sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » বয়কট ফ্রান্স আন্দোলন: প্যারিসের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের দাবি




বয়কট ফ্রান্স আন্দোলন: প্যারিসের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের দাবি ঢাকায় একটি ইসলামি রাজনৈতিক দলের বিক্ষোভে

বায়তুল মোকাররমের সামনের এই বিক্ষোভ থেকেই দাবিগুলো তুলে ধরে ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ নামে রাজনৈতিক দলটি। বাংলাদেশে ইসলামপন্থী একটি দল ঢাকায় এক বিক্ষোভ থেকে ফ্রান্সের সাথে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার দাবি জানিয়েছে। ঢাকায় ফ্রান্সের দূতাবাস ঘেরাওয়ের কর্মসূচি নিয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নামের দলটির শত শত নেতাকর্মী আজ সকালে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। বিক্ষোভে ফ্রান্সের পতাকা এবং দেশটির প্রেসিডেন্টে এমানুয়েল ম্যাক্রঁর কুশপুত্তলিকা আগুন দিয়ে পোড়ানো হয়েছে। সেই বিক্ষোভ থেকে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের আহ্বানও জানানো হয়েছে। ফ্রান্সে ইসলাম এবং নবীর কার্টুন নিয়ে প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রঁর সাম্প্রতিক কিছু বক্তব্যের প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলন আজ ঢাকায় দূতাবাস ঘেরাওয়ের এই কর্মসূচি নিয়েছিল। সকালে দলটির নেতাকর্মীরা ঢাকায় বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তরগেটে জড়ো হয়ে সমাবেশ করেন। সমাবেশের পর ফ্রান্সের দূতাবাস ঘেরাও করার শ্লোগান তুলে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলকারিরা ঢাকার শান্তিনগর মোড়ে পুলিশের বাধার মুখে অবস্থান নিয়ে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে তাদের ঘেরাও কর্মসূচি শেষ করেন। ইসলামী আন্দোলনের আমীর সৈয়দ রেজাউল করীম সহ দলটির নেতারা সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। ফ্রান্সের সাথে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার দাবি ছবির উৎস,ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ছবির ক্যাপশান, ঢাকায় বায়তুল মোকারমের সামনে ইসলামি আন্দোলনের বিক্ষোভ। মি: করীম ফ্রান্সের সাথে কূটনেতিক সম্পর্ক ছিন্ন করা এবং বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ফ্রান্স সরকারের বিরুদ্ধে নিন্দা জানানোর দাবি সহ মোট পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরেছেন। ইসলামী আন্দোলন মুসলিম দেশগুলোর জোট ওআইসিকেও ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব নেয়ার দাবি করেছে। দলটি আগামী ২৯শে অক্টোবর জেলায় জেলায় বিক্ষোভ কর্মসূচি দিয়েছে। বাংলাদেশে ইসলামপন্থী দলগুলো এবং বিভিন্ন সংগঠন কয়েকদিন ধরে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের বক্তব্যের প্রতিবাদ করছে। ভিডিওর ক্যাপশান, ফ্রান্সের বিরুদ্ধে এরদোয়ান, ইমরান খানসহ মুসলিম দেশগুলোর ক্ষোভের কারণ কী?






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply