sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » বাগেরহাটের ফকিরহাটে জমে উঠেছে শামুকের হাট।




বাগেরহাটে জমে উঠেছে শামুকের হাট বাগেরহাটের ফকিরহাটে জমে উঠেছে শামুকের হাট। গলদা চিংড়ির প্রধান খাদ্য হিসেবে প্রতিদিন সকালে শত শত বস্তা শামুক বেচাকেনা হয় এই হাটে। মানসম্মত খাদ্য না পাওয়ায় চিংড়ির খাবার হিসেবে শামুককে বেছে নিয়েছেন চাষিরা। তবে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জানান, শামুকের পরিবর্তে চিংড়ির জন্য মান সম্মত খাবার ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। প্রতিদিন সূর্য ওঠার আগেই বাগেরহাটের ফকিরহাটের ফলতিতা বাজারে জমে ওঠে শামুকের বেচাকেনা। মাদারীপুর, ট্যাকেরহাট, কাশিয়ানি, গোপালগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলা থেকে ট্রাক যোগে হাজার হাজার বস্তা শামুক হাটে এনে বিক্রি করেন ফড়িয়ারা। জুন মাস থেকে ৬ মাস ধরে প্রতিদিন চলে শামুক বেচা-কেনা। প্রতিবস্তা শামুক ৪'শ থেকে সাড়ে ৪'শ টাকায় বিক্রি হয়। এই হাটে নারী শ্রমিকরা প্রতিবস্তা শামুক ভেঙে ৭০ টাকা করে আয় করেন। স্থানীয় ৩ শতাধিক নারী ও পুরুষের সংসার চলে শামুকের হাটে কাজ করে। চিংড়ির জন্য ভাল মানের খাবার না পাওয়ায় শামুকের উপর ভরসা করতে হয় চাষিদের। ইউপি চেয়ারম্যান হিটলার গোলদার বলেন, সরকার যদি মানসম্মত খাবার দিকে লক্ষ্য দেন তাহলে শামুক খোলার দিকে এলাকাবাসী ঝুঁকবে না। এদিকে শামুক ব্যবহার না করার জন্য চাষিদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বলে জানান জেলা মৎস্য কর্মকর্তা। জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মোঃ খালেদ কনক বলেন, আমাদের মনিটরিং অব্যাহত রয়েছে। আরো জোরদার করা হবে। দেশের শীর্ষ গলদা চিংড়ি উৎপাদনকারী এ জেলায় ৫০ হাজার ২৩৯টি গলদা চিংড়ি ঘের ও ৩২ হাজার গলদা চিংড়ি চাষি রয়েছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply