sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » বর্ণবাদী স্ত্রীর কারণে চাকরি হারালেন ফুটবলার





বর্ণবাদী স্ত্রীর কারণে চাকরি হারালেন ফুটবলার পেশাদার ফুটবল ক্লাবগুলোতে খেলোয়াড় নিয়োগ নিয়ে থাকে নানা নিয়ম। যেকোনো ক্লাব চাইলেও একজন খেলোয়াড়কে হুট করে অব্যাহতি দিতে পারে না। অনেক সময় মৌসুমের পরে মৌসুম না খেলেও বেতন নেন অনেকে। অথচ মাত্র ছয় মাসের মাথায় কিনা ক্লাব থেকে বিদায় নিতে হলো সার্বিয়ান খেলোয়াড় আলেক্সান্দার কাতাইকে। স্ত্রীর বর্ণবাদী মন্তব্যের কারণে তাকে অব্যাহতি দিয়েছে এলএ গ্যালাক্সি ক্লাব! পুরো যুক্তরাষ্ট্র যখন উত্তাল জর্জ ফ্লয়েডের ঘটনায়, ঠিক তখনই আলেক্সন্দারের স্ত্রী টি কাতাই ইন্সটাগ্রামে লিখলেন ‘আন্দোলনকারীদের গুলি করে মারা উচিৎ’। এছাড়া আন্দোলনকারীদের তিনি গবাদি পশুর সাথে তুলনা করেছেন ওই পোস্টে। গত বুধবার সার্বিয়ান ভাষায় কিছু ছবি দিয়ে লিখেছেন, ‘এই প্রতিবাদকারীদের খুন করা উচিত।’ আরেকটি ছবিতে কৃষ্ণাঙ্গদের ‘জঘন্য গবাদি পশু’ বলেছেন। আরেকটি পোস্টে বর্ণবাদী মিম (ছবি দিয়ে রসিকতা) দিয়েছেন টি কাতাই। এমন বর্ণবাদী আচরণ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে বেশি সময় লাগেনি। পরদিনই এমএল গ্যালাক্সির সমর্থকেরা স্টেডিয়ামের বাইরে এসে ক্লাব থেকে কাতাইকে বাদ দেয়ার আবেদন করেছে। তাদের হাতে ব্যানারে লেখা ছিল- ‘আমাদের ক্লাবে কোনো বর্ণবাদী থাকবে না’। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্লাবকে জানিয়ে দিয়েছেন, সঠিক কাজটা কর এলএ গ্যালাক্সি। এলএ গ্যালাক্সিও এক বিবৃতিতে এমন বর্ণবিদ্বেষী আচরণের নিন্দা জানায়। এবং পোস্ট মুছে ফেলার অনুরোধ জানায় ক্লাবটি। এ ঘটনায় লজ্জিত কাতাই জানিয়েছেন, তার স্ত্রীর পোস্ট গ্রহণযোগ্য নয়। ইনস্টাগ্রামে তিনি লিখেছেন, আমি এমন মানসিকতার নই এবং আমার পরিবারেও এসব সহ্য করা হয় না। আমার পরিবার একটা ভুল করেছে এবং আমি এর পূর্ণ দায়ভার নিচ্ছি। তবে তার এমন ক্ষমা প্রার্থনা কাজে দেয়নি। গতকাল এলএ গ্যালাক্সি জানিয়েছে, খেলোয়াড় ও ক্লাব দুই পক্ষ যৌথভাবে চুক্তি বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রসঙ্গত, ২৫ মে এক শেতাঙ্গ পুলিশের নিষ্ঠুরতায় মৃত্যু হয়েছে জর্জ ফ্লয়েডের। ৮ মিনিট লম্বা ভিডিওতে যেভাবে ফ্লয়েডের মৃত্যুর দৃশ্য দেখা গেছে তা দেখে যেকোনো স্বাভাবিক মানুষ অসুস্থ বোধ করবেন। এমন ভয়ঙ্কর আচরণের প্রতিবাদে বিক্ষোভ হচ্ছে আমেরিকাজুড়ে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply