sponsor

sponsor

Slider

আন্তর্জাতিক

জাতীয়

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

Facebook Like Box

» » ভাইফোঁটার আলোয় উজ্জ্বল মালদহের নিষিদ্ধ পল্লীও



ওরাও কারোর দিদি বা কারোর বোন৷ হয়ত পেটের দায়ে তাদের এই পেশায় চলে আসা৷ কিন্তু সম্পর্কের বাঁধন তাতে আলগা হয় না৷ সেই সম্পর্কের সম্মানে এবার মালদহের নিষিদ্ধ পল্লীতেও জ্বলে উঠল ভাইফোঁটার আলো৷ সারা রাজ্যে এই প্রথম এই ধরণের উদ্যোগ নেওয়া হল মালদহে৷


যৌনকর্মীরা ফোঁটা দিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা এলাকার কাউন্সিলর কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরীকে৷ উপস্থিত ছিলেন ওই এলাকারই আরেক কাউন্সিলর প্রসেনঞ্জিত দাস সহ এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যরা। মালদহ শহরের অক্রমনি উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০০২ সালের ছাত্ররা আজ প্রতিষ্ঠিত। সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠিত তারা। তাই তারা সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। ভাইফোঁটার দিনে তারা অভিনব অনুষ্ঠানের আয়োজন করল। মালদহ জেলার একমাত্র নিষিদ্ধ পল্লীর মহিলাদের হাতে ভাইফোঁটা নিলেন। ভাইফোঁটা দিতে পেরে খুশি মহিলারাও।



সংস্থার পক্ষ থেকে জানা গিয়েছে, বাংলায় এমন উদ্যোগ প্রথম। আগামী বছর গুলিতেও এইরকম উদ্যোগ নেওয়া হবে।
এই ধরনের ভাইফোঁটার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে খুশি যৌন কর্মীরাও।

জেলার প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী জানান, এমন উদ্যোগ খুব উৎসাহ দেয়। পিছিয়ে পড়া সমাজের অবহেলিত এই সকল মহিলাদের পাশে দাড়াতে পেয়ে খুশি তারা। তিনি আরও বলেন এর আগে এই ধরনের কোনও অনুষ্ঠানে তিনি যোগ দেওয়ার সুযোগ পাননি। এটি একটি অভিনব প্রয়াস। আগামী দিনেও তিনি এই ধরনের অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।


স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্য তমাল কৃষ্ণ বসাক বলেন, ‘এরা সমাজের একজন। তাই সমাজে যাতে প্রত্যেকে নিজেদের স্বত্বা নিয়ে আনন্দ করে বাঁচতে পারে। সেই কারণে আমরা এই অনুষ্ঠানে অঙ্গিকার বদ্ধ হয়েছি। যাতে তারাও এই ধরনের আনন্দ সামিল হতে পারে।’

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply