sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » হংকংয়ে সাবেক আইনপ্রণেতাসহ ৫০ জন গ্রেপ্তার




বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইনে হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থি সাবেক আইনপ্রণেতা ও আন্দোলনকারীদের অন্তত ৫০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ডেমোক্রেটিক পার্টির ফেসবুক পেজে বলা হয়েছে, গত বছরের নির্বাচনের আগে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য প্রাইমারি ভোট আয়োজনের ঘটনায় তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নির্বাচনের সময়ই হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি লাম জানিয়েছিলেন, এই ভোটকে আইনের লঙ্ঘন হিসেবে বিবেচনা করা পারে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে হংকং পার্লামেন্ট নির্বাচনের আগে জুলাইয়ে বিরোধী দলগুলো নিজেদের উদ্যোগে প্রাইমারি ইলেকশনের মাধ্যমে তাদের প্রার্থীদের বাছাই করে। পরে অবশ্য মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় নির্বাচন স্থগিত করা হয়। বিরোধীদলগুলো নির্বাচনে জেতার ব্যাপারে আশাবাদী ছিল এবং তারা গণতান্ত্রিক সংস্কারের জন্য আরো চাপ সৃষ্টি করতে পারত বলে বিবিসির খবরে বলা হয়। হংকং ফ্রি প্রেস জানায়, গ্রেপ্তার সাবেক আইনপ্রণেতাদের মধ্যে রয়েছেন আলভিন ইউয়েং, অ্যান্ড্রু ওয়ান, অ নক-হিন, এড্ডি চু, গ্যারি ফ্যান, হেলেনা ওং, জেমস টো, জেরেমি, টাম, কৌক কা-কি, লাম চিউক টিং, রেমন্ড চ্যান, রয় কৌং এবং উ চি-ওয়াই। এ ছাড়া ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিলর অ্যান্ড্রু চিউ, অ্যান্ডি চুই, বেন চাং, ক্ল্যারিস ইউয়েং, ফারগাস লিউং, ক্যালভিন হো লরেন্স লাউ, লি ইউ-সান, লেস্টার সাম, কিন-ওয়াই, রিকি অর, রয় টাম, স্যাম চিউং, জে টাক-লয়, টিফানি ইউয়েন এবং ওং পাক-ইয়ু গ্রেপ্তার হয়েছেন। চীন তত্ত্বাবধানে থাকা সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশ হংকংয়ে গত বছরই জাতীয় নিরাপত্তা আইন চালু করে বেইজিং। আইনটির ব্যবহার করে সেখানকার গণতন্ত্রপন্থিদের এবারই সবচেয়ে বড় সংখ্যায় গ্রেপ্তার করা হলো। এর আগে বিরোধী দলের অনেককেই জাতীয় নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বিদেশি শক্তির সঙ্গে আঁতাত করে বিচ্ছিন্নতাবাদ, রাষ্ট্রীয় নিয়ম ভঙ্গ, সন্ত্রাসবাদ ও ধংসযজ্ঞের অভিযোগে অভিযুক্তদের জাতীয় নিরাপত্তা আইনে বিচার করে চীনের আদালত। এই আইনে কারো আজীবন কারাদণ্ডেরও শাস্তি হতে পারে। শুরু থেকেই মানবাধিকার সংগঠনগুলো আইনটির সমালোচনা করে আসছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply