sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ইসরাইলে রাষ্ট্রদূত নিয়োগ দিল তুরস্ক!




ইসরাইলে রাষ্ট্রদূত নিয়োগ দিল তুরস্ক!

দুই বছর পর ইসরাইলে রাষ্ট্রদূত নিয়োগ দিয়েছে তুরস্ক। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। ২০১৮ সালের মে মাসে তেল আবিব থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করে আঙ্কারা। অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনিদের ওপর ভয়াবহ ইসরাইলি হামলার প্রতিবাদে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ফিলিস্তিনিরা তখন তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে স্থনান্তরে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছিলেন। নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের লক্ষে ৪০ বছর বয়সী উফুক উলুতাসকে তুরস্কের নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বিষয়টির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত সূত্রের বরাতে ওয়াশিংটনভিত্তিক গণমাধ্যম আল মনিটর এ তথ্য জানিয়েছে। প্রতিবেদনে উলুতাসকে খুবই মার্জিত, অত্যন্ত বুদ্ধিমান এবং ঘোর ফিলিস্তিনপন্থী বলে অভিহিত করা হয়েছে। জেরুজালেম বিশ্ববিদ্যালয়ে হিব্রু এবং মধ্যপ্রাচ্য রাজনীতি নিয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি। ইসরাইলের আঞ্চলিক প্রতিপক্ষ ইরান বিষয়েও বিশেষজ্ঞ উলুতাস। তবে কূটনৈতিক হিসেবে তার পূর্বের কোনো অভিজ্ঞতা নেই। ইসরাইলের সঙ্গে তুরস্ক প্রথম কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে ২০১০ সালে। ওই সময় অবরুদ্ধ গাজার জলপথে ইসরাইলের দশক পুরনো অবরোধ প্রত্যাখ্যান করে ফিলিস্তিনিদের ত্রাণ সহায়তা দিতে যায় তুরস্কের মানবাধিকারকর্মীরা। তাদের বহনকারী জাহাজে হামলা চালায় ইসরাইলি কমান্ডো। এতে ফিলিস্তিনপন্থী ১০ তুর্কি মানবাধিকারকর্মী নিহত হয়। ২০১৬ সালে তুরস্ক এবং ইসরাইলের মধ্যে আবারও সম্পর্ক পুনস্থাপন হয়। কিন্তু ২০১৮ সালে মার্কিন দূতাবাস স্থনান্তরের পর দু’দেশের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তি করেছে আরব দেশ- বাহরাইন, মরক্কো, সুদান এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত। এরপরই উলুতাসকে রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ দিল তুরস্ক। ইসরাইলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর সম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তির তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন ফিলিস্তিনিরা। আরবদের এমন আচরণকে চরম বিশ্বাসঘাতকতা বলে অভিহিত করেছেন তারা। বলেছেন, এমন পদক্ষেপ ফিলিস্তিনিদের আত্মপরিচয়রের সংগ্রামকে ব্যাহত করবে। চলতি বছরের শুরুতে তথাকথিত মধ্যপ্রাচ্য পরিকল্পনা ঘোষণা করেন ট্রাম্প। যা অপ্রতিরোধ্যভাবে ইসরাইলের পক্ষে। মার্কিন এমন পরিকল্পনা অব্যাহতভাবে প্রত্যাখ্যান করে আসছেন ফিলিস্তিনিরা। ট্রাম্পের পরিকল্পনা এবং ইসরাইলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর সম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তির তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান। মুসলিম বিশ্বে নিজেকে ফিলিস্তিনিদের কট্টর সমর্থক হিসেবে উপস্থাপন করেছেন তিনি। উলুতাসকে রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার পরও ইসরাইলের সঙ্গে তুরস্ক পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করবে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়। দুই বছর আগে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান এবং ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহুর মধ্যে চরম বাকযুদ্ধ বিনিময় হয়। অবরুদ্ধ গাজায় হামলা চালিয়ে ফিলিস্তিনিদের হত্যা করায় ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীকে সন্ত্রাসী হিসেবে আখ্যা দেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। জবাবে কুর্দি গ্রামে বোমা হামলাকারী হিসেবে তুর্কি প্রেসিডেন্টকে অভিহিত করেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী। ইসরাইলকে ইহুদি রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিতে দেশটির পার্লামেন্ট পাস করা বিতর্কিত আইনেরও সমালোচনা করেছেন এরদোয়ান।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply