sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে টিকাদান কেন্দ্রেই চিকিৎসা : স্বাস্থ্যমন্ত্রী




পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে টিকাদান কেন্দ্রেই চিকিৎসা : স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিকা গ্রহণের পর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে টিকাদানের স্থানেই চিকিৎসার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীর পাঁচটি হাসপাতালে শুরু হবে করোনার টিকাদান কর্মসূচি। আর ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে একযোগে শুরু হবে করোনার টিকা দেওয়ার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম। টিকা গ্রহণের জন্য নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে আজ থেকেই। রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে বহু কাঙ্ক্ষিত করোনার টিকার প্রয়োগ শুরু হলো আজ বুধবার। আর আগামী বৃহস্পতিবার থেকে রাজধনীর আরো চারটি- ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, কুয়েত মৈত্রী জেনারেল হাসপাতাল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনার টিকা দেওয়া হবে। এসব হাসপাতালে এরই মধ্যে টিকা দেওয়ার বিষয়ে সব কার্যক্রম সম্পন্নের কথা জানানো হয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে। স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রাধান্য দিয়ে সম্মুখসারির সেবাদানকারীদের আপাতত টিকা দেওয়া হবে। আর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হাতে থাকা ৭০ লাখ টিকা সারা দেশে পৌঁছানোর পর ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে একযোগে করোনার টিকা দেওয়ার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী বলেন, ‘আগামীকাল আরো পাঁচটি হাসপাতালে আরো ৫০০ জন ব্যক্তিকে টিকা দেওয়া হবে।’ আর করোনার টিকা দেওয়ার পর আধাঘণ্টা টিকা দেওয়ার কেন্দ্রেই অবস্থান করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে। এই সময়ের মধ্যে বা পরে কোনো টিকা গ্রহীতার শরীরে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিলে চিকিৎসার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এ ব্যাপারে জাহিদ মালেক বলেন, ‘যদি টিকা নেওয়ার পর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় তাহলে তার জন্য আমরা সব ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি। চিকিৎসক, নার্স থাকবে স্ট্যান্ডবাই এবং ওষুধও থাকবে স্ট্যান্ডবাই।’ করোনার টিকা নেওয়ার জন্য বিশেষায়িত ওয়েবসাইট https://www.surokkha.gov.bd/ এ নিবন্ধন করতে হবে। নিবন্ধন ছাড়া আপাতত টিকা মিলবে না বলে জানানো হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে। কম্পিউটারে ছাড়াও মোবাইল থেকেও এই নিবন্ধন সম্পন্ন করা যাবে। এ ছাড়া গুগল প্লে স্টোর ও আইক্লাউড থেকে এই অ্যাপ নামিয়েও নিবন্ধন করা যাবে। নিবন্ধন করতে প্রয়োজন হবে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর ও একটি সচল মোবাইল ফোন। জাতীয় পরিচয় না থাকলে আপাতত টিকা নেওয়া যাবে না বলেও জানানো হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে। তবে কেউ নিজে নিবন্ধন করতে না পারলে দেশজুড়ে থাকা ডিজিটাল সেবাদান কেন্দ্র থেকে করোনার টিকার জন্য নিবন্ধন করা যাবে। এ ছাড়া কিছু টিকা দেওয়ার কেন্দ্রেও নিবন্ধন করার ব্যবস্থা থাকবে বলে জনিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। নিবন্ধন সম্পন্ন হলে টিকা গ্রহণের জন্য একটি কার্ড পাওয়া যাবে যা ডাউনলোড করে রাখতে হবে ও পরে সুবিধাজনক স্থান থেকে প্রিন্ট করে রাখতে হবে। টিকা দেওয়ার জন্য নির্ধারিত সময় ও স্থান পরে মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply