sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » বলিভিয়া বাধা টপকাতে পারবে মেসিবাহিনী?




বলিভিয়া বাধা টপকাতে পারবে মেসিবাহিনী?

দক্ষিণ অ্যামেরিকা অঞ্চলে থেকে কাতার বিশ্বকাপের টিকিট পেতে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা। লা পাজে তাদের প্রতিপক্ষ স্বাগতিক বলিভিয়া। অতীত রেকর্ড পক্ষে না থাকায় ম্যাচের আগে বেশ দুশ্চিন্তায় আছে আলবেসিলেস্তারা। অন্যদিকে, আকাশী-নীল শিবিরকে হারিয়ে পয়েন্ট ঘরে তুলতে মুখিয়ে বলিভিয়ানরা। ম্যাচটি শুরু হবে মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় রাত ২টায়। সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে সাড়ে তিন হাজার মিটার উঁচুতে অবস্থিত স্তাদিও হার্নান্দো সিলেস স্টেডিয়াম। পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু শহরগুলোর একটি এই লা পাজ তাই ল্যাটিন অঞ্চলের বেশিরভাগ ফুটবলারের কাছেই অপয়া। আর দলটা যদি হয় আর্জেন্টিনা, তাহলে তো পোয়া বারো। ঘুমের মাঝেও যে ২০০৯ এর ফলাফলটা তাড়িয়ে বেড়াবে তাদের। আকাশী-নীলের সমর্থক হলে, আপনি হয়তো বলবেন এতো আগের ম্যাচ নিয়ে পড়ে থাকার কি আছে। তাহলে আপনাদের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি, আর্জেন্টিনার ২০১৮ বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলাটাও ২-০ গোলে হারিয়ে কঠিন করে দিয়েছিলো এ বলিভিয়ানরাই। স্টেডিয়াম আর শহরের চিন্তা বাদ দিলেও যে খুব একটা স্বস্তি পাবে আলবেসিলেস্তারা, তা যেন ভাবতে যাবেন না। স্কোয়াডের ইনজুরি ভূত চেপে বসেছে স্ক্যালোনির ঘাড়ে। এ ম্যাচে তিনি পাবেন না সিরি আ'য় দুর্দান্ত ফর্মে থাকা পাওলো দিবালাকে। পেটের পীড়ায় ম্যাচটা খেলতে পারছেন না এ ফরোয়ার্ড। ইকুয়েডরের বিপক্ষে তার অভাবটা ভালোই টের পেয়েছে আকাশী-নীল বাহিনী। লা পাজ জয় করতে চাইলে, তাই ভিন্নভাবে ভাবতে হবে আর্জেন্টাইন কোচকে। সমস্যা এখানেই শেষ নয় স্ক্যালোনির জন্য। মার্কাস রোহো, অ্যাগুয়েরো, জিওভানি লো সেলসোকেও তিনি, পাবেন না ইনজুরির কারণে। প্রচণ্ড শক্তিশালী আক্রমণভাগ থাকার পরও প্রথম ম্যাচে নূন্যতম ব্যবধানের জয় ভাবিয়ে তুলেছে তাকে। দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলের ম্যাচ হওয়ায়, কিছুটা ফ্যাটিগ থাকতে পারে বলে সমর্থকরা ভাবলেও, শিষ্যদের নিয়ে সন্তুষ্ট নন কোচ নিজেই। তবে, আর্জেন্টিনার জন্য আশার আলো লিওর উপস্থিতি। ইকুয়েডর ম্যাচের একমাত্র গোলটিও এসেছিলো জাদুকরের পা থেকেই। বৈরি আবহাওয়া জয় করতে হলে তাই তার ওপর ভরসা করেই বসে থাকতে হবে আর্জেন্টিনাকে। আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্ক্যালোনি বলেন, 'ম্যাচটা খুব কঠিন হবে। লা পাজ এমন একটা শহর, যেখানে কেউই ফুটবল খেলতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে না। তবে, আবহাওয়ার ওপর আমাদের কোন হাত নেই। এটা মেনে নিয়েই আমাদের খেলতে হবে। তার ওপর আমার দলের ইনজুরির সংখ্যাটাও বেড়ে চলেছে। আমি এখনো সেরা দলটাকে পাইনি। তবে, যারা আছে তাদের ওপর বিশ্বাস রাখছি। জয়ের ধারা নষ্ট করতে চাইনা। এখান থেকে পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পারলে দারুণ হবে। লিও ভালো ছন্দে আছে। ওকেই দায়িত্বটা নিতে হবে।' এদিকে, ফর্মটা যে খুব একটা ভালো যাচ্ছে স্বাগতিকদের তা কিন্তু নয়। নিজেদের প্রথম ম্যাচে ব্রাজিলের বিপক্ষের বড় হার তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে সিজার ফ্যারিয়াসকে। যদিও, আর্জেন্টিনার বিপক্ষের ম্যাচটা হোম গ্রাউন্ডে হওয়ায়, কিছুটা আশা দেখছেন তিনি। ইনজুরি শঙ্কা নেই বলিভিয়ান শিবিরে। তার ওপর বিশাল এক স্কোয়াড থাকায়, ফুটবলারদের যাচাই বাছাইও করতে পারবেন ফ্যারিয়াস। আর অতীত ইতিহাসের সুখস্মৃতি তো রয়েছেই। তবে, বাজির দরে এগিয়ে আছে আর্জেন্টাইনরাই। কাছাকাছি সময়ের পরিসংখ্যান ভালো না হলেও, জয়ের পাল্লায় ভারী আলবেসিলেস্তারা। বাকিটা এখন নির্ভর করছে মাঠের খেলার ওপর।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply