sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » মেসি খেলা ছাড়লে টিভিটা ছুঁড়ে ফেলবেন তিনি




জে কে রাওলিংয়ের বেস্টসেলার সৃষ্টি হ্যারি পটার সিরিজের কথা কমবেশি সবারই জানা। যার পৃষ্ঠায় পৃষ্ঠায় রোমাঞ্চ আর চমকে ঠাসা জাদুর খেলে বুঁদ হয়ে থাকেন পাঠকরা। পর্দায় চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলেছেন ড্যানিয়েল র‍্যাডক্লিফ, দর্শকরাও তাতেও বুঁদ। মেসি তেমনি গোল বলটা নিয়ে রোমাঞ্চ আর জাদুময়তায় চুম্বকের মতো আটকে রাখেন ফুটবলপ্রেমীদের। বার্সার আর্জেন্টাইন মহাতারকাকে তাই ফুটবলের হ্যারি পটারই মনে হয় ক্রিস্টিয়ান ভিয়েরির। ক্রিস্টিয়ান ভিয়েরি। ইতালির জার্সিতে ৪৯ ম্যাচ খেলা সেন্টার ফরোয়ার্ড ১৯৯৬-৯৭ মৌসুমে জুভেন্টাসের হয়ে সিরি আ জিতেছিলেন। সেই জুভেন্টাস যখন মেসির রোমাঞ্চ জাগানো ফুটবলের কাছে হেরে বসল চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপপর্বের ম্যাচে, তখন নিজের মুগ্ধতা প্রকাশে মেসিকে হ্যারি পটারের সঙ্গে তুলনা করেছেন তিনি। বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন ‘অসাধারণ বার্সেলোনা, তারা ছয়-সাতটি গোল করতে পারত অনায়াসে। তারা অসাধারণ খেলেছে।’ বিজ্ঞাপন ‘মেসি একজন জাদুকর, সে ফুটবলের হ্যারি পটার। যখন সে খেলা ছেড়ে দেবে, টিভিটাকে আমি দূরে কোথাও ছুঁড়ে ফেলতে যাচ্ছি। টিভিতে তখন আর কিছুই দেখার থাকবে না আমার। আমি হয়ত নেটফ্লিক্স দেখে সময় কাটাব, এ পর্যন্তই। কারণ যখন সে থামবে, তখন আর কিছুই দেখার থাকবে না।’ লা লিগায় দুঃসময় যাচ্ছে, তিন দিন আগে মিলেছে এল ক্ল্যাসিকোতে হারের ক্ষত। টাটকা সেই দুঃস্মৃতি সঙ্গী করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নেমেছিল বার্সা। লিওনেল মেসি ও উসমানে ডেম্বেলের গোলে জুভেন্টাসের মাঠ থেকে দারুণ জয় সঙ্গী করে ফিরেছে। ইউরোপ সেরার মঞ্চে নতুন মৌসুমে টানা দ্বিতীয় সাফল্য যেটি রোনাল্ড কোম্যানের দলের। বুধবার রাতে ‘জি’ গ্রুপের ম্যাচে তুরিনের বুড়িদের মাঠে ২-০ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা। মাঠে দেখিয়েছে আধিপত্য। ম্যাচে ডেম্বেলেকে গোলের বলটি বানিয়ে দিয়েছেন মেসি। নিজের গোলটি করেছেন পেনাল্টি থেকে। তিনি ও গ্রিজম্যান-ডেম্বেলে মিলে যদি অতগুলো সুযোগ নষ্ট না করতেন, ব্যবধানটা আরও বড়ই হতে পারত। মেসির খেলায় মুগ্ধতার পাশাপাশি সেটাই মনে করিয়ে দিয়েছেন ভিয়েরি। ২০০৪-০৫ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রথমবার পা রাখার পর দীর্ঘ সময়ে মেসির চেয়ে সতীর্থদের গোল করানোয় এগিয়ে কেবল ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। মেসির ইউরোপের মঞ্চে অ্যাসিস্ট যেখানে ৩৫ বার, রোনালদোর ৩৮টি। করোনা আক্রান্ত থাকার কারণে জুভদের পর্তুগিজ মহাতারকা অবশ্য এদিন মেসির বিপক্ষে নামতে পারেননি।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply