sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে অপহৃত তিনশতাধিক শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করেছে নাইজেরিয়া




র যৌথ বাহিনী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ক্যাটসিনা রাজ্য গভর্নর। স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাতে বিবিসি জানিয়েছে, গেল সপ্তাহে অপহৃত হওয়া ৩৪৪ শিক্ষার্থীকে গহীন জঙ্গলে বোকো হারামের কাছে থেকে উদ্ধার করা গেছে। তাদের শারীরিক অবস্থা ভালো রয়েছে বলে জানান ক্যাটসিনা রাজ্য গভর্নরের এক মুখপাত্র। বৃহস্পতিবার স্থানীয় প্রশাসন আরো জানায়, শিক্ষার্থীদের পরিবারের কাছে নিরাপদে ফিরিয়ে দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। গভর্নর আমিনু বেল্লো মাসারি বলছেন, ‘জামফারা রাজ্যের রুগু বনে আটক করে রাখা হয়েছিল তাদের। আমরা ৩৪৪ জনকেই উদ্ধার করতে পেরেছি।’ তবে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা তদন্ত করে নিশ্চিত করতে পারেনি যে, অপহৃত হওয়া সব শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছি কিনা। এর আগে প্রেসিডেন্টের দফতর জানায়, আটক হওয়া শিক্ষার্থীদের মুক্তি দেয়া হয়েছে। তবে সশস্ত্র জঙ্গি গোষ্ঠী বোকো হারাম যাদের গুম করেছিল তাদের সবাইকে উদ্ধার হয়েছে কিনা বিষয়টি পরিষ্কার করেনি। গভর্নর মাসারি জানান, যে জায়গায় শিক্ষার্থীদের অবরোধ করে রাখা হয়েছিল ওই স্থানের সন্ধান পায় নাইজেরিয়ার বাহিনী। অনেকে শিক্ষার্থী থাকায় কোন গুলি না চালাতে সশস্ত্র বাহিনীকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। তিনি বলেন, ‘ক্ষতিগ্রস্ত শিশুদের আমরা ভালোভাবেই উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি। এজন্য যৌথবাহিনীকে বিশেষ ধন্যবাদ জানাই। অভিযান চলাকালে নির্দেশনা অনুযায়ী একটি গুলিও চালায়নি তারা।’ নিরাপত্তা বাহিনীর মুখপাত্র ইব্রাহিম কাতসিনা ফরাসি বার্তাসংস্থা এফপি-কে জানায়, জামফারার গহীন বনে সাঁড়াশি অভিযানে চালিয়ে ৩৪৪ শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। জায়গাটি এখনো ঘিরে রেখেছে নিরাপত্তা সদস্যরা। কোন প্রাণহানি ছাড়া তাদের উদ্ধার হওয়ায় সৃষ্টিকর্তার কাছে ধন্যবাদ জানান এ মুখপাত্র। প্রত্যেকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে জানায় নাইজেরিয়া সরকার। এদিকে সরকারের কাছে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন শিক্ষার্থীদের পরিবার। গেল শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) রাতে ক্যাটসিনা রাজ্যের কানকারা এলাকায় গভর্নমেন্ট সায়েন্স সেকেন্ডারি স্কুল নামের ওই বিদ্যালয়ে অতর্কিত হামলা চালায় মোটরসাইকেল আরোহী কয়েকজন বন্দুকধারী। ঘটনাস্থলে থাকা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে তাদের বন্দুকযুদ্ধ হয়। বিদ্যালয়ে থাকা আট শতাধিক শিক্ষার্থীর প্রায় অর্ধেক হোস্টেল ছেড়ে পালিয়ে যায়। এদের মধ্যে তিন শতাধিক শিক্ষার্থী নিখোঁজ ছিল। এরপর প্রায় এক সপ্তাহের অভিযানে তাদের উদ্ধার করা গেছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply