sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » চোখের পানি ফেলতে দেখা গেছে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে




চোখের জলে ক্ষমা চাইলেন কিম জনগণকে তাদের ত্যাগের জন্য ধন্যবাদ জানাতে গিয়ে চোখের পানি ফেলতে দেখা গেছে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং

। দেশের গভীর সংকট মোকাবেলায় কিম সাধারণ মানুষের ওপর কতটা নির্ভরশীল, তার সর্বাত্মক বহিঃপ্রকাশ দেখা গেল এবার। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। যদিও নিষ্ঠুর শুদ্ধি অভিযানের মাধ্যমে বিচ্ছিন্ন দেশটির ওপর নিজের শাসন সুসংহত করে যাচ্ছেন এ তরুণ নেতা। উত্তর কোরীয় পর্যবেক্ষকরা বলছেন, তার পাগলাটে বাবা কিম জং ইলের চেয়ে নিজেকে আরও বেশি ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক নেতা হিসেবে তুলে ধরতে চাচ্ছেন কিম জং উন। শনিবার সামরিক কুচকাওয়াজে কথা বলার সময় আবেগী হয়ে পড়তে দেখা গেছে তাকে। জাতীয় বিপর্যয় ও করোনাভাইরাস মহামারী সুরক্ষায় যথাযথ সাড়া দেয়ায় সেনাদের প্রতি তিনি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। এ ছাড়া জীবনযাত্রার মান বাড়াতে ব্যর্থ হওয়া নাগরিকদের কাছেও তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেন। উত্তর কোরীয়বিষয়ক গবেষক রাচেল মিন ইয়ং লি বলেন, উনের বিনয়, সারল্য, চোখের পানি ও কণ্ঠরোধ একেবারেই অস্বাভাবিক। বিশ্লেষকরা বলছেন, এ ঘটনা তার প্রশাসনের ওপর তীব্র চাপের বহিঃপ্রকাশ। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, করোনাভাইরাস মহামারী মোকাবেলায় ব্যর্থতার কারণে দেশজুড়ে বিশৃঙ্খলা-হইহুল্লোড় তৈরি হওয়াতেই ক্ষমা চাইতে বাধ্য হন তিনি। কিম বলেন, আমাদের জনগণ আমার ওপর আকাশের মতো বিশাল ও সাগরের মতো গভীর আস্থা রেখেছেন। কিন্তু এই আস্থা সন্তোষজনকভাবে ধরে রাখতে আমি ব্যর্থ হয়েছি। কোরিয়া টাইমস তার মন্তব্যকে ‘আমি তার জন্য সত্যিকার অর্থে দুঃখিত’ বলে ব্যাখ্যা করেছে। উত্তর কোরিয়ার সাবেক দুই নেতা- নিজের দাদা ও বাবাকে উদ্ধৃত করে কিম বলেন, ‘এই দেশকে মহান দুই কমরেড কিম ইল সাং ও কিম জং ইলের নীতি-আদর্শ ধরে রেখে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য মহান দায়িত্ব আস্থার সঙ্গে আমাকে দিয়েছে জনগণ। কিন্তু আমাদের জনগণের জীবনের বিভিন্ন সমস্যা থেকে তাদের বের করে আনার জন্য পর্যাপ্ত ও যথেষ্ট প্রচেষ্টা আমি নিতে পারিনি।’ করোনাভাইরাসের কারণে চীনের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অর্থনৈতিক চাপে পড়েছে উত্তর কোরিয়া। স্বৈরশাসনের দেশটির সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার চীন। অবশ্য উত্তর কোরিয়া নিজেদের দেশে একজনও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি বলে দাবি করে আসছে। সেনা উপস্থিতি, ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ও ট্যাংকসহ সামরিক শক্তিতে নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিলেও করোনার কারণে বিশ্বজুড়ে মানুষের কাছে সহায়তা চান কিম জং উন। এ ছাড়া উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের কথাও জোর দিয়ে বলেন তিনি। ওয়ার্কার্স পার্টির ৭৫তম জন্মদিনে বিশাল সামরিক মহড়ার আয়োজন করেছে উত্তর কোরিয়া। এ মহড়া থেকে আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply