sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » ফেঁসে যেতে পারেন যেসব বলিউড তারকা!




ফেঁসে যেতে পারেন যেসব বলিউড তারকা!

মৃত্যুর প্রায় তিন মাস পর সুশান্ত মামলার নতুন মোড় নিয়েছে। সুশান্তকে মাদক সরবরাহসহ সেবন করতেন অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন তার প্রেমিকা অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। রিয়ার ভাইও গ্রেফতার হয়েছেন। ভারতীয় আইন অনুযায়ী, মাদক সরবরাহ ও লেনদেনের মামলায় রিয়ার কমপক্ষে ১০ বছরের জেল হতে পারে। তবে জেলে যাওয়ার আগে হয়তো বলিউডের আরও ২৫ জনকে ফাঁসিয়ে যাবেন রিয়া। নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) জিজ্ঞাসাবাদে বলিউডে মাদক সেবন ও কারবারে জড়িত এমন ২৫ জনের নাম ফাঁস করেছেন রিয়া। কারা আছেন সেই ২৫ জনের তালিকায়? তদন্তের খাতিরে তাদের নাম প্রকাশ করেনি এনসিবি। তবে ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যম সূত্র জানিয়েছে, ওই তালিকায় রয়েছেন সাইফ আলী খানের কন্যা কেদারনাথ অভিনেত্রী সারা আলি খান। আরও আছেন রাকুল প্রীত সিং, ডিজাইনার সিমোন খামবাট্টা, সুশান্তের বন্ধু ও সাবেক ম্যানেজার রোহিনি আয়ার এবং চিত্রনির্মাতা মুকেশ ছাবরা। এদিকে গণমাধ্যমে নিজের নাম আসায় রাকুল প্রীত সিং গত ৯ সেপ্টেম্বর থেকে গা-ঢাকা দিয়েছেন। নিজের ফ্ল্যাটে আর আসছেন না। জানা গেছে, রাকুল প্রীত যে ফ্ল্যাটে থাকেন, তা সাইফ আলি খানের বাড়ির ঠিক বিপরীতে। রাকুলের ফ্ল্যাটে প্রায়ই দেখা যেত সারাকে। এ বিষয়ে এনসিবির কাছে রিয়ার দাবি, রাকুল প্রীত, সারা ও প্রয়াত সুশান্তের সঙ্গে মাঝে মধ্যেই মাদক সেবন করতেন রিয়া। তবে রিয়ার এমন মন্তব্যের পর সারা আলি খানের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য আসেনি। জানা গেছে, রিয়ার বক্তব্যের পর মাদককাণ্ডে জড়িত অন্তত ১৫ জন বলিউড তারকা এখন এনসিবির পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। তাদের নাম প্রকাশ না করলেও এরা সবাই বলিউডের বি-ক্যাটাগরির অভিনেতা বলে জানিয়েছেন তারা। এদিকে সুশান্তের মৃত্যুর ঘটনার তদন্তে নেমে রিয়াকে মাদক সংশ্লিষ্টটায় গত ৮ সেপ্টেম্বর গ্রেফতার করা হয়। অভিনেত্রীকে পেশ করা হয় ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে। তার ১৪ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজত মঞ্জুর করেন ম্যাজিস্ট্রেট। খারিজ করা হয় প্রথম দফা জামিনের আবেদন। সেশন কোর্টে নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) দাবি করে, এই মুহূর্তে রিয়াকে জামিনে ছাড়া হলে তিনি প্রভাবশালী যোগাযোগ কাজে লাগিয়ে তথ্যপ্রমাণ নয়ছয় করতে পারেন। এ বার জামিনের আবেদনের সময় অভিযোগ আনা হয়, তার থেকে জোর করে মাদক গ্রহণের ব্যাপারে স্বীকারোক্তি নেওয়া হয়েছে। রিয়া জানান, জেলে তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হয়েছে। তাকে শারীরিক অত্যাচার এবং ধর্ষণের ভয় পর্যন্ত দেখানো হয়েছে বলে দাবি অভিনেত্রীর। মানসিক এবং শারীরিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছেন বলে জানান ২৮ বছর বয়সী অভিনেত্রী। রিয়ার অভিযোগ, টানা ৮ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের সময় তাকে কোনও রকমভাবেই আইনি পরামর্শ নেওয়ার জন্য তার আইনজীবীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে দেওয়া হয়নি। বাড়ি থেকে জামাকাপড় এলেও তা ফিরিয়ে দেওয়া হয়। অন্যদিকে, রিয়ার আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডের দাবি, তার মক্কেল নির্দোষ। মিথ্যা মামলায় তাকে ফাঁসানো হয়েছে। তিনি জানান, জেরার সময় কোনও মহিলা অফিসার ছিলেন না, যা আইন অনুসারে বাধ্যতামূলক। আপাতত রিয়া বাইকুল্লা জেলে রয়েছেন। এনসিবি-র দাবি, জেরায় রিয়া স্বীকার করেন, তিনি সুশান্তকে মাদকের জোগান দিতেন। কেন্দ্রীয় সংস্থার দাবি, তিনি ড্রাগ সিন্ডিকেটের সদস্য। এনসিবি-র পাশাপাশি সিবিআই এবং ইডি এই ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে। ইতিমধ্যেই এমস-এ সুশান্তের ভিসেরা ফের পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে, বিষক্রিয়ায় তার মৃত্যু ঘটেছে কিনা জানার জন্য।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply