sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » কুমিল্লা-নাটোরে দুটি কারখানায় অভিযান, জরিমানা





কুমিল্লা-নাটোরে দুটি কারখানায় অভিযান, জরিমানা
  
কুমিল্লায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত ও নাটোরে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর অভিযান পরিচালনা করে দুইটি কারখানায়কে জরিমানা করেছে।

কুমিল্লায় বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ব্যতিত অননুমোদিত ব্র্যান্ডের নামে ডিস্টিল ওয়াটার, ব্যাটারির পানি এবং খাবার পানি উৎপাদন ও প্যাকেটজাত করে বিপণনের দায়ে মেসার্স চৌধুরী মার্কেটিং নামে এক কারখানার র‌্যাব অভিযান চালিয়ে মালিকসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে।

এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সাঈদ ওই কারখানার মালিককে দুই লাখ টাকাসহ অপরজনকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। সিলগালা করে দেয়া হয়েছে মেসার্স চৌধুরী মার্কেটিং নামে ওই প্রতিষ্ঠানটি।

রোববার (১৯ জুলাই) দিবাগত রাতে কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় র‌্যাব ওই কারখানায় অভিযান চালায়। অভিযানে গ্রেফতার  হন কারখানার মালিক মো. আব্দুল মান্নান চৌধুরী (৪৫)। তিনি চৌদ্দগ্রাম উপজেলার সমসপুর এলাকার আব্দুর রহমান চৌধুরী ছেলে। গ্রেফতার আরেকজন কারখানার ডিস্ট্রিবিউটর মো. মহিউদ্দিন (৩৫)। তিনি কুমিল্লা নগরীর দক্ষিণ চর্থা এলাকার আব্দুল কুদ্দুছের ছেলে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সাঈদ জানান, অননুমোদিত ব্র্যান্ডের নামে ডিস্টিল ওয়াটার, ব্যাটারির পানি এবং খাবার পানি উৎপাদন ও প্যাকেটজাত করে বিপণনের অপরাধগুলো আমলে নিয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর ৫০ ও ৫১ ধারা মোতাবেক তাদের এ জরিমানা করা হয়েছে।  

কুমিল্লা র‌্যাব ১১-সিপিসি-২ এর কোম্পানি অধিনায়ক মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব জানান, মেসার্স চৌধুরী মার্কেটিং নামক প্রতিষ্ঠানটি প্রথমে খাবার পানির জারের ব্যবসায় নিয়োজিত ছিল। পরবর্তীতে বেশি লাভের আশায় বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ব্যতীত, কেমিস্টবিহীন, সুনির্দিষ্ট মান নিয়ন্ত্রণ ছাড়াই ফুড গ্রেড নয় এমন প্লাস্টিক মোড়কে পানি উৎপাদন ও সংরক্ষণ করে বিপণন করে আসছিল। এছাড়াও কোন রকম অনুমতি ছাড়াই খাবার পানিকে জারিক্যানে সিল্ড মোড়কে ব্র্যান্ডের নকল ও ভেজাল ব্যাটারি পানি এবং নামবিহীন ব্যাটারির পানি উৎপাদন ও বিপণন করে আসছিল।

গ্রেফতার আব্দুল মান্নান চৌধুরী (৪৫) নিজেই প্রতিষ্ঠানের মালিক ডিস্ট্রিবিউটর মার্কেটিংয়ের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। কেমিস্ট না থাকলেও সে নিজেই কেমিস্ট এর দায়িত্ব পালন করতো, যদিও তার শিক্ষাগত যোগ্যতা বাণিজ্য বিভাগে এসএসসি। প্রতিষ্ঠানটির মান নিয়ন্ত্রণহীন ও অননুমোদিত মিনারেল কনটেন্টেড খাবার পানি ও ব্যাটারির পানি উৎপাদন ও বাজারজাত করে দীর্ঘদিন যাবৎ ভোক্তাদের সাথে প্রতারণা করে আসছিল।

এদিকে, নাটোর শহরের বনবেলঘড়িয়া এলাকার একটি নকল তার তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআইয়ের সহকারি পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমের নেতৃত্বে রোববার দুপুরে ওই করাখানায় অভিযান চালানো হয়। এসময় সেখানে অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরি নিম্ন মানের ঝুঁকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক তার উৎপাদন করে প্রচলিত বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নামে বাজারজাত করার প্রমাণ পায় সংস্থাটি।

পরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে অবহিত করেন তারা। খবর পেয়ে ভোক্তা অধিকার দপ্তরের সহকারি পরিচালক শামসুল আলম ক্যাব কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কারখানা মালিক আব্দুল মান্নানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে। আর ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করে দেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply