sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রিতে সাড়া মিলছে, বাড়তি সুবিধা দিচ্ছে খামারিরা





 
অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রিতে সাড়া মিলছে, বাড়তি সুবিধা দিচ্ছে খামারিরা

 করোনার সংক্রমণ এড়াতে খামারেই হবে পশু জবাই। ক্রেতাদের বাড়তি সুবিধা দিতেই, রাজধানীর বেশ কয়েকটি খামার এরই মধ্যে পশু বিক্রি থেকে শুরু করে মাংস বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছে। এ ব্যাপারে নিয়ে আগ্রহ বাড়ছে  ক্রেতাদেরও। এরই মধ্যে আগাম বুকিং পেয়েছেন, অনেক খামারি। করোনাকালে একে উত্তম পন্থা বলছেন, বিশেষজ্ঞরা। 

 করোনাভাইরাস সংক্রমণের শীর্ষ অবস্থায় উদযাপিত হতে যাচ্ছে মুসলমানদের দ্বিতীয় বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা। সংক্রমণ কমাতে এবারের ঈদে সীমিত পরিসরে রাজধানীসহ সারাদেশে বসবে পশুর হাট।
তবে সংক্রমিত হওয়ার আশংকায় হাটে যেতে তেমন একটা উৎসাহবোধ করছেন না ক্রেতারা। বিকল্প হিসেবে ডিজিটাল মাধ্যমে পশু কেনা-বেচায় আগ্রহ দেখাচ্ছেন অনেক ক্রেতা। কোরবানির পশু বিক্রির পাশাপাশি এবার খামারেই পশু জবাই করে বাসায় মাংস পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা রেখেছেন খামারিরা। ক্রেতাদের আকর্ষণ করতে নানা অফারও দিচ্ছেন তারা।
খামারিরা বলছেন, মাংস কেটে বাসায় পৌঁছে দাওয়ার বিষয়টা বাংলাদেশে এখন অনেকেই পছন্দ করছে।  ইদের দিন বা ইদের পরের দিন মাংস কেটে ফ্রিজার ভ্যান এর মাধ্যমে পৌঁছে দিব বা  গ্রাহক যেভাবে চাইবে সেভাবে কেটে পৌঁছে দিব।  এধরনের সকল ব্যবস্থা আমরা নিয়ে ফেলছি। 
মহামারীকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাড়িতে কোরবানি দেয়া হলে তাতেও সংক্রমণের ঝুঁকি থাকে বলে জানান আইইডিসিআর সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, ডা. মুস্তাক হোসেন।  
তিনি বলেন, মাংস বিতরণ এর সময় ঝুঁকি থাকে। কাচা মাংস যদি ফ্রিজে রাখা হয় তাহলে ভাইরাস বেঁচে থাকার সম্ভাবনা থাকে। তাই কোনও একটি সংগঠন বা খামারির মাধ্যমে পশু করোবানির ব্যবস্থাকে উত্তম বলে মনে করেন, এই স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ।  
ডা. মুস্তাক হোসেন বলেন, সৌদিতে যারা হজ করতে যায়, দেখবেন কারা কোরবানি দিচ্ছে বা কে দিচ্ছে কেউ যানে না।  তবে আমাদের ঐতিহ্য আমরা হাটে যেয়ে গরু দেখে পছন্দ করে কিনব।  বাসায় নিয়ে আসব। সেটা কোরবানি হবে, নিজে বিতরণ করব। এটা স্বাস্থ্যসম্মত নয়।
বেসরকারি খামারিদের পাশাপাশি, রাষ্ট্রীয়ভাবেও এমন ব্যবস্থা করার পরামর্শ দিলেন এই স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply