sponsor

sponsor

Slider

আন্তর্জাতিক

জাতীয়

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

Facebook Like Box

» » ঢাকা-পঞ্চগড় রেলপথের উদ্বোধন


পঞ্চগড়-ঢাকা-পঞ্চগড় সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার সকালে পঞ্চগড় রেলস্টেশন চত্বরে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আবুল কালাম আজাদ ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিকভাবে আন্তঃনগর দ্রুতযান ট্রেনের শুভযাত্রার উদ্বোধন করেন।
এসময় বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল আলম, পঞ্চগড়-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মো. নুরুল ইসলাম সুজন, জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. গোলাম আজম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনোয়ার সাদাত সম্রাট, পঞ্চগড় রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার মো. মোশাররফ হোসেনসহ সহস্রাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
এটিই দেশের সর্বোচ্চ দূরত্বের ট্রেন সার্ভিস। ঢাকা থেকে যার দূরত্ব ৬৩৯ কিলোমিটার। এই ট্রেন চলাচলের মধ্য দিয়ে পঞ্চগড়ের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি পূর্ণ হলো।
এর আগে সকাল সাড়ে ছয়টায় ঢাক-ঢোল বাজিয়ে অতিথিদের স্টেশন চত্বরে নিয়ে আসা হয়।
সংক্ষিপ্ত আলোচনা শেষে মোনাজাতে অংশ নেন অতিথিসহ স্থানীয় সহস্রাধিক মানুষ। অতিথিবৃন্দ সৌভাগ্যবান প্রথম যাত্রীদের প্রত্যেকের হাতে একটি করে রজনীগন্ধা ফুল দিয়ে বরণ করেন। এরপর অতিথিবৃন্দ সবুজ পতাকা উড়িয়ে দেন এবং ঠিক ৭টা ৪০ মিনিটে লাল সবুজের ১৩টি বগি নিয়ে আন্ত:নগর দ্রুতযান ট্রেনটি পঞ্চগড় স্টেশন ছেড়ে যায়।
রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের মানুষের যাতায়াতের জন্য এবং তাদের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে সরকার পঞ্চগড়-ঢাকা সরাসরি ট্রেন চলাচলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগে ঢাকা-দিনাজপুর রুটে দ্রুতযান এবং একতা এক্সপ্রেসের দুটি ট্রেন নিয়ে আসা হয়েছে পঞ্চগড় পর্যন্ত। ট্রেন দুটি পঞ্চগড়-দিনাজপুরের মধ্যে নতুন সময়সূচি অনুযায়ী এবং দিনাজপুর-ঢাকার মধ্যে পুরোনো সময় অনুযায়ী চলবে। এতে দিনাজপুর-পঞ্চগড় শাটল ট্রেনটি বন্ধ হয়ে যায়।
দ্রুতযান ট্রেনটি প্রতিদিন পঞ্চগড় রেলস্টেশন থেকে সকাল সাতটা ২০ মিনিটে ছেড়ে যাবে এবং ঢাকায় পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬টা ১০মিনিটে। ঢাকা থেকে দ্রুতযান ছাড়বে রাত আটটায় এবং পঞ্চগড় পৌঁছাবে পরদিন সকাল ৬টা ৩৫ মিনিটে।
অপরদিকে একতা এক্সপ্রেস পঞ্চগড় থেকে ছাড়বে প্রতিদিন রাত নয়টায় এবং ঢাকায় পৌঁছাবে পরদিন সকাল আটটা ১০ মিনিটে। ঢাকা থেকে একতা এক্সপ্রেস ছাড়বে প্রতিদিন সকাল ১০টায় এবং পঞ্চগড় পৌঁছাবে রাত আটটা ৪৫ মিনিটে। দ্রুতযান ও একতা এক্সপ্রেসের প্রতিটির বগির সংখ্যা ১৩টি।
রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রতিটি জেলা শহর থেকে রেলপথ উন্নয়নে বর্তমান সরকারের নেয়া পরিকল্পনার অংশ হিসেবে পঞ্চগড়-ঢাকা রেলপথে আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালু করা হলো। সরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনা অনুযায়ী পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা রেলপথ নির্মাণ করা হবে। ইতোমধ্যে বিশেষজ্ঞ পর্যায়ে সমীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। আগামী এক বছরের মধ্যে এটি দৃশ্যমান হবে।
প্রসঙ্গত, উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের মানুষের সরাসরি ঢাকা পর্যন্ত ট্রেন চলাচলের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে সরকার ২০১১ সালে দিনাজপুরের পার্বতীপুর থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত ১৫০ কিলোমিটার মিটারগেজ লাইন ডুয়েল গেজে রুপান্তরসহ রেললাইন ও স্টেশন আধুনিকায়নের কাজ শুরু করে।
২০১৩ সালে পঞ্চগড়ে এক জনসভায় পঞ্চগড় থেকে পাবর্তীপুর পর্যন্ত আধুনিক রেললাইন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের আওতাধীন ৯৮২ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০১৬ সালে এই আধুনিকায়ন প্রকল্পের কাজ শেষ হয়। এরপর  ২০১৭ সালের ১৭ জুন রেলমন্ত্রী মজিবুল হক পঞ্চগড় থেকে দিনাজপুর পর্যন্ত দুইটি শাটল ট্রেন উদ্বোধন করেন। পঞ্চগড় রেলস্টেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী শিগগিরই পঞ্চগড়-ঢাকা আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালুর আশ্বাস দেন।

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply