sponsor

sponsor


Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

ইউপি-পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে: ইসি সচিব

দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সারা দেশে ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবি করেছেন নির্বাচন কমিশন সচিব হুমায়ূন কবির খন্দকার। ইউপি-পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে: ইসি সচিব সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কমিশন সচিবালয়ে নির্বাচন পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ইসি সচিব জানান, অনিয়মের অভিযোগে পাঁচটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। ভোটে হতাহতদের বিষয়ে ইসি সচিব বলেন, আপনারা জানেন এটি আমাদের জন্য খুব বেদনাদায়ক, দুঃখজনক ঘটনা যে মহেশখালী এবং কুতুবদিয়ায় একটি করে দুজন নিহত হয়েছে। ২৪ জন লোক বিভিন্ন জায়গায় প্রার্থীদের নিজেদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় আহত হয়েছেন। এছাড়া মোটামুটি সব জায়গায় আমরা যতটুকু খবর পেয়েছি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হয়েছে। আরও পড়ুন: কক্সবাজারে ভোটকেন্দ্রে গোলাগুলি, নিহত ২ তিনি আরও বলেন, আপনারা জানেন পাঁচটি ভোটকেন্দ্রে অনিয়মের কারণে ভোটগ্রহণ বন্ধ করা হয়েছে। ইভিএমে ইউনিয়নে ৫০ শতাংশ এবং পৌরসভায় ৫০ শতাংশে বেশি ভোট পড়েছে। আর ব্যালটে ৬৫ শতাংশের হবে বলে আশা করি। হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, গতকাল রাতে যেটা হয়েছে, প্রার্থীদের মধ্যে দ্বন্দ্বের ফলে একজন বৃদ্ধ মহিলা কোনোভাবে ধাক্কা খেয়ে নিহত হয়েছেন বলে আমরা জেনেছি। এটি তদন্ত করে দেখার জন্য বলেছি। তিনি বলেন, একটি বিষয় মনে রাখতে হবে, ইউপি নির্বাচন কিন্তু একেবারে রুট পর্যায়ে হয়। নির্বাচনী আমেজ থাকে। প্রার্থীরা এত ইমোশনাল হয়ে যান, যে নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন। এসব করতে যেয়ে নিজেদের মধ্যে অকস্মাৎ তারা নিজেদের মধ্যে ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেন। এটি ঘটে এবং ঘটেছে। সচিব বলেন, যে ঘটনা ঘটেছে সেগুলো খতিয়ে দেখব। ভবিষ্যতে যাতে পুনরাবৃত্তি না হয়, সে বিষয়ে সজাগ থাকব।

প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দলের বড় বিজয়!

পুতিনের দলের বড় বিজয়! রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচন বর্তমান
পুতিনের ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টি বিজয় অর্জন করেছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম বিবিসি। পুতিনের দলের বড় বিজয়! সোমবার( ২০ সেপ্টেম্বর ) বিবিসি জানায়, যদিও এই নির্বাচনে জালিয়াতির মারাত্মক অভিযোগ রয়েছে। বিবিসি বলছে, রাশিয়ার নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে ভোটের প্রাপ্ত ফলাফলে দেখা গেছে ৯৯ শতাংশ গণনাকৃত ভোটের মধ্যে ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টি ৫০ শতাংশ ভোট পেয়েছে। সে হিসেবে গতবারের থেকে পুতিনের পার্টির ভোট পাওয়ার হার কমেছে। এর আগে ২০১৬ সালের নির্বাচনে তারা ৫৪ শতাংশ ভোট পেয়েছিল ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টি। এছাড়া রাশিয়ার কমিউনিস্ট পার্টি ১৯ শতাংশ ভোট পেয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। এদিকে রাশিয়ার সরকারি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে ইউনাইটেড রাশিয়ার পার্টির বিজয় মানেই সংসদের ৪৫০টি আসনের মধ্যে অন্তত দুই তৃতীয়াংশ তাদের দখলে থাকবে।এদিকে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, কমিউনিস্ট পার্টি যারা গত নির্বাচনের থেকে ৮ শতাংশ ভোট বেশি পেয়েছে। কমিউনিস্ট পার্টি সংসদের পুতিনের ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টিকে সমর্থন দেয়। তবে তারাও বলছে এবারের নির্বাচন চরম জালিয়াতি হয়েছে।সোমবার আংশিক ফল ঘোষণার পর উল্লাসে ফেটে পড়ে ইউনাইটেড রাশিয়ার সমর্থকরা। মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিনকে দলের প্রধান কার্যালয়ে সমর্থকদের নিয়ে স্লোগান দিতে দেখা যায়। আরোও পড়ুনঃ ৫-থেকে-১১-বছর-বয়সী-শিশুরাও-টিকার-আওতায়-আসছে ৪৫০ আসনের রুশ পার্লামেন্টে বর্তমানে প্রায় তিন চতুর্থাংশই ইউনাইটেড রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে। ২০২০ সালে এই সংখ্যাগরিষ্ঠতার বলে সংবিধানে একটি নতুন সংস্কার আনা হয়। এতে ভ্লাদিমির পুতিনকে আরও দুই মেয়াদে অর্থাৎ, ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সুযোগ রাখা হয়। পুতিন বিরোধীরা জানান, পুতিনকে আমৃত্যু ক্ষমতায় রাখার একটি অপকৌশল ছিল ওই সংস্কার। রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয় শুক্রবার ( ১৭ সেপ্টেম্বর) । রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬ টায় ভোট গ্রহণ শেষ হয়। রাশিয়ার কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন দেশটির স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানায়, এবারের নির্বাচনে ভোটের হার ৩৫ দশমিক ৭ শতাংশ । নির্বাচনে পুতিনের ইউনাইটেড রাশিয়া পার্টি ছাড়াও কমিউনিস্ট পার্টি ও জাতীয়তাবাদী এলডিপিআর দল অংশগ্রহণ করে।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভ্যাট নিয়ে যা জানালো হাইকোর্ট

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভ্যাট নিয়ে যা জানালো হাইকোর্ট
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছ থেকে ১৫ শতাংশ হারে আয়কর আদায় আপাতত বন্ধ রাখতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ইউনিভার্সিটি অফ এশিয়া প্যাসিফিকের পক্ষে করা এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি শশাঙ্ক শেখর সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ নির্দেশ দেয়। আবেদনের পক্ষে ছিলেন ড. চৌধুরী ইশরাক সিদ্দিক। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল তাহমিনা পলি। এর আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর অর্থ আইন, ২০২১-এর তফসিল ‘খ’-এর সিরিয়াল ৭ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করে ইউনিভার্সিটি অফ এশিয়া প্যাসিফিক। রিটে আইন মন্ত্রণালয় সচিব, অর্থ মন্ত্রণালয় সচিব, এনবিআর চেয়ারম্যানসহ ৫ জনকে বিবাদী করা হয়। উক্ত অর্থ আইন, ২০২১-এর তফসিল ‘খ’-এর সিরিয়াল ৭-এর মাধ্যমে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর ১৫ শতাংশ কর আরোপ করা হয়। শুনানি শেষে রুল জারি করেন এবং আরোপিত ১৫ শতাংশ কর আদায় করা থেকে সরকারকে বিরত থাকার নির্দেশ দেন আদালত। এ আদেশের ফলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে কর আদায়ের দাবি করতে পারবে না সরকার। প্রসঙ্গত, গত তত্ত্বাবধায়ক সরকার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর কর আরোপ করে। এরই প্রেক্ষিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো রিট আবেদন করলে উচ্চ আদালত ২০১৬ সালের ৫ সেপ্টেম্বর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর কর ধার্য করাকে অবৈধ ঘোষণা করেন। এর বিরুদ্ধে সরকারের আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে আপিল বিভাগ চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি এক আদেশের মাধ্যমে সরকারের আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর কর আরোপ না করার আদেশ দিয়েছিলেন।

কোন দেশের হাতে কতটি পারমাণবিক সাবমেরিন

অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে একটি চুক্তি নিয়ে ব্যাপক ক্ষুব্ধ হয়েছে ফ্রান্স। এ চুক্তির কারণে ফ্রান্সের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার তীব্র মতপার্থক্য দেখা দিয়েছে। বাতিল হয়ে গেছে দেশ দুটির মধ্যে সম্পাদিত মাল্টিবিলিয়ন ডলারের চুক্তি। চুক্তির আওতায় অস্ট্রেলিয়ার জন্য ১২টি পরমাণু শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির কথা ছিল ফ্রান্সের। ব্যাপক ক্ষুব্ধ ফ্রান্স যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে নিজের রাষ্ট্রদূতদের ডেকেছে আলোচনার জন্য। দেশটি নতুন এ চুক্তি মোটেও ভালোভাবে নেয়নি। কারণ এতে আর্থিকভাবে বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে ইউরোপের দেশটি। যে পারমাণবিক সাবমেরিন নিয়ে এত আলোচনা তা বিশ্বের মাত্র ছয়টি দেশের হাতে রয়েছে। দেখে নিন কোন দেশের হাতে কতটি পারমাণবিক সাবমেরিন রয়েছে— ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের তথ্য অনুযায়ী, সবচেয়ে বেশি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির হাতে রয়েছে ৬৮টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন। এরপরের স্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটির হাতে রয়েছে ২৯টি। তৃতীয় স্থানে রয়েছে চীন। দেশটি ১২টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক। ১১টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাজ্য। পঞ্চম স্থানে থাকা ফ্রান্সের হাতে রয়েছে আটটি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন আর ভারতের হাতে রয়েছে ১টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন। ‘এইউকেইউএস’ চুক্তির অর্থ হলো—সপ্তম দেশ হিসেবে পরমাণু শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। সূত্র: বিবিসি

রাশিয়ায় সরাসরি পণ্য রপ্তানিতে সহযোগিতা চাইলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

রাশিয়ায় বাংলাদেশের তৈরী পোশাকসহ অন্যান্য পণ্য সরাসরি রপ্তানিতে সেদেশের সরকারের আন্তরিক সহযোগিতা চেয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, রাশিয়ার বাজারে বাংলাদেশের তৈরী পোশাকসহ বিভিন্ন পণ্যের বিপুল চাহিদা রয়েছে। কিন্তু নানা জটিলতার কারনে অন্য দেশের মাধ্যমে সেখানে পোশাক রপ্তানি করতে হচ্ছে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে সেসব জটিলতা চিহ্নিত করা হয়েছে এবং সমাধানের চেষ্টা চলছে। মন্ত্রী মনে করেন এসব সমস্যার সমাধান হলে রাশিয়ার বাজারে বিপুল পরিমান বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানি করা সম্ভব হবে। তবে এর জন্য সরাসরি পণ্য রপ্তানিতে রাশিয়ান সরকারের আন্তরিক সহযোগিতা প্রয়োজন। টিপু মুনশি সোমবার সচিবালয়ে নিজ অফিসকক্ষে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মাস্তিতেিস্কর সাথে মতবিনিময়ের সময় এসব কথা বলেন। মন্ত্রী আরও বলেন, রাশিয়া বাংলাদেশের ঘনিষ্ট বন্ধুরাষ্ট্র। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় রাশিয়া বাংলাদেশের পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে, এজন্য রাশিয়ার প্রতি কৃতজ্ঞ। রাশিয়ার সাথে বাণিজ্য বৃদ্ধির সুযোগ থাকা স্বত্ত্বেও ব্যাংকিং চ্যানেলে লেনদেন এবং কিছু শুল্ক জটিলতার কারনে বাণিজ্য সম্প্রসারণ করা সম্ভব হচ্ছে না। এসময় রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মাস্তিতস্কি বলেন, বাংলাদেশকে রাশিয়া বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে। বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি করতে আগ্রহী রাশিয়া। বাংলাদেশী পণ্যের অনেক চাহিদা রয়েছে রাশিয়ায়। বিদ্যমান বাণিজ্য বাঁধা দূর হলে উভয় দেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়বে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি জানান, রাশিয়া সরকার চলমান সমস্যাগুলো দূর করতে আন্তরিক এবং বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগি হতে চাই। টিপু মুনশি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ এখন বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। উন্নত মানের পণ্য প্রতিযোগিতামূলক মূল্য সরবরাহ করতে সক্ষম। তিনি বলেন, বিশ^ব্যাপী বাংলাদেশের তৈরী পণ্যের চাহিদা বাড়ছে। রাশিয়ার সহযোগিতায় বাংলাদেশ রাশিয়াসহ ইউরেশিয়ান ইকোনমিক ইউনিয়ন ও সিআইএসভুক্ত অন্যান্য দেশে রপ্তানি বৃদ্ধি করতে আগ্রহী। উল্লেখ্য, গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরে বাংলাদেশ ৬৬৫ দশমিক ৩১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য রাশিয়ায় রপ্তানি করেছে, একই সময়ে আমদানি করেছে ৪৬৬ দশমিক ৭০ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। এ সময় বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ, অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) মো. হাফিজুর রহমান,অতিরিক্ত সচিব(এফটিএ) নূর মো. মাহবুবুল হকসহ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র কমকর্তবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

করোনায় মৃত্যু আরও কমেছে, শনাক্ত ১৫৫৫

দেশে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৭ হাজার ২৫১ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া দেশে নতুন করে আরও এক হাজার ৫৫৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট ১৫ লাখ ৪৪ হাজার ২৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছে এক হাজার ৫৬৫ জন। এ নিয়ে দেশে মোট ১৫ লাখ তিন হাজার ১০৬ জন করোনা থেকে সুস্থ হলো। আজ সোমবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৮১০টি ল্যাবে ২৭ হাজার ৪৩১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২৭ হাজার ৮০০টি। করোনা শনাক্তের হার পাঁচ দশমিক ৬৭ শতাংশ। এই পর্যন্ত গড় শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৩২ শতাংশ। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ২৬ জন মৃত্যুবরণকারীর মধ্যে পুরুষ ১১ জন ও নারী ১৫ জন। এ পর্যন্ত পুরুষ মৃত্যুবরণ করেছে ১৭ হাজার ৫২৩ জন ও নারী নয় হাজার ৭২৮ জন। মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে নয়জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ছয়জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে তিনজন ও ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে চারজন। ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১৫ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে পাঁচজন, খুলনা বিভাগে দুইজন, বরিশাল বিভাগে একজন, রংপুর বিভাগে একজন, সিলেট বিভাগে একজন ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন। এ ছাড়া সরকারি হাসপাতালে ২৩ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে তিনজন মৃত্যুবরণ করেছে। দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। ওই বছরের ১৮ জুন তিন হাজার ৮০৩ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে লাখ ছাড়িয়েছিল করোনার রোগী। সেদিন পর্যন্ত মোট শনাক্ত ছিল এক লাখ দুই হাজার ২৯২ জন। এ ছাড়া দেশে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে গত বছরের ১৮ মার্চ।

বিজ্ঞাপনে 'হিন্দুধর্ম বিরোধী প্রচার', নেটিজেনদের তোপের মুখে আলিয়া

বেদে বিভিন্ন রকমের বিয়ের উল্লেখ রয়েছে। এর মধ্যে ব্রাহ্ম বিবাহ ছাড়া প্রজাপতি বা গান্ধর্ব্য বিবাহের মতো অন্য পদ্ধতিতে কন্যাদানের কথা উল্লেখ নেই। অথচ কালের নিয়মে বিয়েতে কন্যাদান হয়ে দাঁড়িয়েছে এক অপরিহার্য রীতি। তবে বদলাচ্ছে সময়, বদলাচ্ছে সমাজের দৃষ্টিকোণ। বিয়ের অনুষ্ঠানে কন্যাদান অপরিহার্য নয়, কন্যা কি কোন জিনিস যে তাঁকে দান করা হবে, বর্তমান সময়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই। ইতিমধ্যেই বাংলায় তৈরি হয়েছে মহিলা পুরোহিতদের একটি দল, যাঁরা বিয়েতে কন্যাদান রীতি পালন করেন না। এবার এই কন্যাদান প্রথা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অভিনেত্রী আলিয়া ভাট (Alia Bhatt)। সম্প্রতি এক বিজ্ঞাপনে তিনি বলছেন কন্যাদান নয়, এই রীতির নাম হওয়া উচিত কন্যামান অর্থাৎ কন্যাকে দান না করে তাঁকে মান দেওয়া উচিত। বিজ্ঞাপনে তিনি বলেছেন, 'সবাই বলে কন্যা হল অন্যের ধন, কিন্তু কন্যা না অন্য কারোর না সে ধন। কন্যা কোনও দানের বস্তু নয়।' কিন্তু এর জেরেই বিতর্কের মুখে পড়েছেন অভিনেতা। নেটিজেনদের দাবি কন্যাদান অস্বীকার করা মানে হিন্দু সংস্কারের বিরোধিতা করা।