sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ডের লোগো উন্মোচন




শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ডের লোগো উন্মোচন করলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। সোমবার জাতীয় স্পোর্টস কাউন্সিল মিলনায়তনে মিডিয়া ব্রিফিং ও লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে লোগো উন্মোচন করেন তিনি। করোনাকালীন সংকটময় মুহূর্তে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশ এবং বৈশ্বিক যুবাদের অনন্য মানবিক অবদানের স্বীকৃতি দিতে ‘ঢাকা ওআইসি ইয়্যুথ ক্যাপিটাল ২০২০’-এর অধীনে প্রথমবারের মত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নামে ‘শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড ২০২০’ চালু হচ্ছে, যার মাধ্যমে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় যুবকদের একক ও দলীয়ভাবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার, সার্টিফিকেট ও সম্মাননা প্রদান করবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ২০২০ সালটি আমাদের জন্য বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ কেননা এ বছর আমরা আমাদের জাতির পিতা, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন করছি। যে কোনও আন্দোলনে বঙ্গবন্ধু যে অসীম সাহস প্রদর্শন করেছেন তা জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে বিশেষ করে যুবসমাজের জন্য আজও অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করে। এসময় তিনি করোনাকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় কর্তৃক দেশের যুব সমাজের উন্নয়নে গৃহীত নানাবিধ কার্যক্রমের চিত্র তুলে ধরে বলেন। গৃহীত কার্যক্রমের মাধ্যমে ৫ বছরে ১২ লাখ ৫ হাজার যুবকের আত্মকর্মসংস্থান এবং কর্মসংস্থান লক্ষ্যে প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়াও ই-কমার্স প্লাটফর্ম যুব পাইকারিসেল ডট কম, যুব ব্র্যান্ডিং ইত্যাদি উদ্যোগের মাধ্যমে প্রায় ৩ লাখ ২০ হাজার তরুণকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে প্রশিক্ষণ প্রদানের পাশাপাশি ৩ লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা হবে এবং এই প্রকল্পসমূহের মাধ্যমে ৫০ লক্ষের অধিক খামারি ও যুব উদ্যোক্তা সরাসরি উপকৃত হবে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব মাসুদ বিন মোমেন তিনি তার বক্তব্যে বলেন, এটা অত্যন্ত আনন্দের বিষয় যে অ্যাওয়ার্ডটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে দেয়া হচ্ছে যিনি তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশকে দারীদ্রপ্রবণতা হতে মুক্ত করেছেন। তিনি বলেন বাংলার সভ্যতা ঐতিহ্যগতভাবেই মানবতা, মানবিক মূল্যবোধ এবং ইসলামী সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের ভিত্তির উপর স্থাপিত। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে যোগদান (ভার্চুয়াল) করেন ইসলামিক কো-অপারেশন ইয়্যুথ ফোরামের (আইসিওয়াইএফ) প্রেসিডেন্ট তাহা আইহান। তিনি তার বক্তব্যে ইভেন্টের সফলতা কামনা করেন এবং তিনি মনে করেন যে, শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড যুব স্বেচ্ছাসেবা কার্যক্রমকে আরো বেগবান করবে। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আখতার হোসেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নামে প্রচলন করা এই অ্যাওয়ার্ড ও সম্মাননাকে সফল ও সুষ্ঠুভাবে লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে ১০টি ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড প্রদানের ঘোষণা দেয়া হয়- • মোস্ট ইন্সপায়ারিং ভলান্টিয়ার স্টোরি • মোস্ট ইমপ্যাক্টফুল ইনিশিয়েটিভ • বেস্ট ইনোভেটিভ আইডিয়া • কর্পোরেট সাপোর্ট ইন ভলান্টারি ইয়্যুথ অ্যাক্টিভিটিস • মোস্ট ইমপ্যাক্টফুল মিডিয়া পার্সোনেল • কমিউনিটি লিডারশিপ অ্যান্ড সার্ভিস • ইনভায়রনমেন্টাল রেসপন্স • অ্যাক্ট অব ব্রেভারি • সার্ভিস এক্সেলেন্স • আউটস্ট্যান্ডিং ভলান্টিয়ার অর্গেনাইজেশন আগ্রহীরা আগামী ১ নভেম্বর ২০২০ থেকে ‘https://www.youthpowerhouse.org/’ ওয়েবসাইটে গিয়ে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন এবং প্রতিযোগিতা সম্বন্ধে বিস্তারিত জানতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশন চলবে আগামী ৩১শে নভেম্বর পর্যন্ত। জাতীয় পর্যায়ের বিজয়ীগণ পুরষ্কার ও সার্টিফিকেট ছাড়াও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ‘শেখ হাসিনা গ্লোবাল ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড’ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ পাবেন






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply