বিক্ষোভে হাজার হাজার মানুষ অংশ নেয়। ফ্রান্সের বামপন্থি রাজনৈতিক সংগঠন আনবোর্ড পার্টির প্রধান জিন লুক মেলেনচনের নেতৃত্বে এই বিক্ষোভ হয় বলে জানা গেছে। আয়োজকরা জানাচ্ছেন, এই বিক্ষোভ জীবনযাত্রার ব্যয়বৃদ্ধি এবং জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতি নিষ্ক্রিয়তার বিরুদ্ধে। জলবায়ু সংকটের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিনিয়োগের আহ্বান জানানোর পাশাপাশি, তারা উচ্চমূল্যের বিরুদ্ধে জরুরি ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। এ সময় ট্রাকের ওপর থেকে মেলানচন বলেন, 'জনগণের অংশগ্রহণে এমন একটি সপ্তাহ দেখছি যা আমরা প্রায়ই দেখতে পাই না।' তিনি আরও বলেন, 'সব ঠিকমতো হচ্ছে। আমরা এই মার্চ (বিক্ষোভ) দিয়ে এটি শুরু করছি, যা একটি বিশাল সাফল্য। আয়োজকরা জানিয়েছেন, রোববারের সমাবেশে ১ লাখ ৪০ হাজার মানুষ অংশ নিয়েছিলেন। তবে ফ্রান্সের পুলিশ আগে জানিয়েছিল যে অন্তত ৩০ হাজার মানুষ বিক্ষোভে অংশগ্রহণ করবে। আরও পড়ুন: জ্বালানি-সংকটে-নাকাল-ফ্রান্স-বাড়ছে-জনদুর্ভোগ ফ্রান্সের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, রোববারের কর্মসূচিতে কিছু বিক্ষোভকারী হলুদ ভেস্ট পরিধান করে এসেছিলেন। এই ভেস্ট ২০১৮ সালের সরকারবিরোধী ব্যাপক বিক্ষোভের প্রতীক হিসেবে আলোচিত। ওই বিক্ষোভ বর্তমান ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সরকারকে ধাক্কা দিয়েছিল। এদিকে ফ্রান্সের বাজেট মন্ত্রী গ্যাব্রিয়েল আটাল দাবি করেছেন বামপন্থি এই জোট (আনবোর্ড পার্টি) বর্তমান পরিস্থিতিকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে। ফ্রান্সের একটি রেডিওকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, রোববার যারা বিক্ষোভ করেছে তারা বর্তমান পরিস্থিতি কাজে লাগিয়ে দেশকে অবরুদ্ধ করতে চায়। এদিকে ফ্রান্সের ৭টি শোধনাগারের মধ্যে চারটি রোববার বিক্ষোভে অবরুদ্ধ ছিল। এর আগে শুক্রবার ফ্রেঞ্চ কোম্পানি ঘোষণা করেছে যে তারা শোধনাগারে কর্মীদের প্রতিনিধিত্বকারী দুটি বৃহত্তম ইউনিয়নের সঙ্গে একটি বেতন চুক্তিতে পৌঁছেছে, যা অচলাবস্থা অবসানের আশা বাড়িয়েছে। তবে দেশটির কট্টরপন্থি সিজিটি ইউনিয়ন বেতন চুক্তি গ্রহণ করতে অস্বীকার করেছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply